চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ৯ আগস্ট ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে বঙ্গমাতার প্রেরণা ও অবদান রয়েছে : এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ৯, ২০২১ ৮:১৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নানা আয়োজনে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুরসহ সারা দেশে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন
সমীকরণ প্রতিবেদন:
ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন’ ও ‘বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পদক-২০২১ প্রদান’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারই প্রথম বঙ্গমাতার জন্মদিনটি জাতীয়ভাবে পালিত হয় এবং স্বাধীনতার পর প্রথম এই মহীয়সী নারীর প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জানিয়ে দেশের জন্য বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ পাঁচজন নারী ব্যক্তিত্বকে বঙ্গমাতা পদকে ভূষিত করা হয়।
অনুষ্ঠানে স্মৃতিচারণে প্রধানমন্ত্রী ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের ইতিহাসের নির্মম হত্যাযজ্ঞের কথা বলতে গিয়ে আবেগজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘মানুষ যখন মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়ায়, তখন তার মনে সব থেকে আগে আসে নিজের জীবনটা বাঁচানো এবং নিজের জীবন ভিক্ষা চাওয়া। কিন্তু আমার মা (বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব) খুনীদের কাছে নিজের জীবন ভিক্ষা চাননি। তিনি নিজের জীবন দিয়ে গেছেন। আমার আব্বাকে (জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু) যখন হত্যা করল সেটা যখন তিনি দেখলেন, তখনই তিনি (বঙ্গমাতা) খুনীদের বললেন যে, তোমরা উনাকে (বঙ্গবন্ধু) মেরেছ, আমাকেও মেরে ফেল।’
এদিকে, বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে। গতকাল রোববার আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল, সেলাই মেশিন বিতরণ, নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়।
চুয়াডাঙ্গা:
চুয়াডাঙ্গায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ অনুষ্ঠান হয়। এর আগে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে জেলা প্রশাসনের কার্যালয় চত্বরের বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

