চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ১৫ মে ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিক্ষোভ থামছেই না শ্রীলঙ্কায় মাহিন্দাকে গ্রেফতারের দাবি

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মে ১৫, ২০২২ ২:৫৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

শ্রীলঙ্কার পদত্যাগকারী প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষেসহ সাতজনকে গ্রেফতারের আবেদন জানিয়ে এবার মামলা দায়ের হয়েছে। এ আবেদন গ্রহণ হলে নৌ ঘাঁটিতে আশ্রয় নেওয়া মাহিন্দা গ্রেফতার হতে পারেন। এর আগে আদালত তার দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছে। এদিকে গতকালও দেশজুড়ে মাহিন্দার ছোট ভাই প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগ দাবিতে গণবিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। পাশাপাশি নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে মন্ত্রিসভা গঠনের চেষ্টাও চালিয়ে যাচ্ছিলেন। বিবিসি, রয়টার্স।
প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, গতকাল মাহিন্দা রাজাপক্ষেসহ সাতজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন জানিয়ে কলম্বো ফোর্ট ম্যাজিস্ট্রেট থিলিনা গামাজের আদালতে মামলা করা হয়েছে। আবেদনে বলা হয়েছে, সিআইডিকে নির্দেশ দেওয়া হোক, রাজাপক্ষে ও অন্যদের অবিলম্বে গ্রেফতার করুক। কারণ মাহিন্দা সরকারবিরোধী শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলা চালাতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। অ্যাটর্নি সেনেকা পেরারা এ মামলাটি করেছেন। এতে মাহিন্দা ছাড়াও এমপি জনস্টন ফার্নান্ডো, সঞ্জিবা এডিরিমানে, সনৎ নিশান্তা ও মোর্তুয়া, মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিল চেয়ারম্যান সমনলাল ফার্নান্ডো, সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা দেশবন্ধু তেন্নাকুন ও চন্দনা বিক্রমাসিংহেকে গ্রেফতারের আদেশ চাওয়া হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট ১৭ মে কলম্বো চিফ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদনটি গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।
বিক্ষোভ অব্যাহত
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে কাজ শুরু করেছেন রনিল বিক্রমাসিংহে। গত শুক্রবার তিনি ভারত, চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তবে তার বিরুদ্ধেও অনাস্থা জানাচ্ছে দেশটির বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। তা ছাড়া প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের দাবিতেও আন্দোলন অব্যাহত। প্রেসিডেন্টের পদত্যাগসহ একগুচ্ছ দাবি তুলেছেন বিক্ষোভকারীরা। তাতে দেশের শাসনব্যবস্থা আমুল বদলে ফেলার প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, সংসদে মাত্র একটি আসন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসা বিক্রমাসিংহের সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে প্রধান বিরোধী দল সমাজি জনা বালাভেগায়া (এসজেবি)। দলটির সাধারণ সম্পাদক রণজিৎ মাদ্দুমা বানদারা বলেন, ‘সরকার গঠনের কোনো ম্যান্ডেট রনিল বিক্রমাসিংহের নেই। আমরা তাকে চ্যালেঞ্জ করছি, পার্লামেন্টে ১১৩টি আসনের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করুন।’ এদিকে পার্লামেন্টে নতুন সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত করার জন্য সংসদ সদস্যদের অর্থ দিয়ে কেনার চেষ্টা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ প্রসঙ্গে এসজেবির নেতা ও সংসদ সদস্য রাজিথা সেনারত্নে বলেন, রনিল বিক্রমাসিংহের সরকারে যোগ দেওয়ার জন্য তাকে অর্থ দিতে চাওয়া হয়েছিল। নতুন মন্ত্রিসভা গঠন চেষ্টা সম্পর্কে এসজেবির সাধারণ সম্পাদক রণজিৎ মাদ্দুমা বানদারা বলেছেন, কেবল প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের দল শ্রীলঙ্কা পদুজানা পেরামুনার (এসএলপিপি) নেতারা নতুন সরকারের মন্ত্রিসভায় যোগ দেবেন। আগামী সপ্তাহে গোতাবায়ার বিরুদ্ধে পার্লামেন্টে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হবে। এ প্রস্তাব পাস হলে রনিল বিক্রমাসিংহের বিরুদ্ধেও একই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আরেক খবরে জানা গেছে, নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের চেষ্টায় শ্রীলঙ্কায় চলমান কারফিউ ১২ ঘণ্টার জন্য শিথিল করেছে সরকার। গতকাল সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কারফিউ শিথিল করা হয়। এর আগে নাগরিকদের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয়ের সুযোগ দেওয়ার জন্য গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার কিছু সময়ের জন্য কারফিউ শিথিল করেছিল শ্রীলঙ্কা সরকার।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।