চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ২১ মার্চ ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান, দেড় যুগ পর আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন আজ

সব প্রস্তুতি সম্পন্ন, কারা আসছেন নতুন নেতৃত্বে?
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মার্চ ২১, ২০২২ ৮:০৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

পোস্টার, ব্যানার-ফেস্টুনে সাজানো হয়েছে পৌর শহর, নেতা-কর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ

খ. হামিদুল আজম/নাহিদ হাসান:

আলমডাঙ্গায় দীর্ঘ দেড় যুগ পরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। আজ ২১শে মার্চ সোমবার সকাল ১০টায় আলমডাঙ্গা সরকারি কলেজ মাঠে বহু প্রতিক্ষিত এ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে, সম্মেলনকে ঘিরে ইতঃমধ্যে শেষ হয়েছে সকল প্রস্তুতি। তবে আগামীতে কে আসছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে, তা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা যায়, সর্বশেষ আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০০৪ সালের ৮ মার্চ। ওই সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন বর্তমান সভাপতি পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ। ৭১ সদস্যবিশিষ্ট এই কমিটির নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামসহ নানা চড়াই-উৎরায় পেরিয়ে এসেছে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর তিন ট্রাম আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত আছে। সেই সম্মেলনে গঠিত হওয়া কমিটি নানা প্রতিকূল-অনুকূল পরিবেশ অতিক্রম করে দীর্ঘ ১৮ বছর অতিক্রম করেছে। কেন্দ্রীয় নির্দেশ মোতাবেক আওয়ামী লীগকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে ইতঃমধ্যে এ জেলার আরও দুটি উপজেলা জীবননগর ও দামুড়হুদায় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ধারাবাহিকতায় দীর্ঘ ১৮ বছর পর আজ জেলার সর্ববৃহৎ উপজেলা আলমডাঙ্গা উপজেলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

এবারে সম্মেলনে এখন পর্যন্ত সভাপতি পদে দুজন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। তাঁরা হলেন- বর্তমান সভাপতি পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু ও পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি জেলা পরিষদের সদস্য আবু মুসা। অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার ও অ্যাডভোকেট মোখলেছুর রহমানের নাম শোনা গেছে। এর বাইরে এখন পর্যন্ত সভাপতি-সম্পাদক পদে আর কারো নাম শোনা যায়নি। তবে সম্মেলনের শেষ সময়ে আরও দু-একজনের নাম আলোচনায় উঠে আসতে পারে বলে জানা গেছে।

এদিকে সম্মেলনকে ঘিরে আলমডাঙ্গায় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। জেলার আওয়ামী রাজনীতির অভিভাবক জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি সার্বক্ষণিক সম্মেলন প্রস্তুতির খোঁজখবর রাখছেন। সম্মেলন সফল করতে তিনি গত কদিন প্রায়ই আলমডাঙ্গায় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন। সম্মেলনকে ঘিরে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌর শহরের চায়ের দোকান, বাজার-হাটে ও আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের মাঝে নানা আলোচনা-সমালোচনা চলছে।তবে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতা-কর্মীরা চাচ্ছেন, দীর্ঘদিন পর এই সম্মেলনে একটি শক্তিশালী কমিটি পুনরায় উপহার দেবে জেলা কমিটি। তৃণমূলের কর্মীদের দাবি, আগামী ২৩ সালের শেষের দিকে সংসদ নির্বাচন, সেই নির্বাচনকে ঘিরে সরকার দলকে শক্তিশালী করতে চায়। যেন যেকোনো আন্দোলন-সংগ্রামে এই কমিটি ভূমিকা রাখতে পারে।

এদিকে, ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে আলমডাঙ্গা পৌর শহর সেজেছে এক নতুন রুপে। পোস্টার, ব্যানার-ফেস্টুনসহ সাজানো হয়েছে শহরের প্রধান প্রধান সড়কে। যা সম্মেলনকে আরও আনন্দময় করে তুলেছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক নেতা-কর্মীরা। এছাড়াও নেতা-কর্মীরা তাঁদের ছবিসহ ফেস্টুন উত্তোলনের মাধ্যমে তাঁদের পরিচিতি বাড়িয়ে তুলছেন।

আজকের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাদির গনুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য পারভীন জামান কল্পনা, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ এবং জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর। আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টারের সঞ্চালনায় সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।

সম্মেলনে প্রস্তুতি সম্পর্কে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার দৈনিক সময়ের সমীকরণকে বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অতিথিদের আগমন ও সম্মেলন সফল করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের নির্দেশে সম্মেলনকে সফল করার লক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা তুহিন বলেন, কাউন্সিলর, ডেলিগেট, স্বেচ্ছাসেবকসহ দাওয়াতপত্র কার্ড বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। সম্মেলন সফল করার লক্ষে উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা দিনরাত এক করে পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

আলমডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান ফারুক বলেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোলাইমান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের নির্দেশনায় আলমডাঙ্গা সরকারি ডিগ্রি কলেজ মাঠে সম্মেলনের প্যান্ডেল, মঞ্চ, অতিথিদের আপ্যায়নস্থল সকল কিছু সম্পন্ন  হয়েছে। পাঁচশ কাউন্সিলর, পাঁচ হাজার ডেলিকেট, ছয় হাজার নিমন্ত্রিত অতিথি, পাঁচশ স্বেচ্ছাসেবকের উপস্থিতিতে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। আশা করি সফলভাবে সম্মেলন সম্পন্ন হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।