আলোচনা সভায় চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বাঙালির অহংকার, নারী সমাজের প্রেরণার উৎস। শৈশব থেকেই তিনি ছিলেন সাহসী ও দৃঢ়চেতা। যেকোনো পরিস্থিতি তিনি বুদ্ধিমত্তা, বিচক্ষণতা দিয়ে মোকাবিলা করতেন। বাংলাদেশের স্বপ্নের সোনালী ভোরে জেগে ওঠা একজন সংগ্রামী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব। তাঁর নাম বাঙালি ও বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে অবিচ্ছেদ্য। যার অপরিসীম ত্যাগ ও সংগ্রামের কাছে বাংলাদেশ ঋণী।
পরে ২৮ জন নারীকে সেলাই মেশিন ও ৩০ জনের মধ্যে ২ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন, মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর, জাতীয় মহিলা সংস্থা ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমির সম্মিলিত এ আয়োজনে ও পুষ্পস্তবক অর্পনের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সাজিয়া আফরিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিকুর রহমান, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদী মিলি, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাকসুরা জান্নাত, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আফসানা ফেরদৌসী, জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান নাবিলা রুকসানা ছন্দা প্রমুখ।
এর আগে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরাসরি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব এঁর ৯১তম জন্মদিন উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গাসহ সারাদেশে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কর্মসূচি:
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল রোববার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে (নতুন ভবন) এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার বলেন, জাতির পিতার আন্দোলন-সংগ্রামের প্রতিটি ক্ষেত্রে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের প্রেরণা ও অবদান রয়েছে। বঙ্গবন্ধু যখন কারাগারে বন্দি ছিলেন, তখন কোনো চাপে নতি স্বীকার না করতে বঙ্গবন্ধুকে সরাসরি সাহস জুগিয়েছেন কারাগারে। বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব রাষ্ট্রপ্রধানের সহধর্মিনী হয়েও আজীবন সাধারণ জীবনযাপন করেছেন। বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ প্রদানের ক্ষেত্রেও বঙ্গমাতার পরামর্শ নিয়েছিলেন, পরে যা বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষণ হিসেবে ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত।
তিনি আরও বলেন, ‘জেলখানায় বসে বঙ্গবন্ধুকে তাঁর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ লিখতে উৎসাহ প্রদানের ক্ষেত্রেও বেগম মুজিবের অবদান অনস্বীকার্য। মাত্র পাঁচ বছর বয়সের মধ্যে বঙ্গমাতা পিতা-মাতাকে হারিয়ে সংগ্রামী জীবনের মধ্যে বেড়ে উঠেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে অনবদ্য অবদান রেখে তিনি হয়ে ওঠেন বঙ্গমাতা। তার মতো মহিয়সী নারীর জীবনদর্শন অনুসরণ করার মাধ্যমে নারী উন্নয়ন আরও ত্বরান্বিত হবে।’
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খুস্তার জামিল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, অ্যাড. শামসুজ্জোহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান, মুফতি মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ্বাস, দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস, আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. নুরুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. তালিম হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন হেলা, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মো. আফজালুল হক বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক রিপন মণ্ডল, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা নুরুন্নাহার কাকলী, জাতীয় মহিলা সংস্থার সভাপতি নাবিলা রুকসানা ছন্দা, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদি মিলি, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া শাহাব, যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক আফরোজা পারভীন, মহিলা নেত্রী শেফালী, সাবেক যুব লীগের আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, সাবেক যুবলীগ নেতা আব্দুল কাদের, সিরাজুল ইসলাম আসমান, টুটুল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, সহসভাপতি সাহাবুল হোসেন, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারেক, ছাত্রলীগ নেতা রিগান, সোহেল, আকাশ, রানাসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলী বিশ্বাস এবং দোয়া পরিচালনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ্বাস।
চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের কর্মসূচি:
বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহর্ধমিনী মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছার ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের আয়োজনে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের কার্যালয়ে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য আবু বক্কর সিদ্দিক আরিফের সভাপতিত্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও চুয়াডাঙ্গা শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। আলোচনা সভাটির পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী যুবলীগ সদস্য সাজ্জাদুল ইসলাম লাভলু।
অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার বলেন, ‘বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহর্ধমিনী মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা ছিল অনন্য। বঙ্গমাতা বাঙালি জাতির মুক্তির জন্য স্বতন্ত্রভাবে কাজ করেছেন এবং জাতীয় সংকটময় সময়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি তাঁর তীক্ষ্ম রাজনৈতিক প্রজ্ঞাবলেই বিশ্বাস করতেন যে, বঙ্গবন্ধুকে বাংলার মানুষই মুক্ত করে আনবে, তাই তিনি বঙ্গবন্ধুকে প্যারোলে মুক্ত না হতে পরামর্শ দিয়েছিলেন। স্বাধীনতা সংগ্রামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছায়াসঙ্গী হিসেবে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন তিনি। একজন নারীও যে অদম্য সাহস ও রাজনৈতিক প্রজ্ঞার অধিকারী হতে পারে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। তিনি নিজেই রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের এক অনন্য উদাহরণও বটে। তিনি তীক্ষ্ম বুদ্ধি ও মেধা দিয়ে বঙ্গবন্ধুর কারাগারে অবস্থানকালে এদেশের আন্দোলন-সংগ্রামকে ধরে রাখতে কাজ করে গেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর দর্শনকে বিশ্বাস করতেন বলেই বঙ্গবন্ধু যেন নির্বিঘ্নে দেশের জন্য ও মানুষের জন্য কাজ করতে পারেন সে ব্যাপারে সর্বদা সচেষ্ট থেকেছেন।’
এসময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য আলমগীর আজম খোকা, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, মালেক ভূঁইয়া, দামুড়হুদা ইউনিয়নের সাকে মেম্বর জাহিদুল, হাউলী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক লিপন, জামজামি ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক আবু মূছা, পদ্মবিলা ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি বিপ্লব হোসেন, যুবলীগ নেতা পিরু মিয়া, শেখ শাহী, মাসুদুর রহমান মাসুম, আব্দুল আলিম ফটিক, হাসানুর ইসলাম পলেন, শেখ দরুদ হাসান, আল-ইমরান শুভ, রামিম হাসান সৈকত, সামিউল শেখ সুইট, শেখ রাসেল, দিপু বিশ্বাস, জামাল খান, জাকির, লোকমান, জুয়েল, আলমগীর, নোমান, আসাদ, আলীহিম, সুমন, পিয়াস, সাদিকুর, মাহফুজ, বাচ্চু, শ্রমিক লীগ নেতা আশা, হাসু, ছাত্রলীগ নেতা আনোয়ার, কবির, শাকিব, ইমরান, অমি, কাফী প্রমুখ। মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠানটির পরিচালনা করেন চুয়াডাঙ্গা স্টেডিয়াম মসজিদের পেশ ইমাম মো. ওমর ফারুক।
আলমডাঙ্গা:


আলমডাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিনী, মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, সেলাই মেশিন ও অনুদানের টাকা বিতরণ করা হয়। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদের হলরুমে এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রনি আলম নুরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আইয়ুব হোসেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহম্মদ ডন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আব্দুল্লাহিল কাফি ও এসআই তৌকির আহম্মদ।
শামিম রেজার উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য দেন উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা মাকসুরা জান্নাত। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সোহেল রানা, সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার, মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আশুরা খাতুন, প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মণ্টু, সাধারণ সম্পাদক হামিদুল ইসলাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক, সমবায় কর্মকর্তা মজিবর রহমান প্রমুখ। এসময় আটজন মহিলাকে সেলাই মেশিন ও নয়জনকে ২ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়।
দামুড়হুদা:


