চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ৬ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দাম বেড়েছে গ্যাসের

এক চুলা ৯৯০, দুই চুলা ১০৮০, বাড়ছে না যানবাহনে ব্যবহৃত সিএনজির দাম
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুন ৬, ২০২২ ৮:৪৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন: নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে আগে থেকেই সাধারণ মানুষ অস্বস্তিতে আছেন। এর সঙ্গে নতুন করে যোগ হলো জ্বালানি গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি। রান্নার গ্যাস দুই চুলার মাসিক বিল ৯৭৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ১০৮০ টাকা। দুই চুলায় মূল্যবৃদ্ধি ১০৫ টাকা। আর এক চুলার মাসিক বিল ৯২৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৯৯০ টাকা। এক চুলায় বৃদ্ধি ৬৫ টাকা। প্রিপেইড মিটারে প্রতি ইউনিটের দাম ১২ টাকা ৬০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ১৮ টাকা। ইউনিট প্রতি দাম বাড়ল ৫ টাকা ৪০ পয়সা। গ্যাসের নতুন দাম চলতি জুন মাস থেকেই কার্যকর করা হয়েছে। সবশেষ ২০১৯ সালের ১ জুলাই গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছিল। তিন বছরের মাথায় আবার বাড়ানো হলো গ্যাসের দাম। গতকাল রোববার গ্যাসের নতুন দামের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রাকৃতিক গ্যাসের নতুন দাম ঘোষণা করেন বিইআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবু ফারুক। তিনি জানান, ঘরোয়া ব্যবহারের পাশাপাশি প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের পাইকারি দাম ৯ টাকা ৭০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১১ টাকা ৯১ পয়সা করা হয়েছ্।ে খুচরা পর্যায়ে এই মূল্য সমন্বয় করে সব পর্যায়ে গ্যাসের জন্য খরচ বাড়লেও যানবাহনে ব্যবহৃত সিএনজি গ্যাসের দাম বাড়নো হয়নি। মূল্যবৃদ্ধির ফলে বিদ্যুতে প্রতি ঘনমিটার ৫ টাকা ২ পয়সা, ক্যাপটিভ ও সার কারখানায় ১৬ টাকা, শিল্প কারখানায় ১১ টাকা ৯৮ পয়সা, মাঝারি শিল্পে ১১ টাকা ৭৮ পয়সা, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে ১০ টাকা ৭৮ পয়সা, চা শিল্পে ১১ টাকা ৯৩ পয়সা, বাণিজ্যিক ব্যবহারে ২৬ টাকা ৬৪ পয়সা, ফিড গ্যাস সিএনজি অপরিবর্তিত ৪৩ টাকা এবং আবাসিকের প্রিপেইড মিটার গ্রাহকদের ১৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

গ্যাসের দাম বাড়ানোর যুক্তি হিসেবে পেট্রোবাংলা কর্তৃপক্ষ বলেছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে এলএনজির দাম বেড়ে গেছে। যে কারণে স্পট মার্কেট থেকে চড়া দামে এলএনজি আমদানি করতে হচ্ছে। এ জন্য ১১৭ শতাংশ দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করে পেট্রোবাংলা। তবে বিইআরসির কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি ২০ শতাংশ দাম বৃদ্ধির পক্ষে গণশুনানিতে মত দেয়। কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)-এর সহসভাপতি ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ড. শামসুল আলম গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, বরাবরের মতো এবারও গণশুনানি প্রহসনে পরিণত হলো। এখানে কোনো যুক্তি তথ্যই আমলে নেওয়া হয়নি।

 

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।