চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ১২ ডিসেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার দেশের জন্য সুখবর

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
ডিসেম্বর ১২, ২০২১ ৩:১৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দীর্ঘ পাঁচ বছর পর মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের জন্য শ্রমবাজার খুলে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে আশিয়ানভুক্ত এ দেশটির যে কোনো খাতে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগ সম্ভব হবে। পাঁচ বছর আগেও সৌদি আরবের পর মালয়েশিয়া ছিল বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার। রেমিট্যান্স আয়ের দিক থেকেও মালয়েশিয়ার অবস্থান ছিল দ্বিতীয় স্থানে। নানা কারণে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করে মালয়েশিয়া। ১০ ডিসেম্বর সে বাধা উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে। ওইদিন অনুষ্ঠিত মালয়েশীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগের সিদ্ধান্ত হয়।
বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়। এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের সঙ্গে সঙ্গেই বাংলাদেশি কর্মীরা মালয়েশিয়ায় প্রবেশের অনুমতি পাবেন। মন্ত্রিসভার বৈঠকে আরও সিদ্ধান্ত হয়েছে- আগের মতো শুধু প্লান্টেশন খাতে নয়, এখন থেকে মালয়েশিয়ায় যে কোনো খাতেই বিদেশি কর্মী নিয়োগ করা যাবে। বিদেশি কর্মীরা প্লান্টেশন, কৃষি, উৎপাদন খাত, সার্ভিস, মাইনিং, কনস্ট্রাকশন ও গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতে পারবেন। মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারভানের বিবৃতিতে বলা হয়- কভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশের ক্ষেত্রে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর মেনে চলতে হবে। ইতিমধ্যে মালয়েশিয়া সে দেশে জনশক্তি রপ্তানির বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের জন্য ১৫ অথবা ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজার উন্মোচন দেশের জন্য সুসংবাদ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এর ফলে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। বাড়বে রেমিট্যান্স আয়। দেশের শ্রমবাজারগুলোর মধ্যে মালয়েশিয়া সাংস্কৃতিক দিক থেকে বাংলাদেশের সবচেয়ে কাছের। এ দেশটিতে বাংলাদেশি কর্মজীবীরা তুলনামূলকভাবে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। নতুন বছরের শুরুতেই মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানি সম্ভব হবে- আমরা এমনটি দেখতে চাই।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।