চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ৮ জুন ২০১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভেজালবিরোধী অভিযান সারা বছর চলুক

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুন ৮, ২০১৮ ৯:৫৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বর্তমানে খাদ্যে ভেজাল এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, বাজারে ভেজালমুক্ত খাবার পাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। বস্তুত খাদ্যে ভেজালের ইস্যুটি অনেক পুরনো হলেও কর্তৃপক্ষ ভেজালমুক্ত খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে পারেনি। ফুটপাত থেকে শুরু করে অভিজাত হোটেল, রেস্টুরেন্ট-সর্বত্রই ভেজালের ছড়াছড়ি। বর্তমানে অবস্থা এমন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে যে, একজন অসুস্থ ব্যক্তি কিংবা শিশুর জন্য আমরা যে ফল ক্রয় করছি, তা কতটা বিষমুক্ত এ নিয়েও ভাবতে হয়।
এখন আমরা বাজারে মৌসুমি ফল দেখলে আতঙ্কিত হয়ে ভাবতে থাকি, উৎপাদন পর্যায় থেকে খুচরা বিক্রেতার হাত পর্যন্ত আসতে এ ফলে কতবার ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ মেশানো হয়েছে? কিছু অসাধু মানুষের কাছে ভোক্তারা এখন অসহায়।
বিশেষজ্ঞদের মতে, ভেজালযুক্ত খাদ্যের কারণে মানবদেহে ক্যান্সারসহ বিভিন্ন জটিল রোগের মাত্রা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে। শিশু বিশেষজ্ঞদের মতে, সাম্প্রতিক সময়ে শিশুদের বিভিন্ন জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার মাত্রা অনেক বেড়ে গেছে। অনেক শিশু নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার পরও হঠাৎ জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, খাদ্যে ভেজালের কারণেই এমনটা হচ্ছে। অসাধু ব্যবসায়ীরা নানা ক্ষতিকর উপাদান মিশিয়ে বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য তৈরি করায় ভোক্তারা কিভাবে প্রতারিত হচ্ছেন- প্রকাশিত কয়েকটি প্রতিবেদনে তা তুলে ধরা হয়েছে। বস্তুত অসাধু ব্যবসায়ীদের এসব অপতৎপরতা দীর্ঘদিন ধরেই চলছে। প্রশ্ন হল, এদের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষ কঠোর অভিযান পরিচালনা করছে না কেন? মৌসুমি ফলে উৎপাদনের পর্যায় থেকে শুরু করে ধাপে ধাপে কিভাবে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ মেশানো হয় তা বহুল আলোচিত।
অসাধু ব্যবসায়ী চক্রের এই অপতৎপরতা রোধে কর্তৃপক্ষ কঠোর পদক্ষেপ না নিলে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ মিশ্রিত ফল খেয়ে মানুষ বিভিন্ন জটিল রোগে আক্রান্ত হবে। দেশে নিরাপদ খাদ্যের সরবরাহ নিশ্চিত করতে একটি বিশেষ প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠলেও পর্যাপ্ত জনবল ও সরঞ্জাম না থাকায় প্রতিষ্ঠানটি ভেজালের বিরুদ্ধে কাক্ষিত ভূমিকা রাখতে পারছে না। কিছু অসাধু ব্যক্তি এতটাই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে যে, তারা মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রির মতো অপকর্মের সঙ্গেও যুক্ত থাকে। বিভিন্ন সময় ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হলেও অসাধু ব্যবসায়ীদের অপতৎপরতা মোটেই কমছে না। এ থেকেই বোঝা যায়, এক্ষেত্রে কাক্ষিত ফল পেতে হলে ভেজালবিরোধী জোরালো অভিযান সারা বছর চালু রাখতে হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।