মেহেরপুরের গাংনীতে ওয়ার্কার্স পার্টির জনসভায় বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন আগামী নির্বাচনে না আসলে বিএনপির অস্তিত্বই থাকবে না

395

Meherpur menon picমেহেরপুরের গাংনীতে ওয়ার্কার্স পার্টির জনসভায় বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন
আগামী নির্বাচনে না আসলে বিএনপির অস্তিত্বই থাকবে না
মিজান রহমান/মাহাবুব আলম: বিএনপি কি বলছে তারা নিজেরাই জানে না। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে বিএনপিকে নির্বাচন করতে হবে। বিগত জাতীয় নির্বাচনে না এসে বিএনপি যে ভুল করেছে, আগামী নির্বাচনে যদি সেই ভুল করে তাহলে বিএনপির কোন অস্তিত্বই থাকবে না। নির্বাচন কমিশন গঠনের ব্যাপারে রাষ্ট্রপতি যে সার্চ কমিটি গঠন করেছিলেন সেই সার্চ কমিটির মতামত নিয়েই নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মেহেরপুরের গাংনীতে ওয়ার্কার্স পার্টির জনসভায় অংশগ্রহণের আগে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সাংবাদিকের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, নির্বাচন কমিশনকে শক্তিশালী করার বিষয়ে আইন প্রণয়ন সংবিধানে রয়েছে। আমরা এ বিষয়ে প্রস্তাব করছি। নির্বাচন কমিশন যাতে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে সেদিকে সরকার দৃষ্টি দেবে। খালেদা জিয়া কারাগারে গেলে এ দেশে কোন নির্বাচন হবে না বলে বিএনপি যে হুমকি দিচ্ছে এ বিষয়টি মহাজোট কিভাবে দেখছে ?এ প্রশ্নের জবাবে মšী¿ বলেন, অপরাধী যেই হোক আইনের চোখে সমান। বিএনপি যে হুমকি দিচ্ছে এতে মহাজোট ভীত নয়। আগামী নির্বাচনে ওয়ার্কার্স পার্টি দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করবে কি না? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে দলীয়ভাবে আলোচনা করা হচ্ছে এবং জোট গতভাবেও আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন গাংনী ওয়ার্কার্স পার্টি অফিসে পৌঁছুলে তাকে স্বাগত জানান মেহেরপুর জেলা প্রশাসক পরিমল সিং, পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান, গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ উজ জামান। এসময় ওয়ার্কাস পাটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান পলিটব্যুরো সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, কমরেড নূর আহমদ বকুল, মেহেরপুর জেলা সম্পাদক আব্দুল মাবুদ সহ ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে গাংনী ফুটবল মাঠে এক বিশাল জনসভা অনুষ্ঠিত  হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, হরতাল অবরোধের নামে দেশে অরাজগতা সৃষ্টি কারীদের জনগন প্রতিহত করবে। এখন জনগন উন্নয়নের রাজনীনিতে বিশ্বাস করে। যদি বিএনপি নির্বাচনে না আসে তবে দেশ থেকে বিএনপি চিরতরে বিদায় নেবে। তিনি মেহেরপুরের জনগনের উদ্দ্যোশ্য বলেন, বাংলাদেশের মানুষ এগিয়ে যাচ্ছে এগিয়ে যাবে তার জন্য দরকার ঐক্যে বদ্ধ লড়াই। তিনি বলেন ৬৪ জেলার মধ্যে ৬১ জেলায় এক যোগে বোমা ফেটেছে। মন্দির  মসজিদ বাজার কিছুই বাদ রইলো না। তারা বোমা মেরে আতংক সৃষ্টি করতে চেয়েছিল। এখন সেই জঙ্গিবাদ নতুন রুপ নিয়েছে।  