দুই দিনের ব্যবধানে আবার তিনটি গরু চুরি

57

আলমডাঙ্গার বন্ডবিলে ঘটছে একের পর এক চুরির ঘটনা
ভ্রাম্যমাণ প্রতিবেদক, আলমডাঙ্গা:
আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার বন্ডবিলে গত চার মাস ধরে ঘটছে একের পর এক চুরির ঘটনা। দুই দিনের ব্যবধানে আবারও তিনটি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবার দিবাগত রাতে আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার বন্ডবিল গ্রামের করিম পাড়ার মৃত রওশন আলীর ছেলে চাঁদ আলীর গোয়াল থেকে তিনটি গরু চুরি হয়েছে। এনিয়ে গত চার মাসে বন্ডবিল গ্রামে চারটি মহিষ ও নয়টি গরু চুরি হয়েছে বলে জানা গেছে। একের পর এক গ্রামে চুরির ঘটনায় যেমন দিশেহারা হয়ে পড়েছে গ্রামের মানুষ।
চুরি হওয়া গরুর মালিক চাঁদ আলী বলেন, বেশ কিছুদিন আগে আমি তিনটি গরু বাজার থেকে কিনে বাড়িতে লালন পালন করছি। আমি কৃষি কাজ করে আমার সংসার চালায়। আমার গরু তিনটি আমি সন্ধ্যা ছয়টার দিকে গোয়ালঘরে দড়ি দিয়ে গরু তিনটি বেঁধে রাখি ও গোয়াল ঘরের গেটে তালাবদ্ধ করি। রাত ১২টার দিকে ঘুম থেকে উঠে আমার ছেলে গরু গুলোর খাবার দেই। খাবার দিয়ে ঘুমাতে চলে যায়, রাত দুইটার দিকে আমার মেয়ের কান্না শুনে ঘুম থেকে উঠে জানতে পারি গোয়াল ঘরে গরু নাই।
চাঁদ আলীর মেয়ে সুফিয়া খাতুন জানান, প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে আমি ঘরের বাইরে আসি, গোয়াল ঘরে আমাদের গরুর কোন নড়াচড়া না দেখে গোয়াল ঘরের নিকট এগিয়ে দেখি আমাদের তিনটি গরুর একটিও নাই ও দড়ি কাটা অবস্থায় পড়ে আছে। সাথে সাথেই আমি চিৎকার করে কান্নাকাটি শুরু করি।
এ বিষয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষ বলেন, একের পর এক গ্রামে চুরির ঘটনা ঘটছে, এসব চুরির সাথে কে বা কাহারা জড়িত আমরা এখনও জানি না। আমরা এখন জানমালের নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি। একের পর এক গ্রামে চুরির ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের হলেও এখনো পর্যন্ত এই চার মাসে কোন চোর ধরা পড়ে নাই। দুই দিন আগে লিটনের সংসার চালানোর সম্বল জোড়া মহিষ হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ছে লিটনের পরিবার। আবার চুরি হলো চাঁদ আলীর তিনটি গরু।
এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবির জানান, আলমডাঙ্গা থানার গরু চুরির ব্যাপারে গরুর মালিকের ছেলে মিনারুল ইসলাম বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আমরা দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা করছি।