দাফনকার্য সম্পন্ন, হত্যা মামলা দায়ের

32

নিহত ফার্মশ্রমিক জিনারুলের লাশ পৌঁছেছে আলমডাঙ্গায়
আলমডাঙ্গা অফিস:
ফরিদপুরে ফার্মশ্রমিক জিনারুল ইসলামকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার নিহত জিনারুলের বড় ভাই মিনারুল ইসলাম বাদী হয়ে দুজনের নাম উল্লেখ করে ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেন। এদিকে, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে গতকালই আলমডাঙ্গার গাংনীতে জিনারুলের লাশের দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়েছে।
জানা যায়, গত সোমবার ফরিদপুরে একটি এগ্রো ফার্মের পুকুর পাড় থেকে ফার্মের শ্রমিক জিনারুল ইসলাম ওরফে শুকুরের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত জিনারুল ইসলাম শুকুর আলমডাঙ্গা উপজেলার বড়গাংনী ইউনিয়নের সাহেবপুরের মৃত কাবুল মন্ডলের ছেলে। খবর পেয়ে গতকাল মঙ্গলবার জিনারুলের পরিবারের সদস্যরা ফরিদপুরে পৌঁছায়। এ ঘটনায় গতকালই নিহতের ভাই জিনারুল বাদী হয়ে ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে নিহতের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। গতকাল রাত ১১টার দিকে নিহতের লাশ আলামডাঙ্গার গাংনীতে পৌঁছায়। গতকাল রাতেই জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে জিনারুলের লাশের দাফন কার্য সম্পন্ন করা হয়।
এ বিষয়ে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ (অপারেশন) শহিদুল ইসলাম জানান, ‘ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের লাশ পরিবারের সদস্যদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই মিনারুল ইসলাম বাদী হয়ে দুজনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা করেছে। মামলার এজহার ভুক্ত আসামী দুজনই পলাতক রয়েছে। তাঁদেরকে গ্রেপ্তার ও হত্যা ঘটনার রহস্য উদঘাটনে পুলিশ কাজ করছে।’