চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ১৩ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ডাউকি ও নাগদাহে বিএনপির সম্মেলনে হামলা-ভাঙচুর

আওয়ামী সন্ত্রাসীদের প্রতিটি হামলার হিসাব রাখা হচ্ছে : জেলা বিএনপির সদস্য সচিব শরীফ
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ১৩, ২০২২ ২:১০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন:

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ডাউকি ও নাগদাহ ইউনিয়ন বিএনপির সম্মেলন ছিল গতকাল মঙ্গলবার। দুই ইউনিয়নের সম্মেলনেই আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। বেলা তিনটায় ডাউকি ইউনিয়ন বিএনপির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয় হাউসপুরে জেলা বিএনপির সদস্য আব্দুল জব্বার বাবলুর নিজ বাড়িতে। সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন বিএনপি নেতা মো. হায়দার আলী। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্যসচিব মো. শরীফুজ্জামান শরীফ।

প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য আব্দুল জব্বার বাবলু। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য আজিজুর রহমান পিণ্টু, আমিনুল হক রোকন, জেলা বিএনপির সাবেক সহসাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক ডাবলু, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজীব খান, জেলা জাসাসের সাধারণ সম্পাদক সেলিমুল হাবিব সেলিম ও জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোমিন মালিতা। আলমডাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় সম্মেলনে বক্তব্য দেন ডাউকি ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আবদার আলী, ইউনুছ আলী, পৌর বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী বাবু, আলমডাঙ্গা উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক জাহিদ হাসান শুভ, সদস্য সচিব আল ইমরান রাসেল, আলমডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক আতিক হাসনাত রিংকু ও যুগ্ম আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রকি।

কাউন্সিল অধিবেশন চলাকালে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। হামলায় সম্মেলনস্থলে রাখা কাউন্সিলরদের ১০টিরও অধিক মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। এর আগে দুপুরের দিকে আব্দুল জব্বার বাবলুর মালিকানাধীন ‘স’ মিলে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর চালায় দুর্বৃত্তরা। এদিকে, হামলার মধ্যেই ভোট গ্রহণ অব্যাহত থাকে। কেবলমাত্র সভাপতি পদে ভোট হয়। ভোটে ইউনুছ আলীকে পরাজিত করে আবদার আলী সভাপতি নির্বাচিত হন। অন্যান্য পদ সমন্বয় করে ৮ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করেন প্রধান অতিথি। এতে সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুস সালাম, সিনিয়র সহসভাপতি শামসুল হক, সহসভাপতি সরোয়ার হোসেন, শফি উদ্দিন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক সাইদুল ইসলাম বুড্ডু, যুগ্ম সম্পাদক আকতার হোসেন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মজনুর রহমান নির্বাচিত হন।

অপর দিকে, বিকেল চারটায় ছিল নাগদাহ ইউনিয়ন বিএনপির সম্মেলন। জোড়গাছা গ্রামে ব্যক্তিগত বাগানে সম্মেলনের আয়োজন করলেও হামলা চালিয়ে শতাধিক চেয়ার ও টেবিল ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা। হামলায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর হোসেন, বিএনপি নেতা আব্দুর রশিদ হ্যাবা ও বোরহান মেম্বারসহ অনেকেই আহত হন। হামলার পরে পুলিশ এসে সম্মেলন বন্ধ করে দেয় এবং ব্যানার নিয়ে চলে যায়। সম্মেলনস্থল পরিদর্শন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির সদস্যসচিব মো. শরীফুজ্জামান শরীফ। এসময় সফরসঙ্গী ছাড়াও নাগদাহ ইউনিয়ন বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ডাউকির সম্মেলন ও নাগদাহ ইউনিয়ন বিএনপির সম্মেলনস্থল পরিদর্শনকালে জেলা বিএনপির সদস্যসচিব শরীফুজ্জামান শরীফ বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ সাংগঠনিক কার্যক্রম দেখে আপনাদের গাত্রদাহ হচ্ছে কেন। দিনের ভোট রাতে করে প্রশাসনকে দিয়ে অবৈধভাবে ক্ষমতায় থেকে ফ্যাসিবাদের চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে আওয়ামী লীগ। তিনি বলেন, বিএনপি কোনো ভাসমান দল নয়, মোকাবিলা করার শক্তি-সামর্থ্য বিএনপিরও আছে। আওয়ামী সন্ত্রাসীদের প্রতিটি হামলার হিসাব রাখা হচ্ছে, সময়মতো সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। যারা অতি উৎসাহী হয়ে এসকল কর্মকা- ঘটাচ্ছেন তাদেরকে সাবধান করে দিচ্ছি। জেলা বিএনপির সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান আবুল জব্বার বাবলুর ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে এবং নাগদাহ ইউনিয়ন বিএনপির সম্মেলনে নগ্ন হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি বলেন, যত বাঁধাই আসুক সম্মেলন তথা দল পুনর্গঠনের কাজ অব্যাহত থাকবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।