চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ২৬ আগস্ট ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বয়স কমাতে আখের রস!

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ২৬, ২০১৭ ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

স্বাস্থ্য ডেস্ক: একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে, প্রতিদিন এক গ্লাস করে আখের রস পান করলে ত্বকের সৌন্দর্য় তো বৃদ্ধি পায়ই, সেই সঙ্গে হাজারো রোগ ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। ফলে চিকিৎসার খরচা তো কমেই, সেই সঙ্গে আয়ুও চোখে পরার মতো বৃদ্ধি পায়। আসেল এই প্রাকৃতিক উপাদানে উপস্থিত প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, জিঙ্ক, পটাশিয়াম, ভিটামিন এ, বি কমপ্লেক্স এবং ভিটামিন সি, যা একাধিক উপকারে লাগে। যেমনঃ
১। ব্রণের প্রকোপ কমায়ঃ সারা মুখ ছোট ছোট দানায় ভরে গেছে? তাহলে এক গ্লাস আখের রস আর অল্প করে মুলতানি মাটি কিনে আনুন। কী হবে এইসব দিয়ে? অল্প করে মুলতানি মাটি নিয়ে আখের রসের সঙ্গে মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই পেস্ট ভাল করে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন। সময় হয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখটা ধুয়ে নিন। এমনটা সপ্তাহে একবার করলে একটা ব্রণকেও খুঁজে পাওয়া যাবে না।
২। ত্বকের বয়স কমায়ঃ নিয়মিত আখের রস খেলে শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ফ্ল্যাবোনয়েড এবং ফেনোলিক কম্পাউন্ডের মাত্রা বাড়ায়। ফলে ধীরে ধীরে বলিরেখা কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে বয়স বাড়লেও ত্বকের সৌন্দর্যে কোনও ঘাটতি দেখা দেয় না। এখানেই শেষ নয়, স্কিনকে উজ্জ্বল, তুলতুলে এবং সুন্দর করে তুলতেও আখের রস বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।
৩। এনার্জির ঘাটতি দূর করেঃ আখের রসে উপস্থিত সিম্পল সুগার বা সুক্রোস রক্তে মিশে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এনার্জির ঘাটতি দূর করে। তাই তো পেট খারাপের পর শরীরকে চাঙ্গা করে তুলতে আখের রস খাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। তবে সেই রস যেন বাড়িতে বানানো হয়।
৪। মুখের গন্ধ দূর করেঃ আখের রসে রয়েছে ক্যালসিয়াম এবং ফসফরাস। এই দুই খনিজ দাঁতকে শক্তপোক্ত করার পাশাপাশি গন্ধ সৃষ্টিকারি ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই দাঁতের ক্ষয় যেমন রোধ হয়, তেমনি দুর্গন্ধও কমে। প্রসঙ্গত, পুষ্টির ঘাটতির কারণে যদি মুখে গন্ধ হয়, সে সমস্যা মেটাতেও আখের রসের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে।
৫। হাড়ের রোগ কমায়ঃ প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকার কারণে নিয়মিত আখের রস খলে হাড়ের শক্তি বাড়ে। ফলে বুড়ো বয়সে আর্থ্রাইটিসের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে। এই কারণেই তো মহিলাদের বেশি করে আখের রস খাওয়া উচিত। কারণ ৪০-এর পর থেকে বেশিরভাগ মেয়েদেরই শরীরেই ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দেয়। ফলে হাড়ে ক্ষয় সহ একাধিক রোগ ঘাড়ে চেপে বসার সুযোগ পয়ে যায়।
৬। হজম ক্ষমতার উন্নতি করেঃ জল খেলেও বদ-হজম হয়ে যায় নাকি? তাহলে তো বলতে হয় আপনার পেটের অবস্থা বেজায় খারাপ। তা কী করে পেটের রোগ সারাবেন সে বিষয়ে কিছু ভেবেছেন? এক্ষেত্রে আখের রস আপনাকে সাহায্য করতে পারে। একাধিক কেস স্টিড করে দেখা গেছে আখের শরীরে উফস্থিত পটাশিয়াম হজমে সহায়ক অ্যাসিডের ক্ষরণ বাড়িয়ে দেয়। ফলে ধীরে ধীরে গ্য়াস-অম্বল এবং হজমের সমস্যা কমতে শুরু করে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।