চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ২৬ নভেম্বর ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বঙ্গবন্ধুর ভাষণ বাঙালি জাতিসহ সারাবিশ্বের শোষিত-বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের দর্শন; নিপীড়িত মানুষের অবলম্বন

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ২৬, ২০১৭ ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ‘বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যের’ স্বীকৃতি লাভে চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে আনন্দ শোভাযাত্রা : সমাবেশে বক্তারা

সমীকরণ ডেস্ক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর ‘মেমোরি অব দ্যা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিষ্টার’-এর অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে ‘বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যের’ স্বীকৃতি লাভ করেছে। এই অসামান্য অর্জন উপলক্ষে গতকাল ২৫ নভেম্বর শনিবার একযোগে সারাদেশেরন্যায় আনন্দ শোভাযাত্রা, মিছিল, র‌্যালীসহ জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে আনন্দ উৎসবে মেতে ওঠে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহ জেলাবাসী।
এ সময় বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালি জাতিসহ সারাবিশ্বের শোষিত-বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের দর্শন। বিশ্বের সব নিপীড়িত মানুষের অবলম্বন এবং অনুপ্রেরণা। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের প্রতিটি বাক্য এ দেশের মুক্তিকামী মানুষের জন্য অনুপ্রেরণার উৎস ছিল। ভাষণটির আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাওয়ার মধ্যদিয়ে এটাই প্রমাণ হয়েছে যে, এটি শুধু একটি ভাষণই না, এটি বাঙালি জাতিসহ সারাবিশ্বের শোষিত-বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের দর্শন। বিশ্বের সব নিপীড়িত মানুষের অবলম্বন এবং অনুপ্রেরণা।
আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গা ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে (চাঁদমারী মাঠ) বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তর্বক অর্পণ শেষে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বর্ণিল আনন্দ শোভাযাত্রাটি সকাল ১০টায় স্থানীয় ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে শুরু হয়ে কোর্ট মোড়, শহীদ হাসান চত্ত্বর, বড় বাজারসহ শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে টাউন ফুটবল মাঠে গিয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রার নেতৃত্বদেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ। এতে পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান-পিপিএম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহা. কলিমুল্লাহ, পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমাদ চৌধুরী জিপু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আব্দুর রাজ্জাক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খোন্দকার ফরহাদ আহমেদ, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারী, সিভিল সার্জন ডা. মো. খায়রুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর কামরুজ্জামান, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ নওরোজ মোহাম্মদ সাঈদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এড. মুহাঃ শামসুজ্জোহা, জাতীয় মহিলা সংস্থা চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার চেয়ারম্যান নাবিলা রুকছানা ছন্দাসহ জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি-স্বায়ত্ব শাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সাংস্কৃতিক কর্মী, সামাজিক-সেচ্ছাসেবী সংগঠন, শিক্ষক-চিকিৎসক, স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, স্কাউটস সদস্য, রোভার-বিএনসিসি, আনসার-পুলিশ, নারী সংগঠন, সামাজিক সংগঠনের অন্তত ৫ হাজার সদস্য অংশ নেন। আনন্দ শোভাযাত্রার সম্মুখ ভাবে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ ও যুগ্ম সম্পাদক জাকির হুসাইন জ্যাকীর তত্বাবধানে বিশালাকার জাতীয় পতাকা প্রদর্শন করা হয়। এ ছাড়াও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিকের নেতৃত্বে জাতীয় ও সাংগঠনিক পতাকা নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেয় নেতাকর্মীরা। আনন্দ শোভাযাত্রা শেষে টাউন ফুটবল মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ ও সাংবাদিক শাহ আলম সনি রচিত ‘কবির নামটি বঙ্গবন্ধু কবিতাটি তাঁর ভাষণ’ শীর্ষক থিম সং শোনানো হয়। এরপর গ্রামীণ লাঠিখেলা উপভোগের মধ্যে দিয়ে ১ম পর্বের আয়োজন শেষ হয়। দ্বিতীয় পর্বে বেলা ৩টায় টাউন ফুটবল মাঠে প্রীতি ফুটবল ম্যাচে অংশ নেয় শতাধিক খেলোয়াড়। সন্ধ্যায় আতশবাঁজি প্রদর্শনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কণ্ঠশিল্পী শান্ত আহম্মেদের সঞ্চালনায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি, সরকারি শিশু পরিবার, অরিন্দম সাংস্কৃতিক সংগঠন, উদীচি-চুয়াডাঙ্গাসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পীরা গান ও নৃত্য পরিবেশন করে।
এদিকে, চুয়াডাঙ্গা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা শহরের র‌্যালিতে অংশ নেয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজের চীফ ইন্সট্রাক্টর (ইলেকট্রিক্যাল) প্রকৌশলী মো. ইমরুল কাদির, ইন্সট্রাকটর (ফার্ম) প্রকৌশলী মো. হালিম মাহমুদ ভূইয়া, ইন্সট্রাকটর (ফিজিক্স) মো. রিপন আলী, ক্রাফট ইন্সট্রাক্টর (ফার্ম) মো. আবদুর রহমান, ক্রাফট ইন্সট্রাকটর (ওয়েল্ডিং) মো. তহিদুল ইসলাম, উচ্চমান সহকারী মো. হাফিজুর রহমানসহ অত্র প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।
অপরদিকে, জয় বিজয় মহিলা সঞ্চয় ও ঋণ দান সমবায় সমিতির আয়োজনে একটি র‌্যালি বের হয়। এসময় চুয়াডাঙ্গার ফার্মপাড়া রেল কলোনীর জয় বিজয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পক্ষেও একটি র‌্যালি বের হয়ে জেলা প্রশাসনের আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করে। উপস্থিত ছিলেন জয় বিজয় মহিলা সঞ্চয় ও ঋণ দান সমবায় সমিতি লিমিটেডের পরিচালক আফরোজা পারভীনসহ সমিতির সদস্য বৃন্দ এবং বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা।
আলমডাঙ্গা অফিস জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর রেজিষ্টার-এ অন্তর্ভূক্তির মাধ্যেমে বিশ^ প্রামান্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভের অসামান্য অর্জনকে উদযাপন উপলক্ষ্যে আনন্দ শোভাযাত্রা করা হয়। সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তর, আলমডাঙ্গা পৌরসভা, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস, ওজিপাডিকো, পল্লী বিদ্যুৎ অফিস, আলমডাঙ্গা ডিগ্রী কলেজ, মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, এরশাদপুর একাডেমী, এম.সবেদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আলইকরা ক্যাডেট একাডেমী, মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান আনন্দ শোভা যাত্রায় অংশ নেয়। পরে উপজেলা চত্ত্বরের মঞ্চে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নান। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুণ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামিম আরা খাতুন, কৃষি অফিসার একেএম হাসিবুল হাসান, অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক ডা. শাহাবুদ্দিন শাবু, প্রেসক্লাব সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মন্টু। অনুষ্ঠানটি সার্বিকভাবে পরিচালনা করেন উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার আবু তালেব। সভা শেষে আলমডাঙ্গা কলাকেন্দ্রের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হয়। পরিচালনায় ছিলেন কলাকেন্দ্রের সভাপতি ইকবাল হোসেন ও সম্পাদক রেবা সাহা।
দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কো মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে অর্ন্তভুক্তির মাধ্যমে বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভের অসামান্য অর্জণ উপলক্ষে দামুড়হুায় আনন্দ শোভাযাত্রা, রচনা প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও চলচিত্র প্রদর্শণ করা হয়। গতকাল শনিবার সকাল ১০ টায় দামুড়হুাদা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এক বর্নাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান মাও আজিজুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রফিকুল হাসান, দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আকরাম হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু, দামুড়হুদা আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের প্রিন্সিপাল কামাল উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, আজিজুল হক আজিজ, খলিলুর রহমান ভুট্টু, মোহাম্মদ আলী শাহ মিন্টু, শরীফুল আলম মিল্টন, শাহ মোহা: এনামুল করীম ইনু, শফিকুল ইসলাম, আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজ, দামুড়হুদা পাইলট গালর্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ, দামুড়হুদা পাইলট হাইস্কুল, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, দামুড়হুদা মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়, কানন বিদ্যাপীঠ, হাউলী প্রাথমিক বিদ্যালয়, শমী বালক প্রাথমিক বিদ্যালয়, দেউলী প্রাথমিক বিদ্যালয়, নাপিতখালী প্রাথমিক বিদ্যালয়, শমী বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়, দামুড়হুা ডিএস দাখিল মাদরাসা, ব্র্যাক মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ উপজেলার সকল ফতরের প্রধান ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা অডিটোরিয়ামে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এরপর রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শেষে প্রামান্য চলচিত্র প্রদর্শণ করা হয়। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন নাজির হামিদুল ইসলাম। সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (সিএ) জহিরুল ইসলাম, সার্টিফিকেট সহকারী জিহান আলী ও উপজেলা আইসিটি টেকনিশিয়ান খাইরুল কবির দিনার।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর মেমোরি অব দ্য ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতিতে দর্শনায় বর্নাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় দর্শনা সরকারি কলেজের উদ্যোগে বর্নাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১০টায় কলেজ চত্বর থেকে বর্নাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে দর্শনা শহর প্রদক্ষিন করে কলেজ চত্বরে এসে শেষ হয়। এরপর কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপধ্যক্ষ আজিজুর রহমান, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ পারভেজ, সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন তপু। এছাড়া ছাত্রলীগের প্রভাত আলম, নোমান, ফারুক হোসেন, অপু প্রমূখ। অপরদিকে দর্শনা ডিএস মাদ্রসা ও কেরু উচ্চ বিদ্যালয়ে উদ্যোগে বর্নাঢ্য র‌্যালী করা হয়।