দামুড়হুদায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকালে জন্মদিন উপলক্ষে ১২ জন অসহায় নারীকে সেলাই মেশিন ও নগদ ১২ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়। এর আগে দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদীপ্ত কুমার সিংহের সভাপতিত্বে দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু উপস্থিত থেকে বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিত্বে ফুল দিয়ে স্মরণ করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝণ্টু, সাধারণ সম্পাদক মাহ্ফুজুর রহমান মন্জু, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ, উপজেলা কৃষি অফিসার সম্প্রসারণ অফিসার মাসুম আব্দুলাহ, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মশিউর রহমান, সমাজসেবা অফিসার গোলাম ছানোয়ার, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আ. মতিন, নির্বাচন অফিসার ইসহাক, সমবায় কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ, বন কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আইয়ূব আলী, আব্দুল ওদুদ শাহ্ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামাল উদ্দিন, দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক, প্রেসক্লাবের সভাপতি এম নুরুন্নবী, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল কবীর ইউসুফ, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হাজি আ. কাদির, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়রত আলী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশরাফ হোসেন, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি’র প্রশিক্ষক আশরাফুল ইসলাম প্রমুখ।
জীবননগর:

জীবননগরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘দোস্ত এইড’-এর উদ্যোগে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। গতকাল রোববার দোস্ত এইড-এর জীবননগর শাখা অফিসে দোয়া মাহফিল ও কেক কেটে জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়। দোস্ত এইড বাংলাদেশ সোসাইটির প্রজেক্ট ম্যানেজার হোসাইন আহম্মেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জীবননগর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ্ আলম শরিফুল ইসলাম ছোট বাবু, সাংবাদিক মিঠুন মাহমুদ, অর্পন রকি, কাজল হোসেন, রমজান আলী, ওমর ফারুক, বিল্লাল হোসেন, অনিম আহমেদ, মিরাজুল ইসলাম, নিলয় প্রমুখ।
মেহেরপুর:


মেহেরপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিনী মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেলে মেহেরপুর জেলা মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল সভায় জুমের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ফরহাদ হোসেন।
অনুষ্ঠানে জুমের মাধ্যমে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (গ্রড-১) রাম চন্দ্র দাস, যুগ্ম সচিব ও প্রকল্প পরিচালক (আইজিএ প্রকল্প) তরিকুল আলম, পুলিশ সুপার মো. রাফিউল আলম। সহকারী কমিশনার মিথিলা দাসের সঞ্চালনায় ‘সংকটে সংগ্রামে নির্ভিক সহযাত্রী’ শীর্ষক আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন, মেহেরপুর জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নাসিমা খাতুন।
এসময় অন্যদের উপস্থিত ছিলেন পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহিম শাহীন, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক স্বপন কুমার খান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসাদুজ্জামান রিপন, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম প্রমুখ।
মুজিবনগর:

মুজিবনগরে মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদের হলরুমে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকার। অনুষ্ঠানে উপজেলা মহিলাবিষয়ক অফিসার তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা কৃষি অফিসার আনিছুজ্জামান খাঁন প্রমুখ।
গাংনী:

মেহেরপুরের গাংনীতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করেছে উপজেলা প্রশাসন। গতকাল রোববার সকালে উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সাংসদ সাহিদুজ্জামান খোকন। গাংনী উপজেলা প্রশাসন ও মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমি খানম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগর সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক, গাংনী পৌর মেয়র আহাম্মেদ আলী ও এমপি পত্নী লাইলা আনজুমান বানু।
অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব সম্পর্কে আলোকপাত করেন প্রধান অতিথি সাহিদুজ্জামান খোকন। তিনি তাঁর আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। পরে ৬ জন নারীকে সেলাই মেশিন প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন, জাপা (মঞ্জু) জেলা সভাপতি আব্দুল হালিম, গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান, নজরুল ইসলাম, মনিরুজ্জামান আতুসহ সরকারি দপ্তরের বিভিন কর্মকর্তাবৃন্দ।
অপর দিকে, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল রোববার সকালে উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা। প্রধান অতিথি ছিলেন গাংনী উপজলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খাকন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এমপি পত্নী লাইলা আরজুমান বানু, উপজলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, মেহেরপুর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান তৌহিদ মুর্শেদ অতুল, কাথুলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা, রাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম সাকলায়েন ছেপু, মটমুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল আহমেদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবুল বাশার ও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীসহ অন্যান্যরা।
সভায় বঙ্গবন্ধুর নেতত্ব দীর্ঘ লড়াই সংগ্রামর মধ্যদিয় স্বাধীনতা লাভের নেপথ্য বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার প্রেরণা তুলে ধরা হয়। পরে তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও কেক কাটা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন সংসদ সদস্য সাহিদুজ্জামান খাকন। এসময় আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।