দামুড়হুদায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

29

প্রতিবেদক, দামুড়হুদা/দর্শনা অফিস:
দামুড়হুদায় নুরজাহান খাতুন (৪২) নামের এক নারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী জাহান আলীর বিরুদ্ধে। গতকাল শুক্রবার রাতে দুসন্তানের জননী নুরজাহান খাতুনকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকেই স্বামী জাহান আলী পলাতক রয়েছে। তবে শাশুড়িকে আটক করেছে দামুড়হুদা থানা পুলিশ। এদিকে, গতকালই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা-জীবননগর সার্কেল) মোহাম্মদ আবু রাসেল। এ ঘটনায় গতকালই নিহত নুরজাহানের ভাই ছুন্নত আলি বাদি হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় জাহান আলি ও তাঁর মায়ের নাম উল্লেখ করে ৬ জনের নামে মামলা দায়ের করেছে।
নিহতের মা রহিমন বেগম অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়েকে মাঝে মধ্যেই নির্যাতন করতো জামাই জাহান আলী ও তাঁর শাশুড়ি। এর আগে একবার আমার মেয়েকে তালাক দিয়েছিল। এরপর এলাকার প্রতিনিধিত্বশীল ব্যাক্তিরা তাঁদের সংসার জোড়া লাগিয়ে দেয়। এত কিছুর পরেও দুটি সন্তানের কথা ভেবে নুরজাহান আবার সংসারে ফিরে আসে। এরপরও জাহান আলী আমার মেয়েটিকে মারধর করতো।’
এ বিষয়ে স্থানীয় মেম্বার রিকাত আলী বলেন, আহত নুরজাহানকে রাতেই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শনিবার ভোর রাত ৪ টার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়।
দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিক তদন্তে নিহত গৃহবধূর শরীরের নির্যাতনের চিহ্ন পরিলক্ষিত হয়েছে। তাঁর মাথায় ও চোখে নির্মমভাবে আঘাত করা হয়েছে। আমরা সুরতহাল রিপোর্ট করেছি। এ ঘটনায় নিহতের ভাই সুন্নত আলী বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ে করেছে। নিহতের ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের সদস্যদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ঘাতক জাহান আলী পলাতক রয়েছে। তাঁকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ মাঠে কাজ করছে।