বিএনপি নেতার ছেলেকে হত্যা টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট

321

ঝিনাইদহ অফিস: ঝিনাইদহ শহরের হামদহ শান্তিনগর পাড়ায় বুধবার বিকালে সাফিন আলম (১২) নামে এক স্কুল ছাত্রকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ঝিনাইদহ সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেনীর মেধাবী ছাত্র সাফিন হোসেন কালীচরণপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আলমগীর হোসেন আলমের একমাত্র ছেলে। এ সময় দুর্বৃত্তরা আলমিরার ড্রয়ার ভেঙ্গে নগদ ৩৩ হাজার টাকা ও সোনার গহনা নিয়ে গেছে। খবর পেয়ে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। নিহতর পিতা আলমগীর হোসেন জানান, তার স্ত্রী শাহিদা পারভিন সরকারী প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক। তিনি সকালেই কর্মস্থলে চলে যান। তিনি নিজে বুধবার দলীয় নেতাদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া ও ব্যবসায়ীক কাজে বাইরে ছিলেন। সাফিন একাই বাসায় ছিল। নির্মাণ শ্রমিকরা বাসার ৪ তলার কাজ করছিল। বিকাল ৪টার দিকে তার স্ত্রী বাসায় এসে সাফিনকে ডাকাডাকি করে কোন সাড়া না পেয়ে আমাকে খবর দেন। আমি বাসায় ফিরে দরজা ভেঙ্গে দেখি সাফিনের অসাড় দেহ সোফার পাশে পড়ে আছে। নাক দিয়ে রক্ত ঝরছে। ঘরের দরজা ভাঙ্গা। বাসার জিনিসপত্র এলোমেলো। পরিবারের ধারণা সাফিনকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা বাসায় চুরি করেছে। তবে এ সময় বাসার ৪ তলায় নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ করলেও তারা বিষয়টি জানে না। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাস জানান, সাফিনকে হত্যা করা হয়েছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।