চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ১০ মে ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঠিকাদার কামালকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা!

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মে ১০, ২০২২ ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার মুন্সিগঞ্জে কামাল হোসেন (৬৩) নামের এক ঠিকাদারকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে গুরুতর জখম অবস্থায় প্রতিজ্ঞা নার্সিং হোমের সামনে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশ এসে তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে প্রতিজ্ঞা নার্সিং হোমে ও পরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে রাত ১২টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত কামাল হোসেন জেহালা ইউনিয়নের মুন্সিগঞ্জ ক্লিনিক পাড়া বা মাঝের পাড়ার পিতা মৃত জাহান মাস্টারের ছেলে।

জানা গেছে, গতকাল সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে মুন্সিগঞ্জ ক্লিনিকপাড়ায় প্রতিজ্ঞা নার্সিং হোমের পাশে গুরুতর জখম অবস্থায় কামাল হোসেনকে পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে গুরুতর জখম কামাল হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে প্রতিজ্ঞা নার্সিং হোমে নিয়ে যান। সেখানে তাঁর অবস্থার অবনিত হলে তাঁকে দ্রুত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। রাত ১২টার দিকে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আহসানুল হক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত কামাল হোসেনের স্ত্রী সেলিনা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার স্বামীকে আমি মারা যাওয়ার কিছু আগে হাসপাতালে নেওয়ার পথে জিজ্ঞাসা করি, তোমাকে কে মেরেছে? সে কিছু বলে না। পরে আবার বলি মোতাহারের জামাই? আমার স্বামী কোনোরকম মাথা নাড়িয়ে জামাই শব্দটা খুব আসতে করে বলেই চুপ হয়ে যায়। আর কথা বলেনি। পরে ডাক্তার বললো সে মারা গেছে।’ এই কথা বলতে বলতে সেলিনা খাতুন কান্নায় ভেঙ্ েপড়েন।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আহসানুল হক বলেন, ‘রাত ১২টার দিকে গুরুতর জখম অবস্থায় এক ব্যক্তিকে জরুরি বিভাগে নিয়ে আসে পুলিশ। আমরা অবশ্য তাঁকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি। তাঁর বাম পায়ের হাঁটুর নীচে ধারালো অস্ত্রের আঘাতসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁর ডান কান দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।’

আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি, তদন্ত) আব্দুল আলিম জানান, ‘খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পৌঁছে গুরুতর জখম কামাল হোসেনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেছেন। প্রাথমিকভাবে আমরা অভিযোগ পেয়েছি স্বাধীন নামের এক যুবকের সাথে জমি নিয়ে তাঁর দ্বন্দ্ব চলছিল। এর জের ধরেই হয়ত তাঁকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছি। এবং অভিযুক্ত স্বাধীনকে আটক করার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।