চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ২২ মে ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাংলাদেশ কি ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছে?

সমীকরণ প্রতিবেদন
মে ২২, ২০২১ ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন:
স্বাধীনতার পরপরই ১৯৭২ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ইসরায়েল বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়ার প্রস্তাব করেছিল। তবে তখন স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন সরকার লিখিতভাবে ইসরায়েলের সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। বাংলাদেশ মনে করে, এখানে ইসরায়েলের অবস্থান ডাবল স্ট্যান্ডার্ড। তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে স্বীকৃতি দেয়; কিন্তু ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতা স্বীকার করে না। বঙ্গবন্ধু তা মেনে নেননি। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী খোন্দকার মোশতাক আহমেদ ইসরায়েলকে জানিয়ে দেন, বাংলাদেশ ইসরায়েলের স্বীকৃতি গ্রহণ করবে না। তাই স্বাধীনতার ৫০ বছরেও বাংলাদেশের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের বিতর্কিত দেশ ইসরায়েলের কোনো কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হয়নি। এমনকি দেশটির সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ- সব ধরনের বাণিজ্যিক সম্পর্কে নিষেধাজ্ঞা আছে। বাংলাদেশের পাসপোর্টধারী কেউ ইসরায়েল ভ্রমণ করতে পারেন না।
তবে সম্প্রতি শোনা যাচ্ছে, ইসরায়েলের সঙ্গে এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হচ্ছে। ফলে এখন থেকে বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীদের ইসরায়েল ভ্রমণের সুযোগ তৈরি হচ্ছে। স্বাধীনতার পর থেকে বাংলাদেশের ইস্যুকৃত পাসপোর্টের প্রথম পৃষ্ঠায় লেখা ছিল ‘দিস পাসপোর্ট ইজ ভ্যালিড ফর অল কান্ট্রিজ অব দ্য ওয়ার্ল্ড এক্সসেপ্ট ইসরায়েল’ (বিশ্বের যেকোনো দেশের জন্য এই পাসপোর্ট কার্যকর থাকবে, শুধু ইসরায়েল ছাড়া)। অর্থাৎ বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী কোনো ব্যক্তি শুধু ইসরায়েল ব্যতিত বিশ্বের যেকোনো দেশ ভ্রমণ করতে পারবেন। যদিও বর্তমানে নতুন ইস্যু করা ও মেয়াদোত্তীর্ণ পাসপোর্ট নবায়নের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার বিষয়টি দেখা যাচ্ছে।
সম্প্রতি পাসপোর্ট গ্রহণ করেছেন এমন অনেকে জানান, গত ঈদুল ফিতরের পর থেকে ইস্যু করা নতুন ই-পাসপোর্টে লেখা রয়েছে ‘দিস পাসপোর্ট ইজ ভ্যালিড ফর অল কান্ট্রিজ অব দ্য ওয়ার্ল্ড’। এখানে ‘এক্সসেপ্ট ইসরায়েল’ শব্দ দুটি নেই। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেকে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। নতুন পাসপোর্ট পাওয়া আরিফ হাসান (ছদ্মনাম) জানান, সম্প্রতি তিনি ও তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে তিনজনের ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করা হয়েছিল। এর মধ্যে ঈদুল ফিতরের আগে সে নিজের পাসপোর্ট পান। আর ঈদের পরে তার মা ও ছোট ভাই পাসপোর্ট পেয়েছেন। তার পাসপোর্ট আগের মতোই থাকলেও ঈদের পরে পাওয়া পাসপোর্ট দুটিতে ‘এক্সসেপ্ট ইসরায়েল’ শব্দ দুটি লেখা নেই। তিনি এ বিষয়ে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গেও কথা বলেছেন। তিনি জানিয়েছেন, পাসপোর্টে ‘এক্সসেপ্ট ইসরায়েল’ না থাকলেও কোনো সমস্যা হবে না।
এদিকে পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েল ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি তুলে নেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি বলেন, ‘ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক আগে যেরকম ছিল এখনও তা-ই থাকবে। তবে আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখতে আমরা পাসপোর্টে এক্সসেপ্ট ইসরায়েল শব্দ দুটি তুলে দিচ্ছি।’
মুসলিম বিশ্বের দেশ হওয়ায় বাংলাদেশ অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশনের (ওআইসি) সদস্য রাষ্ট্র। আর মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন ইস্যুটি এখনও অমীমাংসিত রয়েছে। তাই স্বাধীনতার পর থেকেই ফিলিস্তিনের পক্ষ নেয় বাংলাদেশ। এজন্য ইসরায়েলের সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই। এতে ইসরায়েলের সঙ্গে কোনো প্রকার বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কও নেই। দেশটির সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যও করতে পারেন না বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। যদিও ফিলিস্তিনে সাম্প্রতিক ইসরায়েলি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি ফিলিস্তিনের পক্ষে বাংলাদেশ তাদের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশ যেহেতু ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়নি, তাই পাসপোর্টে এ কথাটি লেখা হয়। তবে পাসপোর্ট ইস্যু করা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিষয়। কাজেই এক্সসেপ্ট ইসরায়েল শব্দ দুটি কেন তুলে দেয়া হলো এ বিষয়ে তারাই ভালো বলতে পারবে।’ তবে বাংলাদেশ এখনও ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়নি বলে তিনি নিশ্চিত করেন।
শুরু থেকেই বাংলাদেশ ফিলিস্তিনিদের স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে দৃঢ় সমর্থন দিয়ে আসছিল। ১৯৭৩ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধে ফিলিস্তিনকে সমর্থন করে মেডিকেল টিম ও ত্রাণ সহায়তা পাঠিয়ে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে সহায়তা করে বাংলাদেশ। ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ একটি স্মারক ডাকটিকিট উন্মোচন করে, যেখানে একজন ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী যোদ্ধাকে দেখা যায়, যার পেছনে রয়েছে কাঁটাতারে ঘেরা আল-আকসা মসজিদ। সেখানে আরবি ও ইংরেজিতে ফিলিস্তিনি যোদ্ধার সাহসিকতার কথা বলা হয়েছে। সূত্র- আমার সংবাদ

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।