নারী ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে টাকা ও চাল আত্মসাতের অভিযোগ

147

প্রতিবেদক, কালীগঞ্জ:
কালীগঞ্জে অসহায় হতদরিদ্রদের সরকারি বিভিন্ন ভাতা কার্ড পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক নারী ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত নারী উপজেলার ৮ নম্বর মালিয়াট ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য শাহিনা বেগম। তাঁর এহেন অপকর্মের বিচার চেয়ে ভুক্তভোগী কমেলা বেগম রোববার (৩ মে) কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর এক লিখিত অভিযোগ করেছেন।
প্রতারণার শিকার ওই গ্রামের ১০ জন ভুক্তভোগী স্বাক্ষরিত অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন, ওই নারী সদস্য শাহিনা বেগম নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন সময়ে এলাকার মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন। তিনি তাঁর ওয়ার্ডের পাঁচকাহুনিয়া গ্রামের অসহায় দুস্থ নারীদের বিধবা ভাতা, পুরুষদের বয়স্ক ভাতা, পঙ্গু ভাতা ও সরকারি গভীর নলকূপ পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এছাড়াও ওই গ্রামের হতদরিদ্র মহিলা ফরিদা বেগমের ১৫ মাসের ভিজিডির চাল উত্তোলন করে আত্নসাৎ করেছেন। টাকা নিয়ে তিনি গত এক-দেড় বছর ধরে ভুক্তভোগীদের সঙ্গে নানা তালবাহানা করছিলেন। সর্বশেষ বাধ্য হয়ে অসহায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।
ইউপি সদস্য শাহিনা বেগম তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে বলেন, অভিযুক্তদের অনেকেরই তিনি চিনেন না। পরিষদের কাজ-কর্ম তাঁর স্বামী ফসিয়ার মৃধাই বেশি করেন। তিনি কারো নিকট থেকে কোনো টাকা নেননি। তবে তাঁর স্বামী টাকা নিয়েছেন কি না, শুনে পরে জানাবেন বলে তিনি জানান। এর কিছু সময় পরই আব্দার রহমান নামে শাহিনা বেগমের এক প্রতিবেশী মোবাইল করে সাংবাদিকদের জানান, মহিলা সদস্য নির্দোষ। তিনি কোনো টাকা নেননি। তাঁর নামে অভিযোগ করে একটি পক্ষ হয়রানির চেষ্টা করছ্।ে
এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সূবর্না রানী সাহা জানান, দুস্থ অসহায়দের কার্ড দেওয়ার কথা বলে এক নারী ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের তদন্তপূর্বক দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে তিনি জানান।