টাইব্রেকারে শিরোপা ফিলিস্তিনের

282

খেলাধুলা ডেস্ক: সেমিফাইনালে বাংলাদেশের বিদায়ে আগ্রহে ভাটা পরে সাধারণ দর্শকের। ফাইনালে আশানুরূপ দর্শক উপস্থিতি দেখা যায়নি। যারা তাজিকিস্তান ও ফিলিস্তিনের মধ্যকার ফাইনাল দেখতে এসেছেন, তাদের বেশির ভাগই স্টেডিয়ামে হাজির হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনে। এদের মধ্যে রাজনৈতিক কর্মী ছাড়া ছিল স্কুল-কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থী। প্রধানমন্ত্রীর সামনে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ফাইনালের লড়াইটা কিন্তু হয়েছে সমানে সমান। নির্ধারিত ৯০ মিনিটের পর অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও কেউ কাউকে ছেড়ে কথা বলেনি। নির্ধারিত সময়ের পর অতিরিক্ত সময়ে গোল না হওয়াতে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে ৪-২ গোলে তাজিকিস্তানকে হারিয়ে অপরাজিত থেকেই পঞ্চম বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের শিরোপা জিতে নেয় ফিলিস্তিন। ফিলিস্তিনের হয়ে দুই পেনাল্টি আটকে ম্যাচের নায়ক বনে যান গোলরক্ষক রামিক হামাদা। ছয় জাতির আমন্ত্রণমূলক এই টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্ব হয়েছে সিলেটে। কক্সবাজারে দুটি সেমিফাইনাল শেষে ফাইনাল অনুষ্ঠিত হলো বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে। গত চার আসরের চেয়ে গুণগত মানে এগিয়ে ছিল এবারকার আসর। দলগুলোও ছিল কাছাকাছি মানের। জাতীয় দলের ব্যানারেই অংশ নিয়েছে সব দল। সব জাতীয় দল হওয়াতেই ফিফা টিয়ার ওয়ানের স্বীকৃতি পায় এই টুর্নামেন্ট। আসরের প্রাইজমানিও কম নয়। ট্রফি ছাড়া ৫০ হাজার ডলার প্রাইজমানির এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে ৩৪ মিনিটেই দশ জনে পরিণত হয় তাজিকিস্তান। দুই দলের মারামারিকে কেন্দ্র করে তাজিক অধিনায়ক ফাতখুল্লয়েভ ফাতখুল্লেহকে লাল কার্ড দেখান রেফারি মিজানুর রহমান। ফিলিস্তিনের মিডফিল্ডার সামিহ মারাবার সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ের সময় পড়ে গিয়ে তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেন তাজিক অধিনায়ক। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে তাজিক স্ট্রাইকার তারসুনভ কমরন ফ্রি কিক থেকে বল পেয়ে ডিবক্সের মধ্যে দুই ডিফেন্ডারের মাঝ থেকে ভাসমান শট নিলে সেটি ক্রস বারের ওপর দিয়ে বাইরে যায়। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে আবদুল্লাহ জারাজের বাঁ পায়ের শট ক্রসবারে লেগে ফিরে এলে, ফিরতি বল কর্নারে রক্ষা করেন ফিলিস্তিনের ডিফেন্ডার রুস্তম। ম্যাচের ৭৫ মিনিটে গোল পেয়ে গিয়েছিল তাজিকিস্তান। ডিবক্সের মধ্যে নাজারভের শট পোস্টে লেগে ফিরে এলে ফিরতি বল জালে জড়ান বজোরভ। তবে বভোরভ অফসাইডে থাকায় গোল বাতিল করে দেন বাংলাদেশি রেফারি। ম্যাচের শেষ মিনিটে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করে তাজিকিস্তান। ওই বেকের আড়াআড়ি ক্রসে পা-ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন দরবজন। নির্ধারিত ৯০ মিনিট গোলশূন্য থাকায় খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। দুর্দান্ত গ্রুপ পর্ব শেষ করে সেমিফাইনালে উঠা ফিলিস্তিন বাংলাদেশকে হারিয়েছে দাপটের সঙ্গে। কিন্তু ফাইনালে তাদের সেই দাপুটে খেলা চোখে পরেনি। বড্ড ক্লান্ত মনে হয়েছে ফিলিস্তিনের ফুটবলারদের। উল্টো দশ জনের তাজিকিস্তান নির্ধারিত ৯০ মিনিট ছাড়াই অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও প্রতিপক্ষের রক্ষণে চাপ সৃষ্টি করে। পুরো ম্যাচে অসাধারণ কিছু সেভ করা তাজিকিস্তানের গোলরক্ষক রুস্তমকে শেষ মিনিটে উঠিয়ে নেয় টিম ম্যানেজমেন্ট। পেনাল্টির আগে টিম ম্যানেজমেন্টের এমন সিদ্ধান্ত ভালোভাবে নেননি পুরো টুর্নামেন্টে অসাধারণ খেলা এই গোলরক্ষক। তার পরিবর্তে বেহেরুজ মাঠে নেমেই কঠিন পরীক্ষায় পরেন। টাইব্রেকারে চার শটের মধ্যে কমরন ও তাবরেজির শট রুখে দিয়ে ফিলিস্তিনকে ইতিহাসে তৃতীয় শিরোপা এনে দেন গোলরক্ষক হামাদা। এর আগে এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপ ও ঘরের মাঠে একটি আন্তর্জাতিক ট্রফি জিতেছিল ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১০০ নাম্বারে থাকা দলটি। গ্রুপ পর্বেও তাজিকিস্তানকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল ফিলিস্তিন।