চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ১ নভেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মামলার প্রধান আসামি ভাল্লুক, অভিযোগ মধু চুরি!

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ১, ২০১৬ ১:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

Black_Bear_

বিস্ময় ডেস্ক: এটি চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ইউনান প্রদেশের একটি ঘটনা। সেখানে একটি মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে একটি কালো ভাল্লুককে। ঐ অঞ্চলের সংরক্ষিত প্রাকৃতিক মৌ-চাষ কেন্দ্র ও সংগ্রহশালা থেকে মধু চুরি করার সময় ইনফ্রারেড ক্যামেরায় চিহ্নিত হয় ভাল্লুকটি। চিহ্নিত হওয়ার পর প্রধান আসামির তালিকায় নাম চলে আসে ভাল্লুকটির। বেশ কয়েকদিন মধু চুরির পর কাছের একটি গাছে গোপন ক্যামেরাটি স্থাপন করে চুরির ঘটনা রেকর্ড করা হয়। প্রাকৃতিক মৌ-চাষ কেন্দ্রটির কর্মীরা পরে চুরির ঘটনাটি রেকর্ড করা একটি ইনফ্রারেড ক্যামেরার ফুটেজ খুঁজে পান। তা দেখে  ‘চোর’ কে তা শনাক্ত করেন তারা এবং এভাবে মামলাটির নিষ্পত্তি হয়। ফুটেজে দেখা গেছে, ভাল্লুকটি তার মুখ দিয়ে মৌ-বাক্সের ঢাকনা খুলে ফেলে। মৌমাছির ঝাঁক বাইরে বের হয়ে এলে পালিয়ে যায় সে। মৌমাছিরা পালিয়ে গেছে নিশ্চিত হওয়ার পর ফিরে আসে। এরপর মধুভর্তি কাঠের পিপে নিয়ে পালিয়ে যায়। এর আগে কেন্দ্রটির কর্মীরা কালো ভাল্লুকটির পায়ের ছাপ পেয়েছিলেন। মৌমাছিশালার কাছে পিপের মধ্যে এর মলও পাওয়া যায়। কিন্তু মামলাটির নিষ্পত্তি হচ্ছিল না প্রত্যক্ষ প্রমাণের অভাবে। সপ্তাহ খানেক পরে তারা কাছের একটি গাছে ক্যামেরাটি স্থাপন করে প্রমাণ পেলে এর সমাধান নিশ্চিত হয়। গাওলিগং পাহাড়ের ওই সংরক্ষিত জাতীয় কেন্দ্রটির কর্মকর্তা দ্বি ঝেং জানান, “চীনের দ্বিতীয় শ্রেণীর পশু হিসেবে সংরক্ষিত কালো ভাল্লুকদের খাদ্য খোঁজা ও শীতযাপনের প্রস্তুতির মৌসুম এখন। এই ভাল্লুকটি সম্প্রতি এক রাতে স্থানীয় একজন কৃষকের মৌমাছিশালায় হানা দেয়। একটি মৌ-বাক্সের মধু চুরি করে পালিয়ে যায়। মধুচক্র ও মধুবাহী পিপেগুলোর কয়েকটিরও ক্ষতি হয়েছে এ হামলায়।”

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।