ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে কখন খাবেন?

57

স্বাস্থ্য প্রতিবেদন:
ভোরে ঘুম থেকে জেগে ওঠার উপকারিতা রয়েছে। খুব সকালে বিছানা ছাড়লে যথেষ্ট সময় থাকে বলে সুশৃঙ্খলভাবে কাজ করা যায়। সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ভোরে ঘুম থেকে উঠলে রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হয়। এটি ডায়াবেটিস রোগী ও স্বাস্থ্য সচেতন মানুষের জন্য বড় সুখবর। গবেষণা অনুসারে, খুব সকালে ব্রেকফাস্ট করলে ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স কমতে পারে, যার ফলে টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে। এ গবেষণার নেতৃস্থানীয় গবেষক ও শিকাগোর এন্ডোক্রাইনোলজিস্ট মরিয়ম আলি বলেন, ‘আমরা দেখেছি, যারা ভোরে ব্রেকফাস্ট করেছেন তাদের রক্তে শর্করার মাত্রা কম ছিল এবং ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্সও কম ছিল।’ গবেষণায় দেখা গেছে, সকালে সাড়ে আটটার আগে ব্রেকফাস্ট করলে ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স নিয়ন্ত্রণে থাকে। গবেষকদের মতে, এর সম্ভাব্য কারণ হলো, খুব সকালে খাবার খেলে বিপাকীয় কার্যক্রম তুলনামূলক ভালো হয়। ডা. মরিয়ম বলেন, ‘সঠিক বিপাকীয় কার্যক্রমের জন্য কতক্ষণ পরপর খাবার খাওয়া হচ্ছে তা নয়, বরং কখন খাবার খাওয়া হচ্ছে- এটি বড় প্রভাবক।’ নিউট্রিশনিস্ট এবং ‘রিড ইট বিফোর ইউ ইট- টেকিং ইউ ফ্রম লেবেল টু টেবল’ বইয়ের লেখক বনি টাউব ডিক্স বলেন, ‘সকালের খাবার খেতেই হবে এটা অবধারিত নয়, কিন্তু সারাদিন শরীর সতেজ রাখতে এর চেয়ে ভালো উপায় আর নেই।’ তিনি ব্রেকফাস্ট হিসেবে ফল ও বাদামের সঙ্গে দই অথবা টোস্ট-ডিম-শাকসবজি খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। গবেষকদের মতে, যারা সকাল সাড়ে ৮টার পর নাস্তা করেন, তারা টাইপ-২ ডায়াবেটিসের উচ্চ ঝুঁকিতে পড়তে পারেন।