বাবাকে বাঁশ দিয়ে পেটালো সন্তান

7

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় পারিবারিক কলোহের জেরে আলিহিম মণ্ডল (৫৫) নামের এক বৃদ্ধকে পিতাকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে তাঁরই ছেলে আল আমিন। এসময় আল আমিনকে বাঁধা দিতে গেলে আহত তাঁরই মা মরিয়ম বেগম (৪৬) ও স্ত্রী সম্পা খাতুন (২২)। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলুকদিয়া চকপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা আহতদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় গতকালই অভিযুক্ত আল আমিনকে আটক করে পুলিশ।
জানা যায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে গতকাল সকালে আলিহিম মণ্ডলের সঙ্গে তাঁর ছেলে আল আমিনের বাড়বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। এরই এক পর্যায়ে আল আমিন ক্ষিপ্ত হয়ে তার পিতা আলিহিমকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এসময় আল আমিনকে প্রতিহত করতে গেলে আহত হয় তাঁরই মাতা মরিয়ম ও স্ত্রী সম্পা। পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা আহতদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত তিনজনকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করেন। এদিকে, গতকালই ঘটনা খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ অভিযুক্ত আল আমিনকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয়।
আহত আলিহীমের স্ত্রী মরিয়ম বেগম অভিযোগ করে বলেন, ‘আমি আমার স্বামী আলিহিমের প্রথম স্ত্রী। আমার স্বামীর দ্বিতীয় স্ত্রী আকলিমা খাতুন অনত্য থাকে। সকালে আকলিমার ছেলে আলামিন পারিবারিক সামান্য একটি বিষয় নিয়ে আলিহিমকে গালামন্দ করতে থাকে। এরই একপর্যায়ে আলামিন বাঁশ দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করে। এতে তিনি রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে গেলে আমি ও আল আমিনের স্ত্রী ঠেকাতে গেলে আল আমিন আমাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে। পরে প্রতিবেশীরা আমাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান বলেন, ‘সদর থানাধীন আলুকদিয়া ইউনিয়নের চকপাড়ায় ছেলের বাঁশের আঘাতে পিতাসহ পরিবারের তিনসদস্য আহত হওয়ার একটি ঘটনা সম্পর্কে সকালেই জানতে পারি। পরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক আল আমিনকে আটক করা হয়। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ হয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানূগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’