দর্শনায় তুচ্ছ ঘটনায় সংঘর্ষ, নারীসহ ছয়জন আহত

88

দর্শনা অফিস:
দর্শনায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে নারীসহ ছয়জন রক্তাক্ত জখম হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বেগমপুরের উজলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গ্রামে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।
জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার দর্শনা থানাধীন বেগমপুর ইউনিয়নের উজলপুর গ্রামের মাঝপাড়ার তেমাথা মোড়ে একজনকে রক্তাক্ত জখম করে আহত করার ঘটনায় বিচার-সালিশের আয়োজন করা হয়। এ আয়োজনে গ্রামের ইউপি সদস্য এরেংসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। এদের মধ্যে ইউপি সদস্যর ছেলে আসলাম উদ্দিন, জয়নাল মাস্টার, আনছার আলী, আজিম ও রহম আলী। এ সালিশ-বৈঠকে ইটভাটার শ্রমিক মিঠুনের বেলচার আঘাতে রক্তাক্ত জখম হন অপর শ্রমিক আমজেদ আলী। শ্রমিক দুজনই একই গ্রামের হওয়ায় ঘটনাটি মীমাংসায় সন্ধ্যায় ইটভাটা মালিক রহম আলীর উপস্থিতে গ্রামের মাতব্বরেরা সালিশ বৈঠকে বসেন। এ বৈঠকে উভয়ের মধ্যে সমাধানও হয়। সে অনুযায়ী একটি জুরিবোর্ড গঠনের সিদ্ধান্তে মিঠুনকে ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ জরিমানার কথা শুনা মাত্রই প্রতিপক্ষ আমজেদ গঙ সালিশ বৈঠকে মাতব্বরদের সামনেই মিঠুনসহ তাঁর লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এতে আহত হন মিঠুন, শফিকুল ও গোলাম। এ ঘটনার পর মাতব্বররা পরিস্থিতি শান্ত করে সমাধানের চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতেও ব্যর্থ হন আমজেদ গঙদের উত্তেজনায়। পরবর্তীতে আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালের উদ্দেশ্য দর্শনার দিকে যাওয়ার সময় পথের মধ্যে গ্রামের ক্লাব ঘরের নিকটবর্তী স্থানে আমজেদ গঙের লোকজন পুনরায় হামলা চালায়। এতে মিঠুনের স্ত্রী জেসমিন খাতুন (২৫) ও কোলের ১০ মাসের শিশু সন্তান সামি আহত হয়। আহতরা চুয়াডাঙ্গা সদর হাসাপাতালে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরেছেন। এদের মধ্যে শফিকুল ইসলামের ছেলে মিঠুন, মৃত মকছেদ মণ্ডলের ছেলে গোলাম (৬০) ও মিঠুনের স্ত্রী জেসমিন খাতুনের আঘাতের অবস্থা গুরুত্বর।
প্রসঙ্গত, গতকাল সকালে গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে মিঠুন (৩২) ও খেদের মণ্ডলের ছেলে আমজেদ (৩২) দর্শনা ছটাংগা মাঠের আরাম ইটভাটার মাটিকাটা শ্রমিকের কাজ করছিলেন। এরমধ্যে আমজেদ কাঁদা ছেনার কাজ না করে বালতি হাতে পানি টানা শুরু করেন। তিনি কাঁদা ছেনা বাদ দিয়ে পানি দেওয়ার ফলে মিঠুন রেগে তাঁর হাতে থাকা বেলচা ছুড়ে মারেন আমজেদের দিকে। এতে বেলচার আঘাতে আমজেদের একটি হাত কেটে রক্তাক্ত জখম হয়। এনিয়ে গ্রামে সন্ধ্যায় সালিশ বৈঠক বসলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।