রাজনৈতিক ভাবে দেখলাম ২০১৪ সালে নিবার্চনকে কেন্দ্র করে। এই বাংলাদেশে নতুন সন্ত্রাসী ঘটনার সুত্র হল। আর ২০১৪ সালের নির্বাচনে ঘটনার রুপ নিল আগুন সন্ত্রাসে। পেট্রুল বোমা মেরে পুলিশ থেকে শুরু করে শিশু এমন কি গবাদি পশু তাকেও পুরিয়ে হত্যা করা হয়েছিল। বাংলা ভাই চলে গেছে কিন্তু জঙ্গিবাদ যায়নি। আপনারা দেখেছেন হলি আর্টিজানে হামলা, পুলিশ ও জঙ্গি গুলি বিনিময়, মসজিদের খাদেম হত্যা, বিদেশী নাগরিক হত্যা এই জঙ্গি বাদ বাংলাদেশের মানুষের সামনে প্রধান বিপদ বলে আখ্যায়িত করেছেন। যুদ্ধ অপরাধীদের বিচার করেছি। তাদের বিরুদ্ধে রায় হয়েছে। কিন্তু তারা বলেন  বিচার নাকি সুষ্ঠ হয়নি। তারাও বিচার চাই কিন্তু সুষ্ঠ হতে হবে। কিন্তু এর থেকে বিচার কিভাবে সুষ্ঠ হয় আমরা তা জানিনা। আর তাই বাংলাদেশের মানুষ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তারা ১৫ সালের পর থেকে আন্দলন আন্দলন করছে কিন্তু মাঠে নামতে পারে নাই। এখন আবার নতুন তাল তুলেছেন নির্বাচন কমিশন নিয়ে। তিনি দাবি করেন যে নিবার্চন কমিশন গঠন করা হয়েছে তাদের নিরপেক্ষতার কোন অভাব ছিলো না। রাষ্ট্রপতির উদ্দ্যোগে তারা ১০ জনের মধ্যে ৮ জনের নাম দেয়। এর মধ্যে ৫ জনের নাম রাখা হয়। এর চেয়ে বেশি কি নিরপেক্ষতা হয়। কি সচ্ছতা হয় আমার জানা নেই। এছাড়াও জনসভায় উপস্থিত বক্তারা বলেন,  সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের পাশাপাশি চাকুরী ক্ষেত্রে নিয়োগ বানিজ্য, কৃষকদের অধিকার, শ্রম জীবি মানুষের অধিকার বিষয়ে ব্যাপক সমালোচনা করেন বর্তমান সরকারের এগুলো থেকে বের না হলে তাদের মতই পরিনতি হবে বলেও হুশিয়ারী দেন।। বক্তারা বলেন, একজন সুইপার নিয়োগেও ২ থেকে ৩ লক্ষ টাকা ঘুষ দিতে হয় এটা বড় লজ্জা জনক ঘটনা। এদিকে ২৫ দফা দাবি করেন মেহেরপুর জেলা ওয়ার্কাস পাটি। দাবি গুলোর মধ্যে মেহেরপুরে পল্লী বিদ্যুৎএর দালাল মুক্ত ও পৌর এলাকায় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ থাকা,  ইপিজেড, মুজিবনগর থেকে কুষ্টিয়া মিরপুর রেল লাইন, মহিলা কলেজ সরকারী, চিৎলা ফার্মের শ্রমিকদের বেতন বৈসম্যে দুর করন, পৌর কমিউনিটি সেন্টার,  গাংনী ভাটপাড়া নীলকুঠিতে পর্যটন কেন্দ্র গড়াসহ  ২৫ দফা দাবি করেন। এসময় মন্ত্রী বলেন দাবি আদায়ের লক্ষ্যে যে সকল মন্ত্রানালায় রয়েছে। সে সকল মন্ত্রানালায়ে আমি নিজে এ দাবি গুলো তুলে ধরবো বলে । জনসভায় জেলা ওয়ার্কাস পাটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড আব্দুল মাবুদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথী হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, কমরেড নূর আহমদ বকুল, জননেতা অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি, গাংনী পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য মজিরুল ইসলাম, সৈনিকলীগের যুগ্ম-আহবায়ক ফারুক হাসান, চুয়াডাঙ্গা জেলা সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ও কমরেড মজনুল হক প্রমূখ।