চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ১৫ আগস্ট ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ডলারের দাম কমেছে

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
আগস্ট ১৫, ২০২২ ৯:০৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন: আমদানির এলসি খোলার পরিমাণ কমায় প্রভাব পড়তে শুরু করেছে ডলারে। এরই মধ্যে ৬-৮ টাকা কমেছে ডলারের দাম। গতকাল রোববার খোলা বাজারে নগদ ডলারের দাম ১১২-১১৪ টাকায় নেমে এসেছে। যা বৃহস্পতিবার ছিল ১১৮-১২০ টাকা। একটি মানি এক্সচেঞ্জের কর্মকর্তা বলেন, ডলারের রেট অনেক পড়ে গেছে। কেউ বিক্রি করতে আসলে ১১০ টাকা ৫০ পয়সা কিনছি। আর ১১২ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ১১৩ টাকায় বিক্রি করছি। বাংলাদেশ ব্যাংকসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযান চালাচ্ছে। এ কারণে আগের মতো সরাসরি খুচরা ডলার বিক্রি হচ্ছে না। এছাড়া সরবরাহ কিছুটা বেড়ে যাওয়ায় ডলারের দাম কমছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, আগস্ট মাসের ১১ দিনে দেশে মোট ১৬১ কোটি ডলার সমপরিমাণ মূল্যের আমদানির ঋণপত্র খোলা হয়েছে। যা জুলাই মাসের তুলনায় ৩৬ শতাংশ কম। জুলাই মাসে আমদানি হয়েছিল ২৫৫ কোটি ডলার।

এদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে বিশ্ববাজারে পণ্যমূল্য অনেক বেড়ে গেছে। ফলে গত কয়েক মাস ধরে আমদানি ব্যয়ে বাড়তি চাপ তৈরি হয়েছে। বাজারে বৈদেশিক মুদ্রার সরবরাহ ঠিক রাখতে প্রচুর ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। যার কারণে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে গেছে। বৈদেশিক মুদ্রার ওপর চাপ কমাতে ৪ জুলাই আমদানিতে বেশ কঠোরতা আরোপ করা হয়। গাড়ি, স্বর্ণ, টিভি, ফ্রিজসহ ২৭ ধরনের পণ্য আমদানির এলসি মার্জিন নির্ধারণ করা হয়েছে শতভাগ। আর জ্বালানি, অত্যাবশ্যকীয় খাদ্যপণ্য, শিল্পে ব্যবহাযোগ্য কাঁচামাল, মূলধনি যন্ত্রপাতিসহ কিছু পণ্য বাদে অন্য সব ক্ষেত্রে এলসি মার্জিনের ন্যূনতম হার হবে ৭৫ শতাংশ। উভয় ক্ষেত্রে মার্জিনের জন্য ঋণ দেওয়া যাবে না। এর মানে এলসি খোলার সময়ই আমদানিকারকের নিজস্ব উৎস থেকে পুরো অর্থ নগদে দিতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, আমদানি কমলে ও রেমিট্যান্স বাড়লে ডলারের বাজার স্বাভাবিক হয়ে যাবে। এরই মধ্যে ডলারের সংকট কাটাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। আমদানির এলসিতে শতভাগ মার্জিনসহ নানা শর্ত দেওয়ার সুফল পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া বাজারে সরবরাহ ঠিক রাখতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক চাহিদা অনুযায়ী নিয়মিত ডলার বিক্রি করছে। তিনি আরো বলেন, নগদ ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণেও কাজ করা হচ্ছে। যেসব মানিচেঞ্জার ও ব্যাংক অন্যায়ভাবে মুনাফা করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। তাদের কারসাজি রোধে নিয়মিত অভিযান করা হচ্ছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।