চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ১৩ নভেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নতুন টার্গেট ডিসেম্বর : বিএনপি এখনো সমাবেশের অনুমতি পায়নি

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ১৩, ২০১৬ ১২:৩৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ewrwr

সমীকরণ ডেস্ক: সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি পায়নি বিএনপি। দলটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সমাবেশের অনুমতির জন্য আজ দুপুর পর্যন্ত অপেক্ষা করবে তারা। এ সময়ের মধ্যে অনুমতি পাওয়া গেলেও সফলভাবে সমাবেশ করার সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে তাদের। কিন্তু অনুমতি না পেলে নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলন করে দলের পরবর্তী অবস্থান জানানো হবে। তবে অনুমতি উপেক্ষা করে সমাবেশ করবে না বিএনপি। ডিসেম্বরে বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে সমাবেশের পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে তারা। শনিবার সন্ধ্যায় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, শেষ পর্যন্ত সমাবেশ করার অনুমতি পাওয়া যাবে এমনটি আশা করছেন তারা। আজ দুপুরের মধ্যে অনুমতি দিলেও সমাবেশ করার মতো প্রস্তুতি তাদের রয়েছে। শেষ পর্যন্ত অনুমতি পাওয়া না গেলে পরবর্তী করণীয় আজ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘোষণা করা হবে।
বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে ৭ ও ৮ নভেম্বর উন্মুক্ত স্থানে সমাবেশের অনুমতি না পেয়ে আজ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার ঘোষণা দেয় বিএনপি। গত ৮ নভেম্বর ডিএমপিতে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে চিঠিও পাঠানো হয়। কিন্তু গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত অনুমতি দেয়া হয়নি। এ ব্যাপারে পরে দলীয় অবস্থান ঠিক করতে রাতে সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। জানা গেছে, সমাবেশের অনুমতি না দেয়ায় প্রতিবাদ কর্মসূচি দেয়া হতে পারে। এ ছাড়া ডিসেম্বরে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে আরেকটি সমাবেশ করার চিন্তা করছে বিএনপি।
সমাবেশের বিষয়ে বিএনপির সিনিয়র এক নেতা বলেছেন, সংঘাতে যাওয়ার কোনো পরিকল্পনা আপাতত বিএনপির নেই। এ কারণেই তারা অনুমতি নিয়েই জনসম্পৃক্ততামূলক কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামতে চান। বিএনপির ওই নেতা আরও বলেন, দাবি পূরণে সরকারকে বাধ্য করতে হলে মাঠের আন্দোলন করেই করতে হবে, সেটা বিএনপি ভালোভাবেই বোঝে। সেজন্য একদিন না একদিন প্রশাসনের আদেশ উপেক্ষা করেই ‘গণতান্ত্রিক’ আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে হবে। কিন্তু সেই আদেশ উপেক্ষা করার সময় এখনো আসেনি। এ জন্য সর্বোচ্চ সংযম দেখিয়ে বারবার বিভিন্ন পর্যায়ে অনুমতি চাওয়া হবে সমাবেশের জন্য। এরপরও না দিলে আপাতত প্রতিবাদ কর্মসূচি দেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে।
এদিকে সমাবেশের বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য জানাতে গতকাল দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। পুলিশ প্রশাসনের উদ্দেশে রিজভী বলেন, ‘বিএনপিকে সমাবেশ অনুমতিদানে কোনো প্রকার টালবাহানা, গড়িমসি না করে অনুমতি দিন। আপনারা আওয়ামী লীগের নয়, জনগণের সেবক হিসেবে আইনানুগ আচরণ করুন। পৃথিবীতে কখনোই প্রশাসনকে দলীয়করণ করে কোনো একদলীয় শাসনব্যবস্থার একনায়কের শেষ রক্ষা হয়নি। ক্ষমতাসীনদের মায়ামুগ্ধ হয়ে জনগণের অধিকারকে হরণ করে নিজেদের গণশত্রুতে পরিণত করবেন না। বিএনপির জনসভা সফল করতে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেবেন।’
রিজভী অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী এবং তাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ভয় ও শঙ্কার রোগে ভুগছে। মানুষের জমায়েতের কথা শুনলেই তারা শঙ্কিত হয়ে ওঠে। তার কারণ বিরোধী দল আয়োজিত এ ধরনের গণজমায়েতে সরকারের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ফুটে ওঠে। এই আশঙ্কায় সরকার পুলিশকে দিয়ে বিরোধী দলের সংবিধান স্বীকৃত কর্মসূচিকে নস্যাৎ করে চলেছে।
প্রশাসনের উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘পুলিশ কিসের প্রতিশোধ নিচ্ছে? ক্ষমতাবিলাসীদের স্বার্থপরতা রক্ষায় পুলিশ কেন ভূমিকা রাখছে? দেশকে কেন সর্বনাশের ধাক্কায় অতল গহ্বরের দিকে টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পুলিশ যদি এ ধরনের অগণতান্ত্রিক, অনিয়মতান্ত্রিক, বেআইনি এবং সংবিধানবিরোধী ভূমিকা অব্যাহত রাখে, তবে জনগণের কাছে তাদের একদিন জবাবদিহি করতেই হবে।’

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।