চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ২৩ আগস্ট ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাংলাদেশে প্রেমিকা রেখেই ফিরল দুই ভারতীয়

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ২৩, ২০১৬ ২:৩৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ ডেস্ক: এক বছর আগে প্রেমিকাদের নিয়ে নিজ দেশ ছেড়ে পালিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলেন দুই ভারতীয় কিশোর। কিন্তু দেশ ছেড়েও শেষ রক্ষা হয়নি তাদের। আইনের ম্যারপ্যাচে দীর্ঘ এক বছর কাটিয়েছেন বাংলাদেশের কারাগারে। অবশেষে প্রেমিকাদের বাংলাদেশে রেখেই নিজ দেশে ফিরে গেছেন ওই দুই কিশোর। সোমবার বিকালে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশ ‘ট্রাভেল পারমিটের’ মাধ্যমে ভারতের পেট্রাপোল পুলিশের কাছে তাদের হস্তান্তর করেন। এ দুই ভারতীয় রোমিও হচ্ছেন- ভারতের উত্তর ২৪ পরগনার জেলার হাবড়া এলাকার শালুয়া গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে আমিনুল ইসলাম (১৫) ও একই এলাকার ক্ষিতিশ বিশ্বাসের ছেলে অপরুপ বিশ্বাস (১৭)।

যশোর কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রের কাউন্সিলর মুশফিকুর রহমান জানান, দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়া শেষে সোমবার বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি রমাকান্ত গুপ্ত যশোর সংশোধনী কেন্দ্র থেকে নিজ জিম্মায় নেন তাদের।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ পেট্রাপোল পুলিশের হাতে হস্তান্তর করার পর তাদেরকে অভিভাবকদের হাতে তুলে দেন সে দেশের পুলিশ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি রমাকান্ত গুপ্তা, সেকেন্ড সেক্রেটারি মানস স্মৃতি, জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা, সংশোধনী কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক শাহবুদ্দিন আহমেদ, রাইটস যশোরের নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক প্রমুখ।

রাইটস যশোরের নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক জানান, গত বছর ২৪ আগস্ট এ দুই কিশোর ও দুই কিশোরী পালিয়ে সীমান্তের অবৈধ পথে বাংলাদেশে আসে। পরে তারা খুলনার সোনাডাঙ্গা থানা পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।

অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে পুলিশ তাদেরকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করে। আদালত দুই কিশোরকে যশোর কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে ও কিশোরী দুইজনকে গাজীপুরের কিশোরী সংশোধনী কেন্দ্রে পাঠায়। আইনি প্রক্রিয়া শেষ না হওয়ায় দুই কিশোরী দেশে ফিরতে পারেনি।

বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশনের ওসি (তদন্ত) মোমিনুল হক ভারতীয় দুই কিশোর দেশে ফেরত যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।