দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিলেন এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার

22

চুয়াডাঙ্গা জেলায় প্রায় সাড়ে ২৩ হাজার মানুষের দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ সম্পন্ন
নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় চলমান গণটিকাদান কর্মসূচিতে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। গতকাল বুধবার সকাল পৌনে ১০টায় জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেন তিনি। জেলা সিভিল সার্জন ডা. এ এস এম মারুফ হাসানের উপস্থিতিতে এমপি ছেলুন জোয়োর্দ্দারের শরীরে টিকার দ্বিতীয় ডোজ পুশ করেন সদর হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রোমানা সুলতানা।
এসময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ও করোনা টিকাদান কমিটির আহ্বায়ক ডা. আওলিয়ার রহমান এবং সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার অফিসার ডা. এএসএম ফাতেহ্ আকরাম।
গতকাল বুধবার জেলায় ৭৮৮ জন করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলার ১৮৮ জন, আলমডাঙ্গার ২৪০ জন, দামুড়হুদার ২১০ জন ও জীবননগরের ১৫০ জন। এখন পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন ২৩ হাজার ২২৪ জন। এর মধ্যে সদর উপজেলার ৭ হাজার ৭০৩জন, আলমডাঙ্গার ৬ হাজার ১২৩জন, দামুড়হুদার ৫ হাজার ৫২৩ জন ও জীবননগের ৩ হাজার ৮৭৫ জন করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে ১৪ হাজার ৮১৮ জন পুরুষ ও ৮ হাজার ৪০৬ জন নারী।
করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে গত ২৭ জানুয়ারি দেশে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে গণটিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়। চলতি মাসের ৮ এপ্রিল থেকে টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হয়। এইদিন চুয়াডাঙ্গা জেলার জন্য বরাদ্দকৃত দ্বিতীয় ডোজের প্রথম ধাপে ৩ হাজার ৯শ ভায়েল বা ৩৯ হাজার টিকা বুঝে নেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. এ এস এম মারুফ হাসান।
এদিকে, গত ২৫ তারিখ চুয়াডাঙ্গায় সর্বোশেষ করোনা টিকার প্রথম ডোজ প্রদান করা হয়। ২৬ এপ্রিল থেকে সারা দেশের ন্যায় চুয়াডাঙ্গায়তেও করোনা টিকার প্রথম ডোজ প্রদান কর্মসূচি বন্ধ রাখা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গায় এ পর্যন্ত ৫৭ হাজার ৮৭১ জন করোনা টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১০ হাজার ৬৪৯ জন, আলমডাঙ্গায় ২৭ হাজার ৮৮২ জন, দামুড়হুদায় ১২ হাজার ৪৩২ জন ও জীবননগরে ৬ হাজার ৯০৮ জন প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন।