চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ৩০ আগস্ট ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঝিনাইদহ ও হরিণাকুন্ডু শহর সিসি ক্যামেরার আওতায় আসছে

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ৩০, ২০১৬ ১১:১৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

eryrytঝিনাইদহ অফিস: নিরাপত্তার কথা ভেবে ঝিনাইদহ শহর সিসি ক্যামেরার আওতায় আসছে। এ নিয়ে প্রশাসন ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে। শেষ পর্যন্ত জেলা শহরের ১৪০টি পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা লাগানো হচ্ছে। সিসি ক্যমেরা বাবাদ সম্ভব্য ব্যায় ধরা হয়েছে ১৮/১৯ লাখ টাকা। ইতিমধ্যে স্পট চিহ্নিত করে ঠিকাদারও নির্বাচন করা হয়েছে। জেলা পুলিশের বাস্তবায়নে সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। এ সব তথ্য জানান, ঝিনাইদহ চেম্বারের সভাপতি মীর নাসির উদ্দীন। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা ও প্রতিষ্ঠানের কথাটি মাথায় রেখে আমরা গোট শহর সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসছি। এতে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ দমনের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের প্রতিষ্ঠানেরও নিরাপত্তা বিধান হবে। বিষয়টি নিয়ে র‌্যাব, পুলিশ ও সরকারের বিভিন্ন সংস্থা কাজ করছে। ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমানের দিক নির্দেশনায় শহর ব্যাপী সিসি ক্যামেরা বসানোর তৎপরতা চলছে বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে তার দপ্তরে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ শুভেচ্ছা বিনিময় করতে গেলে তিনি সিসি ক্যামেরা বসানোর প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। তাতে সায় দেন ঝিনাইদহ শহরের ব্যবসায়ীরা। জানা গেছে ঝিনাইদহ শহরের ছোট বড় ব্যবসায়ীদের টাকায় সিসি ক্যামেরা বসানো হচ্ছে। এ নিয়ে দোকান মালিক সমিতি ও চেম্বার নেতারা প্রতিষ্ঠান কি পরিমান টাকা তোলা যায় তার নিয়ে ভাবছেন। তবে ব্যবসায়ীদের একটি অংশ জানিয়েছেন, এখন ব্যবসা বাণিজ্য ভাল না। অনেকে দোকান গুটিয়ে নিয়েছে। কেও পুজি ভেঙ্গে খাচ্ছেন। তাই বড় ব্যবসায়ীদের এ খাতে বেশি বিনিয়োগ তারা প্রত্যাশা করেন। তাছাড়া ভাল মানের সিসি ক্যামেরা যাতে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বসায় সে বিষয়ে বিশেষ নজর দেবার দাবী জানানো হয়েছে। এদিকে হরিণাকুন্ডু শহরেও লাগানো হচ্ছে সিসি ক্যামেরা। ২/১ দিনের মধ্যে শহরের ৬টি পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা লাগানোর সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানান সেখানকার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি এম সাইফজ্জুামান তাজু। তিনি জানান, ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই হরিণাকুন্ডু শহরে সিসি ক্যামেরা লাগানো হচ্ছে। এতে সাড়াও পাওয়া যাচ্ছে। তিনি বলেন, সিসি ক্যামেরা লাগানো হলে ব্যবসায়ীরা এর সুফল পাবেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।