চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ৪ আগস্ট ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দর্শনায় আলোচিত হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ৪, ২০২১ ৭:৪২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নাম ব্যাঙ্গ করায় হলো হত্যার মূল কারণ -অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম
দর্শনা অফিস:
দর্শনার ঈশ্বরচন্দ্রপুরে আলোচিত হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি সুজনকে (২০) আটক করেছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের ৪৮ ঘণ্টা পর ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী মানিকদিহি গ্রাম থেকে গতকাল মঙ্গলবার ভোর পৌনে চারটার দিকে তাঁকে আটক করতে সক্ষম হয় দর্শনা থানা পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের পর তিনি সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন বলে পুলিশ জানায়। গতকাল মঙ্গলবার বেলা তিনটায় দর্শনা থানায় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করে চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর ও দামুড়হুদা সার্কেল) মো. জাহাঙ্গীর আলম।
সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দর্শনা ঈশ্বরচন্দ্রপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর থেকে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছিল। বিভিন্ন স্থানে অভিযানও পরিচালনা করা হয়েছে। এ ধারাবাহিতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত সোমবার দিবাগত রাত পৌনে তিনটার দিকে ঝিনাইদাহ জেলার মহেশপুর থানার সীমান্তবর্তী মানিকদিহি গ্রাম থেকে মামলার প্রধান আসামি সুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সকল আসামিকেই গ্রেপ্তার করা হবে।
হত্যার কারণ সম্পর্কে তিনি জানান, হত্যাকাণ্ডের দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও আসামি গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় নাম ব্যাঙ্গ করাকে কেন্দ্র করে দুই বন্ধুর মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে সুজন জোটবদ্ধ হয়ে নিহত শহিদুলের দোকানের সামনে এসে শহিদুলের সাথে ধস্তাধস্তির ঘটনার একপর্যায়ে বুকের বামপাশে সজরে আঘাত করলে পরে তাঁর মৃত্যু হয়। এসময় শহিদুলের ছেলে ইলফাজ হোসেন হত্যাকারী সুজনের হাতে গুরুতর আহত হয়।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি, শিক্ষানবিশ) মো. সাজিদ, দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুবুর রহমান কাজল, ওসি (তদন্ত) শেখ মাহবুব, ওসি (অপারেশন) আবু সাঈদসহ থানার অন্য কর্মকর্তারা।
উল্লেখ্য, গত শনিবার দুপুরে দর্শনা পৌর এলাকার ঈশ্বরচন্দ্রপুরে তুচ্ছ ঘটনায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে নিহত হন আরেক বন্ধুর পিতা শহিদুল ইসলাম। এ ঘটনায় নিহতর মেয়ে বাদী হয়ে গত রোববার দর্শনা থানায় ছয়জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। এ ঘটনার পর থেকেই পুলিশ মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারে মাঠে অভিযান অব্যাহত রাখে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।