চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ৪ জানুয়ারি ২০১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দীর্ঘ যানজট : ইস্পাতের প্লেট দিয়ে মেরামত : দুর্ঘটনার আশঙ্কা

সমীকরণ প্রতিবেদন
জানুয়ারি ৪, ২০১৮ ৪:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গার মাথাভাঙ্গা সেতুতে আবারও ধ্বস : প্রায় দু’ঘন্টা সবধরনের চলাচল বন্ধ
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর জেলার একমাত্র সংযোগ সেতু মাথাভাঙ্গা ব্রিজের মাঝখানের অপর আরেকটি অংশ ধসে পড়েছে। দীর্ঘদিন যাবত ঝুঁকিপূর্ণভাবে এ ব্রিজে যানবাহন চলাচলের পর তা আবারো ধ্বসে পড়ে। তাৎক্ষনিকভাবে ব্রিজটি সাময়িক যানচলাচলের উপযোগী করার জন্য কাজ শুরু করে চুয়াডাঙ্গা সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এসময় চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর জেলার মধ্যে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায় এবং প্রায় দুই ঘন্টা যাবত ব্রিজের দু’পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। গতকাল বুধবার বিকাল ৩টার দিকে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়।


জানা যায়, ১৯৬০ সালের দিকে চুয়াডাঙ্গা শহরের পশ্চিম অংশে মাথাভাঙ্গা নদীর উপর নির্মিত হয় ব্রিজটি। যা চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর জেলার একমাত্র সংযোগ সেতু। মাথাভাঙ্গা ব্রিজ নামে পরিচিত সেতুটির দৈর্ঘ্য ১৪০ মিটার। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে পাকবাহিনী বোমা ফেলে ব্রিজের কিছু অংশ উড়িয়ে দেয়। সেই সময় ওই ভাঙ্গা অংশ মেরামত করা হয়। তারপর থেকে সেতুটি ব্যবহার হয়ে আসছিল। এরপর ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে ব্রিজের মাঝের অংশ ধ্বসে পড়ে। পরে সেটি ইস্পাতের প্লেট দিয়ে মেরামত করা হয়। এবং এই ব্রিজের উপর দিয়ে সকল প্রকার ভারী যানবাহন চলাচলের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ব্রিজের উপর দিয়ে সব ধরনের ভারী যানবাহন চলাচল করতে থাকে। এরপর বিগত ১ বছরেরও অধিক সময় ধরে ব্রিজের মাঝের অংশ আবারো ধ্বসে পড়ে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেননি। সর্বশেষ গতকাল বুধবার ব্রিজের মাঝখানের অপর একটি অংশ ধ্বসে পড়ে। এমতবস্থায় যানচলাচলে প্রচন্ড ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ায় তাৎক্ষনিকভাবে চুয়াডাঙ্গা সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ ব্রিজে পুনরায় ইস্পাতের প্লেট দিয়ে যানচলাচলের জন্য সাময়িক উপযোগী করে তোলা হয়। এসময় চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর প্রধান সড়কে প্রায় দু’ঘন্টা যাবত দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। মাথাভাঙ্গা ব্রিজসংলগ্ন গ্রামের স্থানীয়রা জানায়, ব্রিজ চালুর পর থেকে অদ্যাবধি কোন সংস্কার কাজ করতে দেখা যায়নি, যে কারণে ব্রিজের নিচের কলাম বিমে বটগাছসহ ঝোপঝাড়ের সৃষ্টি হয়েছে। কোন কোন স্থানে পলেস্তরা খসে গিয়ে রড বেরিয়ে পড়েছে।
এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী শেখ জাহাঙ্গীর হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ব্রিজের মাঝের অংশে ধ্বসে যেখানে ইস্পাতের প্লেট লাগানো হয়েছিলো তার পাশ থেকেই আবার ধ্বস নেমেছে। স্বাভাবিকভাবে যানচলাচল করার জন্য সাময়িকভাবে ব্রিজটি মেরামত করা হচ্ছে। তবে ব্রিজটি প্রচন্ড ঝুঁকিপূর্ণ বলে তিনি জানান, এ ব্রিজে কোন ভারী যানবাহন চলাচল করতে পারবেনা। খুব দ্রুতই নতুন ব্রিজ নির্মাণ করতে হবে। ব্রিজের উপর দিয়ে প্রতিনিয়ত ভারী যানবাহন চলাচল করছে সাংবাদিকদের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, এ বিষয় তাদের দেখার দায়িত্ব না। ট্রাফিক পুলিশ এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।