চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ৩ জুলাই ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পশু নিয়ে শঙ্কায় বেপারিরা, অনলাইনে হাটের তোড়জোড়

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুলাই ৩, ২০২১ ৮:৩০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

সমীকরণ প্রতিবেদন:
মহামারি করোনার বিস্তারে কোরবানির পশু বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছেন বেপারিরা। মৌসুমি ব্যবসায়ীসহ খামারিরা এবার বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন। এ অবস্থায় অনলাইনে শুরু হয়েছে কোরবানির পশু বিক্রির তোড়জোড়। এতে করে অজ্ঞ ও প্রযুক্তি জ্ঞানহীন বেপারিদের লাভের একটা মোটা অংশ তুলে দিতে হবে মধ্যস্বত্বভোগীদের হাতে।এ অবস্থায় বিনিয়োগ করা টাকা ওঠাতে পারবেন কিনা, তা নিয়ে নিয়ে বেপারিদের মধ্যে তৈরি হয়েছে সংশয়। করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করায় এবং লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ায় এখন গরু ও ছাগলের বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় তারা। লকডাউন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে পশুর দাম কমতে শুরু করেছে। এর ওপর মড়ার উপর খড়ার ঘায়ের মতোই বন্যার পানিতে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের খামার তলিয়ে যেতে শুরু করেছে। এ অবস্থায় চোখে অন্ধকার দেখতে শুরু করেছেন ছোটবড় সব খামারি।
করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় কোরবানির আগে লকডাউন শুরু হতে যাওয়ায় কোরবানির পশু বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন দিনাজপুর জেলার ৫৮ হাজার খামার মালিক। সারা বছর খামারে পরিশ্রম ও বিপুল অর্থ বিনিয়োগ করার পর এখন পশুর বাজার ও দাম নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন তারা। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নে বিশাল গরু ও ছাগলের খামার গড়ে তুলেছেন ঝলঝলি বহুমুখী সমবায় সমিতি নামের একটি সমবায় সংগঠন।
ঐ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান জানান, এবার কোরবানি সামনে রেখে লাভের আশায় তারা ৫৩টি গরু ও ২৩টি ছাগল প্রস্তুত করেছেন। বিনিয়োগও করেছে প্রচুর অর্থ। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করায় এবং লকডাউন শুরু হতে যাওয়ায় এখন গরু ও ছাগলের বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় তারা। লকডাউন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে পশুর দাম কমতে শুরু করেছে। যদি কোরবানিতে পশুর হাট না বসে তাহলে ন্যায্য দাম তারা পাবেন না। এতে আর্থিকভাবে মারাত্মক ক্ষতিতে পড়তে হবে। একই চিত্র ঝিনাইদহের গবাদিপশুর খামারিদেরও। কোরবানির হাট বসা নিয়ে অনিশ্চয়তায় থাকা খামারি ও মৌসুমী বেপারিরা পশুর ভাল দাম পাওয়া নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন। ঝিনাইদহে এবার কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ১ লাখ ৩১ হাজারের বেশি গরু-ছাগল। যার বাজার মূল্য প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা।করোনা পরিস্থিতি তাদের মধ্যে তৈরি করেছে অনিশ্চয়তা। কোরবানির পশুর হাট নিয়ে তৈরি হওয়া অনিশ্চয়তায় বিকল্প হিসেবে জেলায় জেলায় অনলাইনে পশুর হাটের উদ্যোগ নিয়েছে বেসরকারি নানা প্রতিষ্ঠান। অনলাইনে কেমন হবে কোরবানির পশুর হাট, এ বিষয়ে নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।তবে স্বল্পশিক্ষিত মৌসুমী বেপারি ও খামারিদের বেশির ভাগই এ ব্যবস্থায় আস্থা আনতে পারছেন না।
এরই মধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক নির্দেশিকায় অনলাইনে পশু ক্রয়-বিক্রয় ও কোরবানি সেবা সংক্রান্ত গাইডলাইন দিয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসরণ করে এবারের ডিজিটাল কোরবানি হাট বাস্তবায়ন করছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ ডেইরী ফার্ম এসোসিয়েশন। এতে কারিগরি সহযোগিতা দিচ্ছে এটুআই-এর অনলাইন প্লাটফর্ম একশপ। অনলাইনে কোরবানি হাট বাস্তবায়ন করছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) ও বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মস অ্যাসোসিয়েশন (বিডিএফএ)। এতে কারিগরি সহযোগিতা দিচ্ছে এটুআই-এর এর অনলাইন প্লাটফর্ম একশপ। নির্দেশনায় সকল পক্ষসমূহের দায়দায়িত্ব ঠিক করে দেয়া হয়েছে। পশু ক্রয় ও বিক্রয়ের নিয়ম ঠিক করে দেয়া হয়েছে। পশু বিক্রির কী কী নিয়ম মানতে হবে কী কী তথ্য থাকতে হবে তা উল্লেখ করে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি গ্রাহককে সময়মতো কোরবানির পশু দিতে না পারলে সেসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যব্যস্থা নেয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে এই প্লাটফর্মে ই-ক্যাব এবং বিডিএফএ এর অনুমোদিত সদস্যর প্রতিষ্ঠান কেবল অংশ নিতে পারবে। এছাড়া জেলা প্রশাসকদের অনুমোদিত বিক্রেতারা তাদের পশু বিক্রি করতে পারবে। ক্রেতার নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এ ধরনের রক্ষণশীল কৌশল রাখা হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে ই-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার বলেন, এই হাট যেহেতু ঈদ কেন্দ্রীক এবং এবার করোনা মহামারির প্রকোপও বেড়েছে। তাই আমরা চাই ক্রেতারা অনলাইন থেকে নিরাপদে পশু ক্রয় করুক। আমরা গতবার প্রান্তিক চাষীদের যুক্ত করলেও এবার যাচাই বাছাই করা কঠিন হবে তাই আমরা শুধু ভেরিফাইড বিক্রেতাদেরকে সুযোগ দিচ্ছি। ই-ক্যাবের জেনারেল সেক্রেটারি মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, আমরা সরকারের এবং উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতা নিয়ে এটি গতবারের মতো সফল বাস্তবায়ন করতে চাই। তবে এবার আমরা ক্রেতা ও বিক্রেতার সংযোগ ঘটিয়ে দেবো। যাতে তারা আস্থার সহিত কেনাকাটা করতে পারেন। ক্রেতার আর্থিক নিরাপত্তা দিতে আমরা বাংলাদেশ ব্যাংকের সহায়তার সাময়িক এসক্রো সেবা ব্যবহার করার চেষ্টা করছি।

Girl in a jacket

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।