প্লাস্টিকের যে ব্যাগ খেয়েও ফেলা যায়!

380

প্রযুক্তি ডেস্ক: পলিথিনের মতো দেখতে ব্যাগ পানিতে গুলিয়ে খেয়ে ফেলা যায়! ভেবেছেন কখনো? হ্যাঁ, পরিবেশের জন্য খুব ক্ষতিকর প্লস্টিকের ব্যাগের বিকল্প হিসেবে এমনই এক পরিবেশবান্ধব ব্যাগ উদ্ভাবন করেছেন চিলির দুই গবেষক রবার্তো অ্যাসটেটে ও ক্রিশ্চিয়ান অলিভারেস। পরিবেশবান্ধব ডিটারজেন্ট তৈরি করার পরীক্ষা চালাতে গিয়েই তারা এই নতুন ব্যাগ উদ্ভাবন করেছেন। এক্ষেত্রে পিভিএ নামের একটি পলিভিনাইল অ্যালকোহল ব্যবহার করেছেন তারা, যা পানিতে গুলে যায়। প্লাস্টিকের ব্যাগে যে তৈলাক্ত কেমিক্যাল থাকে, সেটি মাটির সঙ্গে মিশে না বলে তা পরিবেশের জন্য খুব ক্ষতিকর। এতে করে পৃথিবীর সব জায়গায়, এমনকি সাগরেও প্রচুর পরিমাণে প্লাস্টিকের ব্যাগ জমা হয়ে পরিবেশ ও প্রাণীদের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে উঠেছে। যে হারে বিশ্বে প্লাস্টিকের ব্যাগ তৈরি ও ব্যবহার হচ্ছে, গবেষণায় জানা গেছে ২০৫০ সালের মধ্যে বিশ্বে ১.২ বিলিয়ন প্লাস্টিক উৎপাদন হবে, যা পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে উঠবে। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে সোলু ব্যাগ নামের একটি কোম্পানির পরিচালক রবার্তো অ্যাসটেটে জানিয়েছেন, এক ধরনের পরিবেশবান্ধব চুনাপাথর থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করে নতুন ব্যাগ তৈরি করেছেন তারা। কোম্পানিটি আগামী অক্টোবর থেকে চিলিতে এই ব্যাগ বাজারজাত করবে। খাওয়ার যোগ্য এই ব্যাগ সম্পর্কে অ্যাসটেটে বলেন, ‘বিষয়টা অনেকটা রুটি বানানোর মতোই। এখানে ময়দা হলো পলিভিনাইল অ্যালকোহল। আর অন্য সব উপাদানও ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অনুমোদন করেছে।’ সাংবাদিকদের সামনে গবেষকরা দুই ধরনের ব্যাগ পানিতে গুলে যাওয়ার বিষয়টি দেখান। তাদের প্লাস্টিক ব্যাগগুলো ঠান্ডা পানিতে গুলে ফেলা যায় ও রিইউজেবল ক্যানভাস ব্যাগগুলো গরম পানিতে গুলে যায়। অ্যাসটেটে জানিয়েছেন, পানিতে গুলে ফেলার পর সেসব ব্যাগ থেকে পানিতে কার্বন মিশে, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর না। অ্যাসটেটে আরো জানিয়েছেন, প্লাস্টিকের ব্যাগ যেখানে ১৫০-৫০০ বছর পর্যন্ত মাটির সঙ্গে না মিশে পরিবেশে রয়ে যায়, সেক্ষেত্রে তাদের প্লাস্টিকের ব্যাগ পরিবেশে থাকে মাত্র ৫ মিনিট। ব্যাগের ক্রেতা চাইলে যখন ইচ্ছে এই প্লাস্টিকের ব্যাগ ধ্বংস করতে পারেন। সোলু ব্যাগ নামের এ ধরনের ব্যাগ তৈরিতে খরচও বাজারে পাওয়া প্লাস্টিক ব্যাগের মতোই জানিয়েছেন গবেষকরা। তাদের এই উদ্ভাবনের কারণে সিঙ্গুলারিটি ইউনিভার্সিটি চিলি সামিটে পুরস্কার পেয়েছেন তারা। চিলির সরকার ক্ষতিকর প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার বন্ধ করতে বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। চলতি মাসেই ল্যাটিন আমেরিকার প্রথম দেশ হিসেবে চিলি বিভিন্ন স্টোরে প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। সাবেক সরকারের প্রেসিডেন্ট মিশেল বেশেলেট উপকূলীয় এলাকায় প্লাস্টিক ব্যাগ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেন। বর্তমান সরকারের প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরা ওই সিদ্ধান্ত বহাল রেখে আরো সম্প্রসারিত করে পুরো দেশজুড়ে প্লাস্টিক ব্যাগের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেন।