চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ১ আগস্ট ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

‘মক্কা-মদিনার আন্তর্জাতিকীকরণের ডাক যুদ্ধ ঘোষণার শামিল’

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ১, ২০১৭ ৭:১০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বিশ্ব ডেস্ক: হজ্বের স্থানগুলোর আন্তর্জাতিকীকরণের কাতারের ‘দাবি’কে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রোববার সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন আল আরাবিয়া টেলিভিশন এ কথা জানিয়েছে; অপরদিকে এ ধরনের কোনো আহ্বান জানানোর কথা অস্বীকার করেছে কাতার। আল আরাবিয়ার ওয়েবসাইটে দেওয়া উদ্ধৃতিতে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবেইর বলেছেন, “পবিত্র স্থানগুলোকে আন্তর্জাতিকীকরণের কাতারের দাবি আক্রমণাত্মক এবং সৌদি আরবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা। “যারাই পবিত্র স্থানগুলোর আন্তর্জাতিকীকরণের জন্য কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের অধিকার আমাদের আছে।” অপরদিকে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুলরাহমান আল থানি বলেছেন, তার দেশের কোনো সরকারি কর্মকর্তা এ ধরনের কোনো আহ্বান জানাননি। আল জাজিরা টেলিভিশনকে তিনি বলেন, “মিথ্যা তথ্যের জবাব দেয়ার চেষ্টা করছি আমরা। শূন্য থেকে এসব গল্প বানানো হচ্ছে।” সৌদি আরব হজকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করে ধর্মীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে বলে শনিবার জাতিসংঘের বিশেষ দূতের কাছে অভিযোগ করেছে কাতার। চলতি বছর হজ গমনেচ্ছু কাতারিদের যে বাধাগুলোর মুখোমুখি হতে হচ্ছে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দেশটি। কাতারের বিরুদ্ধে জঙ্গিদের মদত দেয়ার অভিযোগ তুলে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেছে সৌদি আরব ও তার মিত্র সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিশর ও বাহরাইন। পাশাপাশি সড়ক, জলপথ ও বিমানপথে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ওই চার আরব দেশ। এরপর মুসলিম ব্রাদারহুডকে সমর্থন বন্ধ করা, দোহাভিত্তিক সংবাদ চ্যানেল আল জাজিরা বন্ধ, কাতারে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধ ও শত্রুদেশ ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক সীমিত করাসহ ওই চারটি দেশ কাতারের কাছে ১৩টি দাবি পেশ করে। এ দাবিগুলো মানলে কাতারের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে বলে জানায় তারা। দাবিগুলোকে সার্বভৌমত্ব বিরোধী অভিহিত করে তা প্রত্যাখ্যান করে কাতার। দাবিগুলো প্রত্যাখ্যান করলেও আলোচনার পথ খোলা আছে বলে জানায় দেশটি। রোববার ওই চারটি আরব দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা জানিয়েছেন, তাদের দাবিগুলো সমাধানের বিষয়ে সদিচ্ছা দেখালে কাতারের সঙ্গে আলোচনায় প্রস্তুত আছেন তারা।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।