নৌকাকে বিজয়ী করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে

43

আলমডাঙ্গা বধ্যভূমি পরিদর্শন ও নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার
আলমডাঙ্গা অফিস:
আলমডাঙ্গা বধ্যভূমি পরিদর্শন ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিনি আলমডাঙ্গা বধ্যভূমিতে এসে পৌঁছান। প্রথমে তিনি বধ্যভূমি পরিদর্শন করেন এবং বধ্যভূমির পাশে পার্ক নির্মাণকাজ নিয়ে আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিটন আলীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন। ইউএনও বধ্যভূমি শিশুপার্ক নির্মাণকল্পে একটি ডিজাইন এমপি ছেলুনকে দেখান। তিনি পার্কের ডিজাইন দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন।
এসময় তিনি বলেন, এ পার্কটি শুধু চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থায় হবে না, একই সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগের ইতিহাসও নতুন প্রজন্মকে স্মরণ করিয়ে দেবে। যাদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে, সে সব সূর্য সন্তান জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাঁদেরকে উপযুক্ত সম্মান জানাতে হবে। নতুন প্রজন্মকে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের গৌরবগাঁথা স্মরণ করিয়ে দিতে হবে। স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর নির্যাতন অত্যাচারে প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন, তাদের সুমহান স্মৃতিকে উত্তর প্রজন্মের নিকট পৌঁছে দিতে আলমডাঙ্গা বধ্যভূমি স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করেছিলাম।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল বারী, থানার অফিসার ইনজার্জ (ওসি) আলমগীর কবির, প্রকল্প কর্মকর্তা এনামুল হক, পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহম্মেদ ডন, কুমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাইদ পিণ্টু, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন, প্রেসক্লাব সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মণ্টু, সম্পাদক হামিদুল ইসলাম আজম প্রমুখ।
পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার। মতবিনিময়কালে তিনি পৌর নির্বাচন সম্পর্কে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা করেন। তিনি বলেন, আগামী ১৪ তারিখের পৌর নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। চুয়াডাঙ্গা ও দর্শনায় নৌকার জয় পেয়েছি। আশা করি উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে এখানেও নৌকার জয় পাব।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর নির্বাচনে নৌকার প্রতীকের মেয়র প্রার্থী হাসান কাদির গনু, জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুর রহমান পিণ্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহ আলম মণ্টু, হামিদুল আজম, কুমারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু সাইদ পিণ্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজি শমসের মল্লিক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী অরুন, আতিয়ার রহমান, আলম হোসেন, প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা তুহিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালমুন আহম্মদ ডন, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল হক, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন সরকার, যুবলীগ নেতা আহসান উল্লাহ, সাজ্জাদ হোসেন স্বপন, জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান, জেলা মৎসজীবী লীগের আহ্বায়ক সাহাবুল হক, রেজাউল হক প্রমুখ।