চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ১৭ মে ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দেশের উন্নয়ন ও অর্জন বিএনপি চোখে দেখে না: ওবায়দুল কাদের

পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হলেন ফরহাদ হোসেন এমপি ও সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মে ১৭, ২০২২ ৮:০৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মেহেরপুর জেলা আ.লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন

 

সমীকরণ প্রতিবেদন:

সাত বছর পর মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টায় মেহেরপুর শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন এমপি। রাজধানীর নিজ বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সম্মেলনের উদ্বোধনকালে তিনি সম্মেলনের দায়িত্বশীলদের উদ্দেশ্যে বলেন, ত্যাগী ও দলের বিগত কমিটির অবহেলিত নেতা-কর্মীদের জায়গা দিতে হবে। কোনো চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, অবৈধ অর্থ পাচারকারীদের পরিবর্তে ত্যাগী নেতা-কর্মীদের দলের কমিটিতে রাখতে হবে। আওয়ামী লীগে অনেক ভালো লোক আছে। দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে তাঁদের পদায়ন করতে হবে। বসন্তের কোকিলরা দুঃসময়ে থাকবে না। সুবিধাভোগীদের দুঃসময়ে হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়ে খুঁজে পাওয়া যাবে না।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও বিএনপি নেতাদের সংযত হয়ে কথা বলার পরামর্শ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা প্রধানমন্ত্রীকেও অসম্মান করে কথা বলেন। যা চরম শিষ্টাচার বহির্ভূত। অর্থ পাচারের সাথে জড়িতদের তালিকা প্রকাশ করার কথা বলেছেন। মির্জা ফখরুল সাহেব আপনি কালো চশমা পরে বক্তব্য রাখছেন। বাংলাদেশের অর্থ পাচারের আসামি বিএনপি নেত্রী আপনাদের মা ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তালিকায় এক নম্বরে আছেন। আওয়ামী লীগের কেউ অর্থ পাচার করলে শেখ হাসিনা কাউকে ছাড় দেন না। তার জলন্ত উদাহরণ ফরিদপুরে।’ তিনি বলেন, অর্থপাচার মামলায় ভারতে আটক পিকে হালদার আওয়ামী লীগের কেউ নয়। আর অর্থপাচারকারীদের তালিকা করতে হলে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের নয়, আগে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বিএনপি নেতা যারা অর্থ পাচার করেছেন তাদের তালিকা করতে হবে।

 

মির্জা ফখরুলকে হুঁশিয়ারী দিয়ে কাদের আরও বলেন, ‘তথ্য-প্রমাণ ছাড়া কোনো কথা বলবেন না। খুব বাড়াবাড়ি করছেন আপনি। প্রধানমন্ত্রীর নামটি উচ্চারণেও সম্মানবোধ করেন না আপনি। প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা।’

মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেকের সঞ্চালনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দীন নাসিম এমপি। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য আমিনুল আলম এমপি, পারভীন জামান কল্পনা এমপি, গ্লোরিয়া ঝর্ণা এমপি, গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেহেরপুর-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন।

সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ক্ষমতা থেকে আওয়ামী লীগ নয়, বরং জনগণ মনে করে আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থতার দায়ে মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির টপ টু বটম (বড়-ছোট সব) নেতাদের পদত্যাগ করা উচিত। শেখ হাসিনার নেতৃত্বের আলোয় বাংলাদেশ আজ আলোকিত হয়েছে। দেশের উন্নয়ন ও অর্জন বিএনপি চোখে দেখে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশের চলমান উন্নয়ন-অর্জন ধরে রাখতে হলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামীতেও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা রাখতে হবে। দেশের গণতন্ত্র, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশকে বাঁচাতে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচন ও আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে এখন থেকেই দলকে সুসংগঠিত ও স্মার্ট হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে।

প্রথম পর্বের আলোচনা সভা শেষে বিকেলে সম্মেলনের ২য় অধিবেশন শুরু হয়। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাসিম নতুন কমিটির নাম ঘোষণা করেন। তিনি পুনরায় সভাপতি হিসেবে ফরহাদ হোসেন এমপি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এম এ খালেকের নাম ঘোষণা করেন। এছাড়া সহসভাপতি হিসেবে অ্যাড. মিয়াজান আলী, জিয়াউদ্দিন বিশ্বাস, আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস, আব্দুল মান্নান, অ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আড. ইব্রাহীম শাহীন, সদস্য পদে সাবেক এমপি প্রফেসর আব্দুল মান্নান ও সাবেক এমপি জয়নাল আবেদীনের নাম ঘোষণা করা হয়। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সর্বশেষ সম্মেলনে ফরহাদ হোসেন সভাপতি এবং এম এ খালেক সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হয়েছিলেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।