জীবননগর অফিস জানিয়েছে, জীবননগরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭মার্চের ভাষণ আন্তজাতিক স্বীকৃতি পাওয়ায় জীবননগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আনন্দ শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম রেজার নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে উপজেলা পরিষদের বট তলায় এসে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু.মো.আ.লতিফ অমল, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, জীবননগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকী, গোকুলনগর বিএডিসি খামারের যুগ্ম পরিচালক আ.সামাদ খাঁন, জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ এনামুল হক, বীরমুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডার সামসুল আলম সাত্তার, সাবেক কমান্ডার নিজাম উদ্দিন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. আনোয়ার হোসেন, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান তাহাজ্জদ মির্জা। এছাড়াও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে একটি সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানে মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানটি সমাপ্ত হয়। অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচালনা করেন ইউআরসি হাবিবুর রহমান।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৭ই মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর মেমরি অব দ্যা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার এ অর্ন্তভুক্তির মাধ্যমে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভ করায় মেহেরপুরে আনন্দ উৎসব করেছে জেলা প্রশাসন। এ উপলক্ষে শনিবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসনিক কার্যালয় চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ’র নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে গিয়ে শেষ হয়। এসময় র‌্যালিতে মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম রসুল, স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক খায়রুল হাসান, পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন, জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক এ্যাড. মিয়াজান আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল হালিম, আব্দুস সালাম বাবলু বিশ্বাস, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা লাভলী ইয়াসমিন, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শহিদুল ইসলাম পেরেশান, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বারিকুল ইসলাম লিজন, সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানাসহ সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারী, রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ শোভাযাত্রায় অংশ নেয়।
আমঝুপি প্রতিনিধি জানিয়েছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর মেমরি অব দ্যা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার এ অন্তভুক্তি মাধ্যমে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভ করায় মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আয়োজনে আনন্দ র‌্যালি ও আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার রেজাউল করিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ৬নং এলাকা পরিচালক সাংবাদিক আলামিন হোসেন, আয়েসা সিদ্দিকী সরকার (এমএএস), মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম ফাহিম ফয়সাল (পড়স), সিদ্দিকুর রহমান, স¤্রাট, মাহাবুবুর রহমান, সুনিল কুমার বাবু, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।
বারাদী প্রতিনিধি জানিয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কো ঐতিহাসিক দলিল হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার মোমিনপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আলোচনা সভা, রচনা লিখন ও কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গতকাল শনিবার সকাল ১০ টায় মোমিনপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় হলরুমে জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে এ আয়োজন করা হয়। সহকারী শিক্ষক তৌহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রধান শিক্ষক মীর মাহবুবুর রহমান, সহকারী শিক্ষক ইউনুচ আলী, দশম শ্রেণীর আমানুল্লাহ, নবম শ্রেণীর আবু সাইদ ও আফসানা মিমি। পরে রচনা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান ও কামাল হোসেন।
মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছে, জাতিসংঘ শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা (ইউনেস্কো) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের দলিল ‘মেমোরি অব দ্যা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিষ্ট্রার’ এ অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে ‘বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যে’র স্বীকৃতি লাভ করায় মুজিবনগরে আনন্দ শোভাযাত্রা ও আনন্দ র‌্যালী বের করা হয়। শনিবার সকালে মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ আনন্দ র‌্যালী বের করা হয়। মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা আক্তার এর নেতৃত্বে শোভাযাত্রা ও র‌্যালীটি মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসনের কার্যালয় থেকে শুরু করে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মুজিবনগর কমপ্লেক্স এ অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পন করেন মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড মুজিবনগর থানা, উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ, উপজেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজ, সাংস্কৃতিক সংগঠন, এনজিও প্রতিষ্ঠান, সেচ্ছাসেবি সংগঠনসহ স্থানীয় জনসাধারন, পরে মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয় এবং সেখানে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবার এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কমনা করে দোয়া ও এক মিনিট নিরবতা পালন এবং স্মৃতিসৌধে সংলগ্ন অবস্থিত শেখ হাসিনা মঞ্চে সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। র‌্যালীতে ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা আক্তার, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুর জলিল, মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মহাজনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমাম হোসেন মিলু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বাগোয়ান ইউপি চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেন, মোনাখালি ইউপি চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান, দারিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুল বারি বকুল, মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা কর্মচারি, ইউপি সদস্য, এনজিও ও সেচ্ছাসেবি সংগঠনের কর্মকর্তা কর্মচারি, বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।
গাংনী অফিস জানিয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৭ই মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর মেমরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার এ অর্ন্তভুক্তি মাধ্যমে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভ করায় মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আনন্দ শোভাযাত্রা, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় গাংনী উপজেলা চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে উপজেলা চত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে একই স্থানে শেষ হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর-২ গাংনী আসনের সংসদ সদস্য মকবুল হোসেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণপদ পালের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা আক্তার বানু, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম.এ খালেক, আইনজীবী সমিতির সভাপতি একেএম শফিকুল আলম, গাংনী পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম, গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি দেলোয়ার হোসেন, গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আনোয়ার হোসেন, গাংনীর বিশিষ্ট সংগঠক সিরাজুুল ইসলাম, গাংনী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু ও মেহেরপুর সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক ভিপি ও জিএস ওয়াসিম সাজ্জাদ লিখনসহ সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারী, রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। সন্ধ্যায় সাস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্থানীয় বিভিন্ন শিল্পীদের পাশাপাশি কয়েকটি দেশত্ববোাধক গান পরিবেশন করেন জেলা কৃষক লীগের নেতা ও সাবেক ছাত্রনেতা ওয়াসিম সাজ্জাদ লিখন।
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছে, ঝিনাইদহে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষন ইউনেস্কোর বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি উদযাপন উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে শহরের চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অপর্ণ করে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সেখান থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে উজির আলী স্কুল মাঠে এসে শেষ হয়। পরে উজির আলী স্কুল মাঠে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঝিনাইদহ-২ আসনের সংসদ সদস্য তাহজীব আলম সিদ্দিকী সমি, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কনক কান্তি দাস, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু। জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, সরকারি-কর্মকর্তা-কর্মচারি, শিশু-কিশোর, সাংস্কৃতিক কর্মী ও সংগঠক, পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সুসজ্জিত বাদক দল, সুসজ্জিত মহিশের গাড়ি, ঘোড়ার গাড়ি এবং সর্বস্তরের জনতা অংশগ্রহণ করেন। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।