পৃথিবীর চেয়ে সাড়ে তিন গুণ গ্রহে কি মিলবে প্রাণের খোঁজ?

23

প্রযুক্তি প্রতিবেদন:
পৃথিবী থেকে ৯০ আলোকবর্ষ দূরে ‘i ‘TOI-1231 b’নামের একটি নতুন গ্রহ আবিষ্কার করেছেন জেনিফার বার্ট নামের নাসার (ঘঅঝঅ) এক জ্যোতির্বিজ্ঞানী। তিনি ও তার টিম জানান, নতুন এই গ্রহটি ঘুরছে এক ‘লাল বামন’ অবস্থাপ্রাপ্ত নক্ষত্রের চারদিকে। একবার প্রদক্ষিণ করতে লাগে মাত্র ২৪ দিন। নেপচুনের আকারের এই গ্রহটির আবহাওয়া মূলত গ্যাসীয়। সবথেকে বড় কথা গ্রহটি অনেকটাই ঠান্ডা। এর নির্দিষ্ট আবহাওয়ামণ্ডল রয়েছে। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই আশাও জাগতে পারে প্রাণের সন্ধান মেলার। কিন্তু এর আকারের কারণে সেটি সম্ভব নয়। আকারে পৃথিবীর প্রায় সাড়ে তিন গুণ হওয়ার কারণেই ৫৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা সম্পন্ন এই গ্রহটি শেষ পর্যন্ত নিষ্প্রাণ বলেই ধারণা করেছেন বিজ্ঞানীরা। নাসা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত সৌরমণ্ডলের বাইরে সন্ধান মেলা গ্রহদের মধ্যে এটি অন্যতম ঠান্ডা গ্রহ। এই গ্রহে মৌলগুলি এখনও প্রাথমিক অবস্থায় রয়েছে। যার ফলে কার্যত এই গ্রহটি বিজ্ঞানীদের কাছে কৌতূহলের বস্তু হয়ে উঠেছে। টেলিস্কোপের সাহায্যে এই গ্রহটি পর্যবেক্ষণ করে এর চরিত্র বিশ্লেষণ করে গ্রহ সম্পর্কে তাদের ধারণায় নতুন কিছু অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা অব্যাহত আছে। সৌরজগতে প্রাণের অস্তিত্ব যে পৃথিবী ছাড়া আর কোথাও নেই, তা পরিষ্কার বোঝা গিয়েছে। ফলে দূরের নক্ষত্রমণ্ডলে গ্রহ খুঁজে পেলে সেখানে প্রাণের অস্তিত্ব থাকতে পারে কিনা তা বুঝতে এই ধরনের গ্রহের পর্যবেক্ষণ কাজে আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে।