চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ২১ নভেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে যাচ্ছেন কৃষ্ণাঙ্গ নারী

প্রযুক্তি প্রতিবেদন:
নভেম্বর ২১, ২০২১ ৩:২১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে যাচ্ছেন কোনো কৃষ্ণাঙ্গ নারী। তার নাম জেসিকা ওয়াটকিন্স। জন্ম যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ডে। মহাকাশ স্টেশনে তিনি মহাকাশ বিশেষজ্ঞ হিসেবে ছয় মাস অবস্থান করবেন। ১৯৯৮ সালে পৃথিবীর কক্ষপথে পাঠানো হয়েছিল মানুষের বসবাসযোগ্য কৃত্রিম উপগ্রহ ‘ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশন’ (আইএসএস)-কে। মহাকাশে এটিই জেসিকার প্রথম যাত্রা। ২০১৭ সালে নাসার নভোচারী হিসেবে যোগ দেন জেসিকা। কাজ করেছেন স্পেস এজেন্সি রিচার্স সেন্টারে। নাসার এমস রিসার্চ সেন্টার এবং জেট প্রোপালসন ল্যাবে কাজ করেছেন তিনি। নাসার মঙ্গলযান কিউরিওসিটি-র অভিযানেও যুক্ত ছিলেন জেসিকা। আমেরিকান মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা জানিয়েছে, আগামী বছর এপ্রিল মাসে স্পেসএক্স ক্রু-৪ মিশনের অন্যতম অভিযাত্রী জেসিকা। জেসিকার সঙ্গে ওই অভিযাত্রী দলে থাকবেন নাসার জেল লিন্ডগ্রেন ও রবার্ট হাইনস এবং ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির সামান্থা ক্রিস্টোফোরেট্টি। এলন মাস্কের বেসরকারি মহাকাশ গবেষণা সংস্থা স্পেসএক্সের ক্রু ড্রাগন মহাকাশযান তাদের পৌঁছে দেবে স্পেস স্টেশনে। ফ্লোরিডায় নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে ফ্যালকন ৯ রকেটে করে স্পেসএক্সের ক্যাপসুলে চেপে রওনা দেবেন চার জন। ক্যালিফর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জিওলজিক্যাল ও এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স নিয়ে স্নাতক হন জেসিকা। ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জিওলজিতে স্নাতকোত্তর। এক সময়ে শিক্ষানবিশ হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন নাসায়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।