পরকীয়া প্রেমিকার বাড়িতে আসায় স্ত্রীর মাথা ফাটালো স্বামী নাসির

289

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বামীর পিছু নেয়ার কারণে বাঁশ দিয়ে মেরে স্ত্রীর মাথা ফাটালো পাষ- স্বামী নাসির উদ্দীন। গতরাত সাড়ে ১২টার দিকে চুয়াডাঙ্গার মাথাভাঙ্গা ব্রীজের নিচে এঘটনা ঘটে। নাসির উদ্দীন কয়েকদিন ধরে স্ত্রী সন্তান ফেলে বাইরে বাইরে রাত কাটাচ্ছিলো। গতকাল রাতে শিশু সন্তানকে নিয়ে নাসিরের পিছু নেয় তার স্ত্রী লিপি খাতুন। পিছু পিছু মাথাভাঙ্গা ব্রীজের নিচে সুইপার পট্টিতে গিয়ে পৌছায়। এসময় স্ত্রীকে দেখে বাঁশ দিয়ে বেদম মারপিট করে নাসির উদ্দীন। চিৎকার করতে স্ত্রী লিপি খাতুন ও সাথে থাকা শিশু সন্তান। বাঁশের আঘাতে লিপির মাথা ফেটে যায়। এসময় স্থানীয়রা এসে নাসির উদ্দীনকে বাঁধা দিতে গেলে তাদের ওপরও চড়াও হয় সে। পরে খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই সুমন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ব্রীজের সামনের সড়ক থেকে নাসিরকে আটক করেন। গতরাত ১২টা। চুয়াডাঙ্গার শহীদ হাসান চত্বরে যত্রতত্র রিক্সা থেকে নেমে নিজের স্বামীকে খোঁজ করতে থাকেন। মাথাভাঙ্গা ব্রীজের নিচে দক্ষিণ দিকে তার স্বামীকে যেতে দেখেছেন বলে জানিয়ে দেন ওই ব্যাক্তি। আবার তাড়াহুড়ো করে শিশু সন্তানসহ ব্রীজের নিচে নেমে যান ওই নারী। কিছুক্ষণ পরেই শোনা যায় নারী ও শিশু কণ্ঠের চিৎকার। জানা গেছে, রাজধানী ঢাকার বিক্রমপুর এলাকার মৃত আহমেদ রাজা ভূঁইয়ার ছেলে নাসির উদ্দীন দীর্ঘদিন আগে চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার কয়রাডাঙ্গা গ্রামের লিপি খাতুনের বিয়ে করে। তারপর থেকেই তারা চুয়াডাঙ্গায় বসবাস শুরু করেন। বর্তমানে তারা পৌর এলাকার পলাশপাড়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকে। তাদের একটি ৮/১০ বছরের পূত্রসন্তান রয়েছে। এদিকে, প্রায় ১০দিন ধরে বাইরে-বাইরে রাত কাটাচ্ছে নাসির। ফলে গতরাতে তার পিছু নেয় স্ত্রী লিপি খাতুন। একপর্যায়ে স্বামীর পিছু নিয়ে রাত ১২টার পর ব্রীজের নিচে সুইপার পট্টিতে পৌছায় সে। সেখানে জনৈক এক মহিলার ঘরে ঢোকার সময় নাসিরের স্ত্রী তাকে চেপে ধরে। এসময় নাসির ওই বাড়িতে থাকা একটি বাঁশ নিয়ে স্ত্রী লিপিকে বেদম মারপিট শুরু করে। তার লাঠির আঘাতে সামনে দাঁড়িয়ে তা ঠেকানোয় দুষ্কর। পরে স্থনীয়রা ছুটে এসে নাসিরকে ঠেকাতে গেলে তাদের ওপরও চড়াও হয় সে। ততক্ষণে লিপির মাথা দিয়ে গলগল করে রক্ত বের হচ্ছে। স্ত্রী লিপি হাসপাতালে যাওয়ার জন্য সড়কে ওঠার সময়ও নাসির তাকে মারপিট করে। এরপর মাথাভাঙ্গা ব্রীজের সামনে সড়কে ওঠার সাথে সাথে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ নাসিরকে আটক করে। পরে তাকে ওয়াশ করার জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হলেও, সে মদ্যপ না থাকায় তাকে ওয়াশ করা হয়নি।  এদিকে, বিশেষ সূত্রে জানা গেছে, নাসির উদ্দীন চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করে। সুইপার পট্টির জনৈক মহিলার সাথে নাসিরের অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে। সে কয়েকদিন ধরে সেখান থেকে মদপান করে ওইখানেই রাত কাটায়। এজন্য গতরাতে তার স্ত্রী পিছু নিয়ে সেখানে যায়।