চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ১ জুন ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রথমবারের মতো ব্যতিক্রমীভাবে ফ্লাসমোভ

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুন ১, ২০২১ ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

প্রথম রাজধানী চুয়াডাঙ্গার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে
নিজস্ব প্রতিবেদক:
এবার প্রথম রাজধানী চুয়াডাঙ্গার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে প্রথমবারের মতো ফ্লাসমোভ করে ব্যতিক্রমীভাবে এ দাবি জানিয়েছেন চুয়াডাঙ্গার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ভিত্তিক চারটি গ্রুপের তরুণরা। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে চারটায় চুয়াডাঙ্গা শহীদ হাসান চত্বরে আচমকায় এ ফ্লাসমোভের আয়োজন করে তাঁরা। দেশাত্মবোধক গানের তালে তালে পাঁচ তরুণের নাচ ও কয়েকজনের হাতে ‘প্রথম রাজধানী চুয়াডাঙ্গার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চাই’ লেখা প্লেকার্ডে মাত্র ৫ মিনিটের এ ভিন্নধর্মী আয়োজন নজর কাড়ে সকলের। হঠাৎ, যেন পুরোনো দাবিতে নতুন কিছু উপভোগ করল চুয়াডাঙ্গাবাসী।
জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাজধানী রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে চুয়াডাঙ্গাবাসী প্রথম থেকেই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন। মানববন্ধন, সভা, সেমিনারসহ বিভিন্ন দিবস ও জাতীয় অনুষ্ঠানেই এ দাবি বার বার তুলে ধরা হয়। এবারে এই জেলার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো মাত্র পাঁচ মিনিটের ফ্লাসমোভ এর মাধ্যমে এই দাবি জানায় চুয়াডাঙ্গার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ভিত্তিক চারটি গ্রুপ। চুয়াডাঙ্গা কমিউনিটি, চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন, সিডি কুইনস ও ফুড ব্লগারস অব চুয়াডাঙ্গার তরুণরা হঠাৎ করেই আয়োজন করে ভিন্নধর্মী এ ফ্লাসমোভের।
চুয়াডাঙ্গা বড় বাজার শহীদ হাসান চত্বরে প্রথমে বিরাট বড় একটি জাতীয় পতাকা হাতে দেখা যায় বেশ কয়েকজন তরুণকে। হঠাৎই রাস্তার চারদিক দিয়ে চারটি তরুণ গায়ে চুয়াডাঙ্গার মানচিত্র খচিত গেঞ্জি পড়ে রাস্তায় কাজী নজরুল ইসলামের কবিতার সংমিশ্রণসহ একটি দেশাত্মবোধক গানে নাচতে থাকে। এর কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই একই গেঞ্জি পড়ে দেখা যায় আরো তিন তরুণ ও লাল সবুজের ড্রেসে এক তরুণীকে। তাঁদের হাতে ‘প্রথম রাজধানী চুয়াডাঙ্গার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চাই’ লেখা প্লেকার্ড। হঠাৎ শহরে এ ধরনের ভিন্নধর্মী আয়োজন দেখে ভিড় করতে থাকে নানা শ্রেণি পেশার মানুষ। আরো কয়েক সেকেন্ড পরেই আরেকটি তরুণ ওই নাচে অংশ নেয়। এ সময় অন্য একজন তরুণের হাতে বাংলাদেশের একটি পতাকা ও প্লেকার্ড দেখা যায়। মাত্র পাঁচ মিনিটের এ আয়োজন যেন হৃদয় কাড়ে উপস্থিত সকলের। সবমিলিয়ে চুয়াডাঙ্গাকে প্রথম রাজধানীর স্বীকৃতি এনে দেওয়ার আন্দোলনে এটি ছিলো এক ভিন্নধর্মী আয়োজন।
এ আয়োজনের অন্যতম আয়োজক মেরিনা জামান মমি বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরেই এই দাবিটি জানিয়ে আসছি। বিভিন্ন সময় জেলাবাসী বিভিন্নভাবে দাবিটি উন্থাপন করেছে। এটি সেই সময়ের পত্র-পত্রিকাসহ বিভিন্ন নথীতে পাওয়া যায়। সেই সত্যটিকেই প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টামাত্র। আমরা এবারে আমাদের প্রাণের সেই দাবিটিকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করেছি। এ জেলার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ফ্লাসমোভ এটি। সত্যিই আয়োজনটি ভালো ছিল।
প্রথম রাজধানী চুয়াডাঙ্গার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে প্রথমবারের মতো ফ্লাসমোভের এ ব্যতিক্রমী আয়োজনে অন্যতম আয়োজক হিসেবে ছিলেন চুয়াডাঙ্গা কমিউনিটির অ্যাডমিন তরুণ উদ্যোক্তা মেরিনা জামান মমি, চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলিফ হোসেন, চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা ও অধিকারকর্মী মেহেরাব্বিন সানভী, চুয়াডাঙ্গা কমিউনিটি ও সিডি কুইন্স অব চুয়াডাঙ্গার অ্যাডমিন এভিনি রহমান, চুয়াডাঙ্গা কমিউনিটির অ্যাডমিন আব্দুল্লাহ আল জুবায়ের নাফিউ, চুয়াডাঙ্গা কমিউনিটির মডারেটর তানজিলুল প্লানা, চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশনের সহসভাপতি আফ্রা আনান, সাধারণ সম্পাদক মেহরান স্বদেশ, অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক সাবিত শিথিল, প্রচার সম্পাদক সোহান, সহ-সাধারণ সম্পাদক হায়ুজ্জামান প্রান্ত ও সিডি ডান্স গ্রুপের মানিকসহ তাঁর দল।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।