চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ১২ জানুয়ারি ২০১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্য নিয়েই এই উন্নয়ন মেলার সূচনা

সমীকরণ প্রতিবেদন
জানুয়ারি ১২, ২০১৮ ১০:৩৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ঝিনাইদহসহ সারাদেশে তিনদিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলা ভিডিও কনফারেন্সে উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
ডেস্ক রিপোর্ট: তৃতীয়বারের মতো উন্নয়নের চিত্র জনগণের কাছে তুলে ধরতে শুরু হলো উন্নয়ন মেলা-২০১৮। উন্নয়নের রোল মডেল, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ স্লোগানে দেশব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল সকাল ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সারাদেশের ন্যায় চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ সারাদেশে জাকজমকপূর্ণ আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভার মধ্যে দিয়ে উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। নান্দনিক সৌন্দর্যে সাজানো হয়েছে মেলার স্টলগুলো।


আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছেন, সারা দেশের সাথে একযোগে চুয়াডাঙ্গায় জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে তিন দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ’র উদ্বোধন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার সময় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর হতে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে টাউন ফুটবল মাঠ মেলা প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়। এ সময় ফিতা কেটে, বেলুন উড়িয়ে মেলা ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কারিগরী ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ ঢাকা’র সচিব আলমগীর। “উন্নয়নের রোল মডেল শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এ প্রতিপাদ্যে তৃতীয় বারের মতো শুরু হওয়া তিনদিন ব্যাপী এ মেলা গতকাল সাড়ে ১১টার পর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন ঘোষনা করেন বাংলাদেশে সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরী ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আলমগীর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদীন খোকন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশাদুল হক বিশ্বাস। আলোচনা অনুষ্ঠানটি ছন্দময়ী সঞ্চালনায় সাজিয়ে তোলেন চুয়াডাঙ্গা সরকারী কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুন্সি আবু সাইফ। এসময় অতিথির আসনে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আব্দুর রাজ্জাকসহ বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারীসহ স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীরা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরী ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আলমগীর বলেন, দেশ এক সময় পরধিন ছিলো। স্বাধীনতা কি? তা আমরা জানতামনা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হাজার বছরের পরাধীনতার হাত থেকে এ দেশকে মুক্ত করে যখন উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিক তখনি তাকে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। এর পর বাংলাদেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হয়। পরে অনেকটা পথ পাড়ি দিয়ে আবারও বর্তমান সরকার এ দেশের উন্নয়ন ভাবনা নিয়ে কাজ শুরু করে। তবে এ উন্নয়ন শুধু একা সরকার বা সরকারের কর্মকর্তা কর্মচারীদের দ্বারা সম্ভব নয়। এ জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যেগে বার বার এ ধরনের উন্নয়ন মেলা করা হচ্ছে। যাতে সরকার জনগনের জন্য কি করছে বা কি করা দরকার তাছাড়া স্থানীয় ভাবে কি কি হচ্ছে সেগুলো যাতে এ মেলা থেকেও উপলব্ধি করা যায়। উন্নয়ন অব্যাহত রাখার লক্ষ্য নিয়েই এই উন্নয়ন মেলার সূচনা। শেষে তিনি জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদসহ অতিথিদের সাথে মেলা প্রাঙ্গনে বেশ কয়েকটি স্টল ঘুরে দেখেন সেইসাথে তাদের খোজ খবর নেন। চুয়াডাঙ্গায় এবারের মেলায় ৯৪টি স্টল করা হয়েছে। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে এ সকল স্টলে বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহনের মাধ্যমে তাদের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরেছে। ১১ জানুয়ারী শুরু হওয়া এ মেলা চলবে আগামী ১৩ জানুয়ারী শনিবার পর্যন্ত। এ ছাড়াও মেলা পরবর্তী বিভিন্ন আঙ্গীকে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সপ্তাহ ব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অব্যাহত থাকবে। সন্ধ্যার পর চুয়াডাঙ্গা জেলা শিল্পকলা একাডেমী’র আয়োজনে তাদের নিজস্ব শিল্পীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছড়া নারায়ন বন্দোপাধ্যায় এর রচনা ও আব্দুস ছালামের পরিচালনায় নাটক ভাড়াটে মঞ্চায়ন করা হয়।


আলমডাঙ্গা অফিস জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৩দিন ব্যাপি উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রধান অতিথি বীর মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন। গতকাল সকাল ১০টার সময় উদ্বোধন শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামিম আরা খাতুন, থানা অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান, উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাসুদ রানা, উপজেলা কৃষি অফিসার হাসিবুল হাসান, সোনালী ব্যাংকে ব্যবস্থাপক শামসুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক ডা. সাহাবুদ্দিন শাবু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ শেখ নুর মোহাম্মদ জকু, বীর মুক্তিযোদ্ধা মঈন উদ্দিন আহামেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মজিবর রহমান, প্রেসক্লাব সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মন্টু, ইউপি চেয়ারম্যান দারুস সালাম, আমিরুল ইসলাম মন্টু, নুরুল ইসলাম নুরু, মিনাজ উদ্দিন আহমেদ। সমাজ সেবা অফিসার আবু তালেবের উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন আলমডাঙ্গা বহুমুখী মডেল পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম খান, মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনিছুজ্জামান। উন্নয়ন মেলায় ৩৯টি স্টল মেলার সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করেছে। এই মেলা আগামী সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে সমাপ্তি ঘোষনা করা হবে।
দামুড়হুদা প্রতিনিধি জানিয়েছেন,“উন্নয়নের রোল মডেল শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে দামুড়হুদায় ৩ দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার সময় দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদ চত্বরে সারা দেশের ন্যায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঢাকা থেকে এই মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ থেকে উন্নয়ন মেলার বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে বর্ণাঢ্য র‌্যালীতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে র‌্যালীতে অংশ নেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি হাজী আলী আজগার টগর। র‌্যালীতে উপজেলার সকল অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারি, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মেলার উদ্বোধন ঘোষনা করার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রফিকুল হাসানের সভাপতিত্বে মেলা প্রাঙ্গনে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি হাজী আলী আজগার টগর। প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি টগর বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার দেশে এমন কোন সেক্টর নেই সেখানে উন্নয়ন করেননি। আজ দেশের প্রতিটি সেক্টরে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। যে আমেরিকা আমাদের দেশকে তলা বিহিন ঝুড়ি বলতো, সেই আমেরিকাও আজ আমাদের প্রশংসা করতে বাধ্য হচ্ছে। বিশ্ব ব্যাংকের টাকা ছাড়া পদ্মা সেতু করার কথা কেউ কল্পনাও করতে পারেনি। সেই পদ্মা সেতু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব ব্যাংকের কাছে মাথা নত না করে নিজের দেশের টাকায় তৈরী করছে। এছাড়া বিদ্যুৎ, রাস্তা ঘাট, স্কুল কলেজ, মাদ্রাসা, কল কারখানা সমস্ত কিছুর উন্নয়ন হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, বিএনপি সরকারের আমলে কৃষক সার তেলের জন্য মরতে হয়েছে। সারের তেলের (ডিজেল) অভাবে আমার দেশের কৃষকরা ঠিকমত চাষ করতে পারতো না। আজ আর কৃষককে সার তেলের জন্য কোথাও ছুটতে হয়না, খুজতে হয়না। এখন সার তেল কৃষককে খোজে। আমি আমার নির্বাচনী এলাকায় প্রায় আড়াইশো কিলোমিটার রাস্তা পাকা করেছি। স্কুল কলেজের নতুন নতুন ভবন, ব্রীজ, কালভাট নির্মাণ করেছি। যা ইতি পূর্বের কোন সরকারের আমলে সম্ভব হয়নি। এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এই উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে আগামী নির্বাচনে আপনারা আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও এদেশের প্রধানমন্ত্রী করবেন। উন্নয়ন সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছালমা জাহান পারুল, দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকরাম হোসেন, উপজেলা আ.লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু, দর্শনা পৌর আ.লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকারিয়া আলম, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি হাজী আলী আজগার টগর অন্যান্য অতিথিদের সাথে নিয়ে মেলা প্রাঙ্গনের প্রতিটি ষ্টল ঘুরে দেখেন।


জীবননগর অফিস জানিয়েছে, “উন্নয়নের রোল মডেল শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জীবননগরে তিন দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার সময় জীবননগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম রেজার সভাপতিত্বে জীবননগর থানা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে তিন দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেন জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জীবননগর পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসার মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রফিকুল ইসলাম, সমাজ সেবা অফিসার আফাজ উদ্দিন, কেডিকে ইউনিয়নের প্রশাসক মতেহার হোসেনসহ উপজেলা পরিষদের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী, সাংবাদিক ও সুধীবৃন্দ। উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথিসহ সকল অতিথিবৃন্দ উন্নয়ন মেলার প্রতিটি স্টল পরিদর্শন করেন।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, ‘উন্নয়নের রোল মডেল, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যে সারা দেশের ন্যায় মেহেরপুরে উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে তিনদিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়। বিমান ও পর্যটন মন্ত্রানালয়ের সচিব এস.এম গোলাম ফারুক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বেলুন ও কবুতর উড়িয়ে এ মেলার উদ্বোধন করেন। জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ গোলাম রসুল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শেখ ফরিদ আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আশকার আলী, সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম। মেলায় জেলার বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের ৭৭টি স্টল স্থান পেয়েছে। এর আগে উন্নয়ন মেলা উপলক্ষে বিমান ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ের সচিব এস.এম গোলাম ফারুকের নেতৃত্বে একটি বর্ণাাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়-এর সামনে থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালীতে জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম রসুল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শেখ ফরিদ আহামেদ, পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম.এ খালেক, উপদেষ্টা আশকার আলী, সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক কে.এম আতাউল হাকিম লাল মিয়া, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শামীম আরা হীরাসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ র‌্যালীতে অংশগ্রহন করেন। এদিকে এ দিন সন্ধ্যা রাতে উন্নয়ন মেলা উপলক্ষে সাংস্কুতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
মুজিবনগর অফিস জানিয়েছে, মুজিবনগরে উন্নয়ন মেলা উপলক্ষে মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে র‌্যালীটি বের হয়। মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা আক্তারের নেতৃত্বে র‌্যালীতে অংশগ্রহন করেন মুজিবনগর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান, কৃষি অফিসার মুহা. মোফাকখারুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন, মফিজুর রহমান, তৈফিকুল বারী বকুল, বাগোয়ান ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামসহ উপজেলার সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণি পেশার মানুষ। পরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে উন্নয়ন মেলার উদ্ভোধন করা হয়।
গাংনী অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুরের গাংনীতে তিনদিন ব্যাপি উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালীর আয়োজন করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে এ মেলার উদ্বোধন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পালের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মকবুল হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন, গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহিদুজামান খোকন, জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এ্যাড. একেএম শফিকুল আলম, গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি দেলোয়ার হোসেন ও গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, নারী নেত্রী নুরজাহান বেগম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আফজাল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম শাহ, ইয়াছিন রেজাসহ সরকারী বেসরকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ। মেলায় বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের স্টলে স্থানীয় দর্শকদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা যায়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।