চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ৭ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মুজিবনগরে সেনা সদস্যকে মারধরের অভিযোগ!

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুন ৭, ২০২২ ১১:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন: মেহেরপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক সেনা সদস্যকে আটকে রেখে মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক সাবেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার সকালের দিকে মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার কোমরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলার কোমরপুর গ্রামের জামাতের মেয়ে শিমার (২০) সাথে কুষ্টিয়া মিরপুরে হাফিজুলের ছেলে সেনা সদস্য ইকবালের (২০) দুই মাস আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম (ফেসবুকে) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সম্পর্কের সুবাদে গত রোববার ওই মেয়ের সাথে দেখা করতে আসে সেনা সদস্য ইকবাল হোসেন। পরে দিনভর বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি শেষে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায় শিমা খাতুন। এসময় সেনা সদস্যকে আটকে রেখে বিভিন্ন ধরণের হুমকি-ধামকি ও মারধর করেন সাবেক ইউপি সদস্য ময়না। ওইদিন রাতেই কোমরপুর ক্যাম্পের আইসি মোমেন ঘটনাস্থলে গিয়ে কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে সাবেক মেম্বার ময়নার তত্ত্বাবধানে সেনা সদস্যকে ছেড়ে দেয়। সেই সাথে বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য তাগাদা দিয়ে যায়।

এ বিষয়ে সেনা সদস্য ইকবাল বলেন, ‘দুই মাস আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আমাদের প্রেমের সম্পর্ক হয়। সেই সুবাদে গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুষ্টিয়া থেকে মেহেরপুরে পৌঁছালে শিমা আমাকে নিয়ে মেহেরপুরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরিয়ে বিকেলে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। বাড়িতে কিছুক্ষণ বিশ্রামের পর বাসার দিকে যেতে চাইলে সাবেক মেম্বারসহ বেশ কিছু লোকজন আমাকে আটকে দেয়।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেশ কিছু গ্রামবাসী জানান, জামাতের মেয়ে শিমা এর আগেও কোমরপুর গ্রামের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সেনা সদস্য শিলনের সাথে সম্পর্ক করে তার কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে মীমাংসা করেছে।

সাবেক মেম্বার ময়না জানান, সেনা সদস্য ইকবালকে অনৈতিক কার্যক্রমের সাথে জড়ানোর জন্য তাকে আটকে রাখা হয়েছে। তার কাছ থেকে তার পরিবারের নম্বর চাইলে সে দিতে না চাইলে তাকে শাসানো হয়ে। সেনা সদস্যকে মারার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাকে মারা হয়নি কিন্তু হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে কোমরপুর ক্যাম্পের আইসি আ. মোমেনের কাছে জানতে চাইলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।