চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ১৬ মার্চ ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে কেন্দ্রীয় নেতা বি এম মোজাম্মেল হক

দলকে সুসংগঠিত করতে দক্ষ ও বিচক্ষণ নেতৃত্বের বিকল্প নেই
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মার্চ ১৬, ২০২২ ৮:২৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মাহফুজুর রহমার মঞ্জু সভাপতি ও হাজি শহিদুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

ওয়াসিম রয়েল:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ক্ষুধা, দারিদ্রমুক্ত, অসাম্প্রাদায়িক উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলা বিনির্মাণের লক্ষে দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দীর্ঘ দেড় যুগ পর দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের এ ত্রিবার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন হলো। অনুষ্ঠানটি দুই ভাগে বিভক্ত করে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় দামুড়হুদা উপজেলার শিল্পনগরী দর্শনা পৌর শহরের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম অধিবেশনে সম্মেলনের উদ্বোধন ও আলোচনা সভা এবং দ্বিতীয় অধিবেশনে বিকেল পাঁচটায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়।

অনুষ্ঠানের প্রথম অধিবেশনে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা  সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝণ্টুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক এমপি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়া দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। তাই এই দলকে আরও সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করতে দক্ষ এবং বিচক্ষণ নেতৃত্বের কোনো বিকল্প নেই। বিশেষ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে সকলকে হাতে হাত রেখে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশের প্রতিটি স্থানে যে উন্নয়নের রূপরেখা বিদ্যমান, তার মূলে রয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব। তিনি আরও বলেন, উন্নয়নের স্রোতধারা অব্যাহত রাখতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে পুনরায় ক্ষমতায় নিয়ে আসার জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

সম্মেলনের উদ্বোধক চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এমপি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে আরও সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করতে যোগ্য নেতৃত্বের কোনো বিকল্প নেই। তারই ধারাবাহিকতায় দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের দেড় যুগ পর এই কমিটি গঠনের মধ্যদিয়ে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড আরও গতিশীল এবং বেগবান হবে বলে আমি মনে করি।

দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জুর উপস্থাপনায় সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য পারভীন জামান কল্পনা, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সসদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাজি আলী আজগার টগর, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক া সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী মুনসুর বাবু, দর্শনা পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিয়ার রহমান, জীবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সভাপতি উপাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল এবং দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউপি চেয়ারম্যান এসএএম জাকারিয়া আলম।

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে বিকেল ৫টায় সকলের উপস্থিতিতে এবং তৃণমূল নেতা-কর্মীদের পরামর্শ অনুযায়ী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে মাহফুজুর রহমান মঞ্জু এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে হাজি শহিদুল ইসলামের নাম ঘোষণা করেন।

এদিকে সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দুটি পদের বিপরীতে আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা প্রার্থী হিসেবে প্রচার-প্রচারণা চালায়। এর মধ্যে সভাপতি পদে দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝণ্টু, চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, হাউলী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম ও জুড়ানপুর ইউনিউনের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন- দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী মুনছুর বাবু, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএএম জাকারিয়া আলম, দামুড়হুদা উপজেলার সাবেক  চেয়ারম্যান আ. আজিজ, শহিদুল ইসলাম ও আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. আবু তালেব। উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের এপ্রিল মাসে ৬৭ সদস্যবিশিষ্ট দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটি গঠনের পর আর কোনো কমিটি গঠন না হওয়ায় দীর্ঘ ১৮ বছর ২ মাস পর আবারো কমিটি হওয়ার দিনক্ষণ নির্ধারণ হওয়ায় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের মধ্যে এক প্রকার উৎসবের আমেজ বিরাজ করছিল।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।