ফেন্সিডিলসহ প্রায় ২৭ লাখ টাকার মালামাল উদ্ধার

864

দামুড়হুদার বিভিন্ন স্থানে বিজিবির চোরাচালান বিরোধী পৃথক অভিযান
নিজস্ব প্রতিবেদক: দামুড়হুদা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে চোরাচালান বিরোধী অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ফেনসিডিল, ইমিটেশন সামগ্রী, বেবি ফ্রগ, মেয়েদের জামার লেজ ডিজাইন ও ইলেকট্রিক কেকার উদ্ধার করেছে। গত বৃহস্পতিবার পৃথক অভিযান চালিয়ে এসকল চোরাচালানি আটক করা হয়।
চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক মো. ইমাম হাসান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, গত বৃহস্পতিবার বেলা আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের দর্শনা বিওপির টহল কমান্ডার সুবেদার মো. আব্দুল বারেক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে দামুড়হুদা থানার অন্তর্গত শ্যামপুর থেকে ৪৭ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার করে। যার আনুমানিক মূল্য ১৮ হাজার ৮শ’ টাকা। উক্ত ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে দামুড়হুদা থানার জয়নগর গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে ফয়েজ আলীকে (৩৮) পলাতক আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়।
এদিকে, একইদিন বেলা আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের দর্শনা আইসিপির টহল কমান্ডার হাবিলদার মো. শওকত আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে জীবননগর থানার অন্তর্গত উথলী বাজার থেকে ২,২২৯টি ভারতীয় বিভিন্ন প্রকার ইমিটেশন সামগ্রী, ১৩টি বেবি ফ্রগ এবং ১৪০টি মেয়েদের জামার লেজ ডিজাইন উদ্ধার করে। যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ ২৫ হাজার ৫শ’ ৫০ টাকা।


অপরদিকে, বৃহস্পতিবার দুপুর আনুমানিক দেড়টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের দর্শনা আইসিপির টহল কমান্ডার হাবিলদার মো. শওকত আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে দামুড়হুদা থানার অন্তর্গত ডুগডুগি বাজার থেকে ৩২,২০০টি ভারতীয় ইলেকট্রিক কেকার বাজি উদ্ধার করে। যার আনুমানিক মূল্য ২০ লাখ ৯৩ হাজার টাকা।
উদ্ধারকৃত ৪৭ বোতল ফেন্সিডিল, ২,২২৯টি বিভিন্ন প্রকার ইমিটেশন সামগ্রী, ১৩টি বেবি ফ্রগ, ১৪০টি মেয়েদের জামার লেজ ডিজাইন এবং ৩২,২০০টি ইলেকট্রিক কেকার বাজির সর্বমোট মূল্য ২৬ লাখ ৩৭ হাজার ৩শ’ ৫০ টাকা। উদ্ধারকৃত ফেন্সিডিল ও মালামাল কাষ্টমস/মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসে জমা করা হয়েছে।