চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ২৯ আগস্ট ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দামুড়হুদা ঠাকুরপুর সীমান্তে বিজিবির নাম ভাঙ্গিয়ে অপকর্মে আবারও তৎপর দালাল কায়জার

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ২৯, ২০১৬ ৮:২৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

df (1)দর্শনা অফিস: দামুড়হুদা উপজেলার কুড়–লগাছী ও ঠাকুরপুর সীমান্তে বিজিবির হাতে আটক বহু অপকর্মের হোতা দালাল কায়জার আলী জামিনে মুক্তি পেয়ে পুনরায় অপকর্মের বিভিন্ন ফাঁদ পাতায় মরিয়া হয়ে উঠেছে। দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের পীরপুর কুল্লা গ্রামের মখোলপাড়ার হাসেল মন্ডলের ছেলে কায়জার আলীকে সীমান্তে বিজিবি’র নাম ভাঙ্গিয়ে চোরাচালান, দালালীসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গত সপ্তাহে বিজিবি গ্রেফতারপূর্বক আদালতে সোপর্দ করলে হাজতবাস শেষে গত দু’দিন আগে সে জামিনে মুক্ত হয়ে পুনরায় কুড়–লগাছি, ঠাকুরপুর সীমান্তে চোরাচালানসহ দালালি কাজে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। গ্রেফতারের আগ পর্যন্ত সময়ে সীমান্ত থেকে দালাল কায়জার চোরাচালান ও দালালির মাধ্যমে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছে বলে এলাকায় ব্যাপক জনশ্র“তি রয়েছে। এলাকার অনেকেই জানান কায়জারের অত্যাচারে এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ। সে চোরাকারবারীদের লাইনম্যান হিসাবে কাজ করে অবৈধ্য পথে ঠাকুরপুর সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে শাড়ি-থ্রি পিস, ভারতীয় প্রসাধনী, জিরা, ফেন্সিডিলসহ চোরাকারবারীদের সাথে ব্যবসা করে আসছে। সে সীমান্তে গডফাদার হিসাবে পরিচিত। চোরাকারবারীদের নিকট কখনো বিজিবি, কখনো পুলিশ,আবার কখনো ডিবি পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে এসব অপকর্ম করে গেলেও বিজিবি, পুলিশ এদের কেউই জানে না। সীমান্ত পথে ধূর পাচার, অবৈধ্য পথে আসা ভারতীয় মোটর সাইকেল,শাড়ি, থ্রীপিচ,স্যান্ডেলসহ বিভিন্ন পণ্যের উপর থেকে বিজিবির নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা আদায় করে থাকে সে। ফলে কায়জার আলীর বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না। কায়জার আটক থাকাকালীন সময় এই সীমান্ত পথে ধূর পাচার, চোরাই ভারতীয় মোটরসাইকেল,শাড়ি, থ্রীপিস,স্যান্ডেল পারাপার বন্ধ ছিল। এলাকার সচেতন মহল মনে করেন কায়জারের বিরুদ্ধে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনই এই সীমান্তে চোরাচালান বন্ধসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পারে। সীমান্ত থেকে কায়জারের মত সকল দালালচক্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে বিজিবি ব্যাটেলিয়ন-৬ এর পরিচালকের  আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন এলাকাবাসী।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।