দৌড়ে প্রাণে রক্ষা পেল রাজ্জাক মেম্বার : মোটরসাইকেল ভাংচুর

446
OLYMPUS DIGITAL CAMERA

কার্পাসডাঙ্গায় কলাগাছ ফেলে যুবলীগ নেতার পথরোধ করে সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলা

কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের মেম্বার আব্দুর রাজ্জাকের উপর সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম করেছে। গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে রাস্তার উপর কলাগাছ ফেলে ১০-১১ জনের একদল দূর্বৃত্ত তাকে মেরে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় সন্ত্রাসীরা রাজ্জাক মেম্বারের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি ভেঙে গুড়িয়ে দেয়। পরে কৌশলে দৌড়ে পালিয়ে রক্ষা পান। এঘটনার পর থেকে কার্পাসডাঙ্গা ফাঁড়ি পুলিশ হামলাকারী
দূর্বৃত্তদের আটক করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।
জানা গেছে, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মৃত তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৪০) গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটরসাইকেলযোগে আরামডাঙ্গা-পীরপুরকুল্লার সড়কের মোড়ে পৌছালে কে বা কারা রাস্তার কলাগাছ দিয়ে বেরিকেড দেয়। এসময় রাজ্জাক মেম্বার বাইকের গতি কমালে ১০/১১ জনের একদল সন্ত্রাসী তার উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং তাকে বেধরক পেটাতে থাকে। একপর্যায়ে রাজ্জাক মেম্বার সন্ত্রাসীদের হাত থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে নিয়ে দৌড়ে পালিয়ে রক্ষা পান। এসময় সন্ত্রাসীরা তার ব্যবহৃত হিরো হোন্ডা মোটরসাইকেলটি ভেঙে গুড়িয়ে রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে।
এদিকে রাজ্জাকের উপর নির্মম হামলার ঘটনায় গোটা এলাকা অজানা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তবে পুলিশি টহলও জোরদার করা হয়েছে।
রাজ্জাক মেম্বার সাংবাদিকদের জানান, আমার উপর যখন হামলা হয়, তখন আমি আমার মোটরবাইকটি ফেলে পালিয়ে আসি। আমাকে মরধরের সময় আমি কৌশলে ঝাপ মেরে পালিয়ে যায়। আমার মোটরবাইকটি সন্ত্রাসীরা ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছে।
কার্পাসডাঙ্গা ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আসাদ বলেন, হামলার ঘটনার পর থেকে হামলাকারি সন্ত্রসীদের আটক করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এবং অত্র এলাকায় পুলিশি টহলও জোরদার করেছি।
এ হামলার ঘটনায় কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন আ.লীগ নেতৃবৃন্দ নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন। এবং সেই সাথে হামলাকারিদের দ্রুত গ্রেফতার করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আহবান জানিয়েছে।