চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ৭ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঝিনাইদহ গার্লস স্কুলের চার ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা

ইজিবাইক থেকে লাফিয়ে প্রাণ রক্ষা
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ৭, ২০২২ ৯:২০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ঝিনাইদহ অফিস:

ঝিনাইদহ শহর থেকে স্কুলে যাওয়ার পথে অষ্টম শ্রেণির চার ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা করেছিলেন এক ইজিবাইক চালক। যানজটের কারণ দেখিয়ে স্কুলগামী চার ছাত্রীকে ঝিনাইদহ শহরের নির্জন গলিপথ দিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে সাহস ও বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়ে চলন্ত বাইক থেকে লাফিয়ে নিজেদের রক্ষা করে ছাত্রীরা। এই অবস্থায় দুর্বৃত্তের ছদ্মবেশধারী ইজিবাইক চালক পালিয়ে যান। গতকাল মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে।

অভিভাবক ও ভুক্তভোগী ছাত্রীরা জানায়, মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে ঝিনাইদহ সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের দিবা শাখার চার ছাত্রী স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশে এককত্রিত হয়ে শহরের এইচএসএস সড়কের কুটুম কমিউনিটি সেন্টারের সামনে থেকে ইজিবাইকে ওঠে। ইজিবাইকটি শহরের সুইট মোড় থেকে সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের যাওয়ার পথ ডানে না গিয়ে চালক যানজটের কথা বলে ভিন্ন পথে চালাতে থাকে। এসময় চালক দ্রুত পায়রা চত্বর হয়ে সরকারি কেসি কলেজের পাশ দিয়ে গলি রাস্তায় ঢুকে পড়ে। এসময় ছাত্রীরা চালকের কাছে জানতে চাই কেন সে এই পথে আসল? চালক জানায়, এই রাস্তা ঘুরে তাদের স্কুলে পৌঁছে দিবে। কিন্তু চালক এরপর স্কুলের দিকে যাওয়ার পথ ডানে রেখে বায়ে মোড় নিয়ে দ্রুত বাইক চালাতে থাকে। এই অবস্থায় ভীতসন্ত্রস্ত ছাত্রীরা তাদের কোথায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে জানতে চাইলে চালক ছাত্রীদের ধমক দিয়ে থামিয়ে দেয়। এরপর চালক তার বাইকটি মদনমোহন পাড়ার নির্জন গলি পথে নিয়ে যেতে থাকলে এক ছাত্রী বাইক থেকে লাফিয়ে পড়ে। তখন চালক বাইকের গতি কমিয়ে পড়ে যাওয়া ছাত্রীকে দেখার চেষ্টা করে। এসময় বাকি ছাত্রীরাও বাইক থেকে লাফিয়ে পালিয়ে যায়। লাফিয়ে নামতে গিয়ে ছাত্রীরা বেশ কিছুটা আহত হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাইকে থাকা এক ছাত্রী জানায়, তারা যখন লাফ দিয়ে নেমে পড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল তখন চালক তার কাছে থাকা একটি ব্যাগ থেকে কিছু বের করার চেষ্টা করছিল। পরে চার ছাত্রী স্কুলে পৌঁছে তাদের শ্রেণি শিক্ষিকার কাছে সব খুলে বলে। এই ঘটনায় স্কুলের ছাত্রী ও অভিভাবকদের মধ্যে চরম ভীতি ছড়িয়ে পড়ে। অভিভাবকবৃন্দ তাদের সন্তানদের নিরাপত্তার স্বার্থে শহরের সিসি ফুটেজ দেখে ইজিবাইক চালককে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।

অনেক অভিভাবক অভিযোগ করেন, রমজান মাসে শহরে লোক সমাগম কম থাকার সুযোগে ওই ইজিবাইক চালক এমন করতে সাহস পেয়েছে। তারা দ্রুত স্কুল বন্ধের দাবি জানান। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা (ভারপ্রাপ্ত) লক্ষী রানী পোদ্দারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান তাঁর শাশুড়ীর অসুস্থতার জন্য তিনি যশোরে গিয়েছেন। বিষয়টি তিনি তাঁর স্কুলের অন্য শিক্ষিকাদের নিকট থেকে জেনেছেন। তিনি বলেন, ঝিনাইদহ ফিরে তাঁর ছাত্রীদের নিরাপত্তার সাথে স্কুলে আসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন এবং বিষয়টি প্রশাসনের গোচরে আনবেন বলে জানান।

বিষয়টি ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহম্মদ সোহেল রানাকে জানানো হলে তিনি শহরের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ইজিবাইক ও তাঁর চালককে শনাক্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।