চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ৭ অক্টোবর ২০১৬

মেহেরপুরে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু প্রতিবাদে সরকারী জেনারেল হাসপাতালে হামলা : জরুরী বিভাগ ভাংচুর

সমীকরণ প্রতিবেদন
অক্টোবর ৭, ২০১৬ ১২:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

Meherpur Patient Dead News-pn_-2 Meherpur Patient Dead News-pn_-1মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুরে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ২৫০ শয্যার মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে হামলা চালিয়ে জরুরী বিভাগ ভাংচুর করেছে রোগীর স্বজন ও ক্ষুদ্ধ দর্শনার্থীরা। এর প্রতিবাদে চিকিৎসকেরা দুই ঘন্টা চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে দেয়। পরিস্থিতি মেকাবিলায় চিকিৎসকেনা জরুরী  মিটিং ডাকে। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, সকাল ৯ টার দিকে বিদ্যুৎস্পর্শ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যায় মেহেরপুর শহরের চক্রপাড়ার হাবিবুর রহমান। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক রোগীকে মৃত ঘোষণা করেন। স্বজনরা রোগীকে নিয়ে বাড়িতে ফিরলে রোগীর শরীর নড়ে ওঠে। নিহতের স্বজন সাখাওয়াত হোসেন জানান, চিকিৎসক প্রথম দফায় রোগীকে সঠিক চিকিৎসা দিলে রোগী মারা যেত না। তৎক্ষনাত রোগীর স্বজনরা পুনরায় রোগীকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ফিরলে জরুরী বিভাগে চিকিৎসক না পেলে রোগীটির মৃত্যু ঘটে। তখন রোগীর স্বজন ও বিক্ষুদ্ধ লোকজন হাসপাতালের জরুরী বিভাগে হামলা চালিয়ে জরুরী বিভাগ ভাংচুর করে। এর প্রতিবাদে চিকিৎসকেরা তাৎক্ষনিক চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে দিতে নিরাপদ স্থানে চলে যায়। চিকিৎসা না পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছে। এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় করনীয় নির্ধারণে চিকিৎসকেরা জরুরী মিটিং ডেকেছে। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (সুপার) মিজানুর রহমান জানান, চিকিৎসায় কোন ভুল নেই। নিহতের স্বজনরা ভুল বুঝে হাসপাতাল ভাংচুর করেছে। বিদ্যুৎস্পর্শ হয়ে রোগী হাসপাতালে এলে রোগী পরীক্ষা করে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এমন ধরনের রোগীর শরীর কিছুক্ষণ পর নড়ে ওঠলে স্বজনরা বেঁচে আছে সন্দেহে রোগীকে পুনরায় হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং ক্ষুদ্ধ হয়ে এই ভাংচুর করে। এ কারণে চিকিৎকরা প্রতিবাদ স্বরূপ চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।