প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শতভাগ উপস্থিতি! কারণটা কি?

396

দামুড়হুদা গোপালপুর ডিজিএম শান্তিপাড়া সরকারি

রোকনুজ্জামান রোকন: দামুড়হুদা গোপালপুর ডিজিএম শান্তিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শতভাগ উপস্থিতি। কারনটা কি? আজকের শিশু আগামি দিনের ভবিষ্যৎ, তাই শিশুদের শিক্ষা নিশ্চিত  করাটা জরুরী। শিশুদের শতভাগ স্কুলমমুখি করতে দামুড়হুদা গোপালপুর গ্রামের ডিজিএম শান্তিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা নিয়েছেন ব্যাতিক্রম কিছু উদ্যোগ।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শিশুরা যাতে নিয়মিত বিদ্যালয়ে শতভাগ উপস্থিত হয় এবং পড়াশুনার প্রতি আরো বেশি মনোযোগী হয়, সে কারনে শিশুদের বিনোদনের জন্য তৈরি করেছে বিভিন্ন ধরনের খেলার সামগ্রী। বিদ্যালয় সাজানো হয়েছে ফুলের বাগানের মতো করে। দেখতে সত্যি এক মনোমুগ্ধকর পরিবেশ। বিদ্যালয়ের বারান্দার চারপাশে শিশুদের নিরাপত্তার জন্য দেওয়া হয়েছে লোহার রেলিং। গরমে যেন পাঠদানে কোন অসুবিধা না হয় তার জন্য মাথার উপরে লাগানো হয়েছে সিলিং বোড। এখানেই শেষ নয়,গত ২০১১ থেকে ২০১৬ পযন্ত এ বিদ্যালয় থেকে ৩৯ জন ছাত্র ছাত্রী জিপিএ ৫ পেয়েছে। যা দামুড়হুদা উপজেলার মধ্যে প্রথম সারিতে রয়েছে বিদ্যালয়টি এ ধরনের উন্নয়ন মূলক কাজের জন্য, গ্রামের সকলে প্রধান শিক্ষক সহ সকল শিক্ষকের প্রতি ধন্যবাদ জানায়।
গ্রামবাসীরা আরো জানায় এ ধরনের কার্যক্রম চলতে থাকলে আমাদের শিশুরা পড়াশোনার প্রতি আরো বেশি মনোযোগী হবে বলে আমরা মনে করি। প্রধান শিক্ষক মো. আলাউদ্দিন জানান, তিনি এবং তার সহকর্মীদের উদ্যোগে বিদ্যালয় এভাবে সাজানো হয়েছে। যার কারণে বিদ্যালয়ে শতভাগ উপস্থিত হচ্ছে এবং পড়াশোনার প্রতি আরো বেশি মনোযোগী হচ্ছে। তিনি আরো বলেন চুয়াডাঙ্গা ২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজগার টগরের সহযোগিতায় স্কুলের শহীদ মিনার এবং শিশুদের খেলার সামগ্রী পাওয়ায় স্কুলটাকে আরো ভালভাবে সাজাতে পেরেছি। সেই সাথে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা আমাদের কে নানা ভাবে সাহায্য সহযোগিতা করেছে। এছাড়াও শিশুদের জন্য আমরা বিভিন্ন রকম প্রতিযোগিতা মূলক অনুষ্ঠান করে থাকি।তিনি আরো বলেন এ ধরনের কার্যক্রম সকল বিদ্যালয়ে হলে শিক্ষার মান আরো ভাল হবে এবং শিক্ষর্থীদের উপস্থিতি শতভাগ হবে।