তিতুদহ কালুপোলে প্রতœতত্ত্ব অনুসন্ধান অব্যাহত:প্রাচীন নিদর্শনের সন্ধান: উৎসুক জনতার মেলা

305

আকিমুল ইসলাম: গত রবিবার থেকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের কালুপোল গন্ধোপ রাজার গুপ্ত প্রসাদ মাটি খোঁড়ার কাজ শুরু করেছে ১২ জন বিশিষ্ট  খুলনা পতœতত্ত্ব অধিদপ্তর থেকে আগত একটি অনুসন্ধানীদল। প্রথমদিন থেকে  ৭৫ সে.মি. বিশিষ্ট একটি ইটের তৈরি প্রাচীরের সন্ধান মিললেও গতকাল যখন টিমের সকলে তৃতীয় দিনের কাজ শুরু করে কিছুদুর খোঁড়ার কাজ শুরু করলে পুরাতন নিদর্শন কয়েকটি মাটির তৈরি বল, বাচ্ছাদের খেলনার পুতুল, ওজন মাপার কেজি ও  একটি ছাই ভর্তি জ্বালানীর চুলা সন্ধান পায় প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তর। প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তর সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় খুলনা কাস্টোডিয়ান সিনিয়র অফিসার গোলাম ফেরদৌস সমীকরণকে জানান, আমরা কয়েকটি মাটির তৈরি পুরাতন নিদর্শনের সন্ধান পেয়েছি এবং আশাকরি আরও অনেক কিছুর সন্ধান মিলবে এখান  থেকে কিন্তুু আমরা এই কাজ দ্রুত গতিতে করতে পারছি না কারন মাটি খননের জন্য স্থানীয় কোন শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। তবে কেন? এর উত্তরে তিনি জানান, এলাকার  মানুষের মনে এই ঢিবি নিয়ে অনেক কুসংস্কার বিরাজ করছে তারা জানান এখানকার গুপ্ত প্রাসাদের গায়ে খনন কিংবা কোন ইটের টুকরা ভাংগা হয় তাহলে নাকি সবাইকে মৃত্যু বরন করতে হবে। শ্রমিকের অভাব হওয়ায় স্থানীয় কয়েকজনসহ নিজেদেরকেই করতে হচ্ছে মাটি খননের কাজ। তবে যদি আগামী দিন থেকে খননের কাজে নতুন শ্রমিকের সন্ধান মেলে তাহলে হয়ত খুবদ্রুতই শেষ করতে পারবো এই কাজ।  তিনি আরও বলেন আশাকরি এখান থেকে মাটি খুঁড়ে আরও অনেক কিছু উদ্ধার করতে পারবো। এসময় উপস্থিত ছিলেন খুলনা প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তর আঞ্চলিক পরিচালক আফরোজা খাঁন মিতা, সহ পরিচালক  একেএম  সাইফুল ইসলাম,  সিনিয়ার ড্রাপ্টম্যান জাহান্দার আলী, সদস্য মহিদুল ইসলাম,  রিপন আলী প্রমূখ। মাটি খুঁড়ে প্রাসাদের কিছু অংশ এবং বিভিন্ন ধরনের মাটির তৈরি জিনিস বাহির হবার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তা দেখতে শত শত মানুষ ভিড় জমাচ্ছে গন্ধোপ রাজার গুপ্ত প্রাসাদের ঢিবিতে।