চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ১৪ নভেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে তরুণীর সঙ্গে প্রেম করা সেই প্রতারককে আদালতে সোপর্দ

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
নভেম্বর ১৪, ২০২১ ৭:৪৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে এক তরুণীর (২০) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন তৌহিদ হোসেন (২৩)। এরপর প্রেমিকার নিকট থেকে প্রতারণা করে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা হাতিয়ে নেন। সন্দেহ হয় প্রেমিকার। তৌহিদ পুলিশ কর্মকর্তা কিনা তা নিশ্চিত হতে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার সামনে আসতে বলেন প্রেমিকা। প্রেমিকার কথা মতো তৌহিদ সদর থানার সামনে এসে ঘোরাঘুরি করলে পুলিশের সন্দেহ হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে তার প্রতারণার বিষয়টি ধরা পড়ে। শুক্রবার (১২ নভেম্বর) বিকেলে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মহসিন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। প্রেমিকার দায়ের করা প্রতারণা মামলায় তৌহিদকে গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। গ্রেফতার তৌহিদ হোসেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাইদঘাট গ্রামের মিল্লান হোসেনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, সবার কাছে তৌহিদ হোসেন পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত। পুলিশের ইউনিফর্ম পড়ে নিয়মিত ফেসবুকে ছবিও দিতেন তিনি। কখনও বন্দুক হাতে, কখনও ওয়াকিটকি হাতেও ছবি তুলেছেন নিজেকে পুলিশ প্রমাণে। আবার পুলিশের কাছে তিনি দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কর্মচারী হিসেবে পরিচিত। আবার কারও কাছে এনএসআইয়ের কর্মচারী হিসেবে পরিচিত তৌহিদ। কিন্তু আসলে তিনি একজন প্রতারক। মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করতেই তার এই বহুরূপী সাজ।

পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন তৌহিদ। তার কাছ থেকে বেশ কিছু নগদ টাকাও হাতিয়ে নেন। পরে তার পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় নিয়ে ওই তরুণীর সন্দেহ হয়। তিনি তৌহিদকে সদর থানার সামনে আসতে বলেন। গত বুধবার (১০ নভেম্বর) সদর থানার সামনে এসে সন্দেহজনক আচরণ করায় পুলিশ তৌহিদকে আটক করে। পরে ভুক্তভোগী ওই তরুণী ও পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি মামলা করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন বলেন, তৌহিদ একজন প্রতারক। বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য সেজে মূলত টাকা হাতিয়ে নেওয়াই ছিল তার মূল কাজ। আমরা ইতোমধ্যে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পেয়েছি। তিনি আরও বলেন, তৌহিদ তার প্রেমিকার নিকট থেকেও বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। প্রেমিকাকে বিশ্বাস করানোর জন্যই সে থানার সামনে আসে। পরে পুলিশ তাকে আটক করে। তার প্রেমিকা প্রতারণার অভিযোগে মামলা করেছেন এবং পুলিশ বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করেছে। শনিবার দুপুরে তৌহিদকে আদালত সোপর্দ করা হয়েছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।