চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ৩ আগস্ট ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দর্শনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনের ত্রুটিপূর্ণ ফল প্রকাশ : শ্রমিকদের মাঝে ক্ষোভ : নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ৩, ২০১৭ ৬:২৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দর্শনা অফিস: দর্শনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনের ফল প্রকাশ নিয়ে শ্রমিকদের মাঝে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গত ২৯ জুলাই চুয়াডাঙ্গা জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের দর্শনা শাখার দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আর এ নির্বাচন পরিচালনা করার জন্য সাধারণ সভার পরে একটি পুর্ণাঙ্গ নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়। যেখানে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পান প্রধান কার্যালয়ের সভাপতি এম জেনারেল ও সহকারী হিসাবে ছিলেন রিপন মন্ডল। এছাড়া সচিব হিসাবে ছিলেন মিন্টু। নির্বাচনের দিন সকাল ৮টা হতে বিকাল ৩টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে চলে ভোট গ্রহন। এরপর সনাতন পদ্ধতিতে ১০৪৮টি ভোট গণনা করা হয় মধ্যরাত পর্যন্ত। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত করে মধ্যরাতে যে ফলাফল প্রকাশ করা হয় সেটাও আবার ত্রুটিপূর্ন। ত্রুটিপূর্ণ ফলাফল প্রকাশ করা নিয়ে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির উপর শ্রমিকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে নির্বাচনের পর থেকে দর্শনার শ্রমিকদের মাঝেসহ বিভিন্ন মহলে আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে।
দর্শনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের ভোট গণনার পর মধ্যরাতে ফল প্রকাশ করা হয়। কোষাধ্যক্ষ পদে মজিবর রহমান চশমা প্রতীক নিয়ে ৪৩৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি লিটন ড্রাইভার কলস প্রতীক নিয়ে ৪৩৮ ভোট পান। হড্ডাহাড্ডি এ ভোট যুদ্ধে এক ভোটে ফলাফল অনুকুলে না আসায় লিটন ড্রাইভার পুণরায় ভোট গণনার জন্য নির্বাচন পরিচালনা কমিটি বরাবর আবেদন করেন। পরের দিন পুণরায় ভোট গণনার পর লিটন ড্রাইভার কলস প্রতীকে ৪৪৭ ভোট ও মজিবর ড্রাইভার চশমা প্রতীকে ৪৩৯ ভোট পেয়েছেন বলে জানানো হয়। একই সাথে আগের রেজাল্টে পরাজিত প্রার্থী লিটন ড্রাইভারকে বিজয়ী ঘোষণা করা। এবং ৮ ভোটে তিনি জিতেছেন বলেও জানানো হয়।
এছাড়া সভাপতি পদে আব্দুল মোতালেব লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে ৩৭৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদন্দি আব্দুল আলিম ফকির ৩৩৯ ভোট পান। আব্দুল আলিম ফকির সভাপতি পদের ভোট পুনরায় গণনার আবেদন করেন। নিয়মনীতি উপেক্ষা করে দুই দিন পরে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি পুনরায় সভাপতি পদের ভোট গননা করে। এতে নির্বাচিত সভাপতি আব্দুল মোতালেব ৩৭৮ টি ভোট পেলেও, আব্দুল আলিম ফকির ড্রাইভার ৩ ভোট কমে ৩৩৬ ভোট পেয়েছেন ঘোষণা করা হয়।
এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির উপর শ্রমিকদের মনে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এই ত্রুটিপূর্ন ফলাফল প্রকাশ করায় দর্শনার বিভিন্ন মহলে আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। সুধীজন ও বেশ কিছু শ্রমিকেরা বলেন তাহলে কি সব পদের ভোট গণনায় এ রকম ভুল হয়েছে, নাকি কোন পক্ষপাতিত্বের বিষয় আছে। এরকমই ধারণা সাধারন মানুষ ও শ্রমিকদের।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।